Beta

পদ্মায় গোসল করতে গিয়ে ভাইবোনসহ তিন শিক্ষার্থীর মৃত্যু

২১ এপ্রিল ২০১৯, ১৫:৪৯

রাজশাহীর বাঘা উপজেলায় পদ্মা নদীতে গোসল করতে গিয়ে ভাইবোনসহ তিন শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে। আজ রোববার দুপুরে উপজেলার মীরগঞ্জে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত শিক্ষার্থীরা হলো বাঘার মীরগঞ্জ ভানুকর এলাকার জিল্লুর রহমানের মেয়ে এশা খাতুন (৯) ও ছেলে জিম (১৭) এবং প্রতিবেশী শহিদুল ইসলামের মেয়ে শিপ্রা খাতুন (১২)। এশা বাঘা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে তৃতীয় শ্রেণিতে, জিম মীরগঞ্জ কলেজের একাদশ শ্রেণিতে ও শিপ্রা মীরগঞ্জ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ত।

স্থানীয় একাধিক সূত্র জানায়, দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বাঘার মীরগঞ্জ ভানুকর এলাকার এশা ও তার ভাই জিম এবং প্রতিবেশী শিপ্রা বাড়ির পাশের পদ্মা নদীতে গোসল করতে যায়। গোসলের একপর্যায়ে এশা সাঁতার কাটতে গিয়ে পানির নিচে তলিয়ে যেতে শুরু করে। অপর দুজন তাকে রক্ষা করতে গিয়ে নিজেরাও ডুবে যায়।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী স্থানীয় যুবক রুবেলের চিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে নদী থেকে তিনজনকে উদ্ধার করে পাশের চারঘাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক হাবিবুর রহমান তিনজনকে মৃত ঘোষণা করেন।

একই পরিবারের দুই সন্তানসহ তিন শিক্ষার্থীর মৃত্যুর ঘটনায় তাদের পরিবারে চলছে শোক। এলাকায়ও নেমে এসেছে শোকের ছায়া।

বাঘা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মহাসীন আলী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, খবর পেয়ে পদ্মাপাড়ে গিয়েছিলাম। এ ধরনের মৃত্যু মেনে নেওয়া অত্যন্ত কষ্টকর।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে ওসি মহাসীন আলী বার্তা সংস্থা ইউএনবিকে জানান, দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বাঘার মীরগঞ্জ বিউপি ক্যাম্প এলাকার সুফিয়ানের ঘাটে তারা গোসল করতে যায়। এ সময় কোনোভাবে তারা নদীতে ডুবে যায়। এতে এক শিক্ষার্থীর মরদেহ দেখতে পায় স্থানীয়রা। পরে স্থানীয়রা নদীতে তল্লাশি করে অপর দুই শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার করে।

শিক্ষার্থীদের চারঘাট উপজেলা স্বাস্থ কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

এদিকে, বাঘা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শাহিন রেজা নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এ সময় তিনি নিহতদের পরিবারকে আর্থিকভাবে সহায়তার আশ্বাস দেন।

Advertisement