Beta

উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ, ‘গণধোলাই’

২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৭:৪০ | আপডেট: ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৭:৪৪

নেত্রকোনার বারহাট্টা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মানিক আজাদ। ফাইল ছবি

নেত্রকোনার বারহাট্টা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মানিক আজাদের বিরুদ্ধে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ এনে মামলা করেছেন এক নারী। এর আগে ওই নারীর বাসার সামনে উপজেলা চেয়ারম্যানকে গণধোলাই দেওয়া হয় বলে দাবি করেন স্থানীয়রা।

গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার কলেজ রোড এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। রাতে স্থানীয় লোকজন চেয়ারম্যানের বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ করেন।

পুলিশ হেফাজতে থাকা ওই নারী এনটিভি অনলাইনের কাছে দাবি করেন, গতকাল সন্ধ্যায় উপজেলা চেয়ারম্যান ফোন করে তাঁর বাসায় আসেন। একপর্যায়ে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তাঁকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। তখন চিৎকার করলে আশপাশের লোকজন ছুটে আসেন। জনতা চেয়ারম্যানকে মারধর করলে একপর্যায়ে তিনি পালিয়ে যান।

স্থানীয়রা জানান, ঘটনার পর পরই উপজেলা চেয়ারম্যানের বিচার দাবি করে লোকজন উপজেলার প্রধান সড়কের গোপালপুর এলাকায় তাঁর ভাড়া করা বাসার সামনে বিক্ষোভ করেন। এ সময় সামাজিক স্বীকৃতির দাবিতে ওই নারীও ওই বাসার সামনে অবস্থান নেন।

খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ফরিদা ইয়াসমিন ও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বদরুল আলম খান ঘটনাস্থলে গিয়ে জনতাকে শান্ত করেন। রাত সাড়ে ১১টার দিকে ওই নারীকে পুলিশ তাদের জিম্মায় নেন।

এ ব্যাপারে ইউএনও ফরিদা ইয়াসমিন বলেন, ‘ওই নারীর নিরাপত্তার কথা চিন্তা করেই তাঁকে পুলিশ হেফাজতে দেওয়া হয়েছে। আইন অনুযায়ী বাকি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

বারহাট্টা থানার ওসি বদরুল আলম জানান, রাতে ওই নারী বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেছেন।

Advertisement