Beta

মাদক সেবনের দায়ে যবিপ্রবির ৮ ছাত্রকে হল থেকে বহিষ্কার

০৯ মার্চ ২০১৯, ২৩:৩২

অনলাইন ডেস্ক

হলে মাদক সেবন ও হল কক্ষে গাঁজা সেবনের উপকরণ পাওয়ায় যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) চার বিভাগের আটজন ছাত্রকে ছয় মাসের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মসিয়ূর রহমান হল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

শনিবার শহীদ মসিয়ূর রহমানের হলের প্রাধ্যক্ষমণ্ডলীর সভায় তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন পর্যালোচনা শেষে তাদের বিরুদ্ধে এ শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. আব্দুর রশিদের পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে একথা জানানো হয়।

হল থেকে বহিষ্কৃতরা হলেন ইলেক্ট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেক্ট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (ইইই) বিভাগের ২০১২-১৩ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র তানভীর মাহমুদ ফয়সাল ও তানীম আহমেদ, একই বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র মো. আক্তারুজ্জামান আপন, ইংরেজি বিভাগের ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র কে এম শাহেদ, ইন্ডাস্ট্রিয়াল অ্যান্ড প্রডাক্শন ইঞ্জিনিয়ারিং (আইপিই) বিভাগের ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র মো. ইখতিয়ার ইমাম আনান এবং বায়োমেডিকেল ইঞ্জিনিয়ারিং (বিএমই) বিভাগের ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র দেবায়ন দাস জয়, অভিক মজুমদার ও নিলয় চন্দ্র মন্ডল। এরমধ্যে তিনজন শিক্ষার্থী অনাবাসিক হওয়ায় তাদেরকে এক হাজার টাকা জরিমানাসহ ছয় মাসের মধ্যে হলে প্রবেশ ও রাত্রিযাপন নিষিদ্ধ করা হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ১২ ফেব্রুয়ারি শহীদ মসিয়ূর রহমানের হলের প্রাধ্যক্ষ ইঞ্জিনিয়ার ড. মো. আমজাদ হোসেনের নেতৃত্বে অন্যান্য সহকারী প্রাধ্যক্ষরা হল পরিদর্শনে যান। এ সময় তারা হলের ৪১২ নম্বর কক্ষে চারজন ছাত্রকে মাদক সেবনরত অবস্থায় দেখতে পান। পরের দিন ১১০ নম্বর কক্ষে গাঁজা সেবনের বিভিন্ন উপকরণ পাওয়া যায়। এছাড়া ওই কক্ষে ছাত্ররা সারারাত ড্রাম ও সাউন্ডবক্স বাজিয়ে পড়াশোনার পরিবেশ বিনষ্ট করছে বলে অভিযোগ পান প্রাধ্যক্ষমণ্ডলীর সদস্যরা। পরে এ নিয়ে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। কমিটিও এসব ঘটনার সত্যতা পায়। পরে তদন্ত কমিটি অভিযুক্তদের এক বছরের জন্য বহিষ্কার করা যেতে পারে বলে সুপারিশ করে। তবে প্রাধ্যক্ষমণ্ডলীর সভায় আট শিক্ষার্থীকে ছয় মাসের জন্য হল থেকে বহিষ্কার এবং তিনজনকে এক হাজার টাকা জরিমানা করার সিদ্ধান্ত নেয়।

শনিবার সকাল সাড়ে ৯টায় এ নিয়ে শহীদ মসিয়ূর রহমানের হলের প্রাধ্যক্ষ ইঞ্জিনিয়ার ড. মো. আমজাদ হোসেনের সভাপতিত্বে হলে সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে হলের সহকারী প্রাধ্যক্ষ মো. মজনুজ্জামান, ড. মো. ফরহাদ বুলবুল ও মোহাম্মদ নওশীন আমিন শেখ উপস্থিত ছিলেন।

Advertisement