Beta

পাবনায় শিক্ষককে মারধর : দুই আসামি গ্রেপ্তার

১৬ মে ২০১৯, ১৬:৩৮

পাবনায় সরকারি শহীদ বুলবুল কলেজে বাংলা বিভাগের শিক্ষক মো. মাসুদুর রহমানকে মারধরের ঘটনায় গ্রেপ্তার সজল ইসলাম ও শাফিন শেখ। ছবি : ফোকাস বাংলা

নকলে বাধা দেওয়ায় পাবনায় সরকারি শহীদ বুলবুল কলেজে বাংলা বিভাগের শিক্ষক মো. মাসুদুর রহমানকে মারধরের ঘটনায় মূল আসামিদের গ্রেপ্তারের দাবিতে শহরের আব্দুল হামিদ সড়কে মানববন্ধন করেছেন জেলার চারটি সরকারি কলেজের শিক্ষকরা।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুর ২টার দিকে পাবনা প্রেসক্লাবের সামনে অনুষ্ঠিত এ মানববন্ধনে তিন দিনের কালো ব্যাজ ধারণের কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়। এর মধ্যে মূল আসামিদের গ্রেপ্তার না করলে কঠিন কর্মসূচি দেওয়া হবে বলে ঘোষণা দেওয়া হয়।

এ দিকে বিসিএস শিক্ষা ক্যাডারের প্রভাষক মাসুদুর রহমানকে কিল, ঘুষি ও লাথি মেরে চরমভাবে অপদস্থ করার ঘটনায় এজাহারভুক্ত দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এরা হলো পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলার গোকুলনগর গ্রামের সজল ইসলাম ও সদর উপজেলার মালঞ্চি গ্রামের শাফিন শেখ।

পাবনায় সরকারি শহীদ বুলবুল কলেজে বাংলা বিভাগের শিক্ষক মো. মাসুদুর রহমানকে মারধরের ঘটনায় মূল আসামিদের গ্রেপ্তারের দাবিতে বৃহস্পতিবার শহরের আব্দুল হামিদ সড়কে মানববন্ধন করা হয়। ছবি : ফোকাস বাংলা

পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (পুলিশ সুপার পদে পদোন্নতি প্রাপ্ত) গৌতম কুমার বিশ্বাস জানান, বুধবার রাতে  সরকারি শহীদ বুলবুল কলেজের অধ্যক্ষ এস এম আব্দুল কুদ্দুস বাদী হয়ে সজল ইসলাম ও শাফিন শেখের নাম উল্লেখ করে আরো অজ্ঞাতনামা তিন থেকে চারজনকে আসামি করে পাবনা সদর থানায় মামলা করেন। মামলা দায়েরের পর তাঁর নেতৃত্বে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওবাইয়দুল হক, পরিদর্শক (অপারেশন) হাফিজুর রহমানসহ পুলিশের একটি দল অভিযান চালিয়ে শাফিন শেখ ও সজল ইসলামকে গ্রেপ্তার করে।

এর আগে ৬ মে অনুষ্ঠিত এইচএসসি পরীক্ষা চলাকালে সরকারি শহীদ বুলবুল কলেজে কয়েকজন ছাত্রছাত্রীকে নকলে বাধা দেন শহীদ বুলবুল কলেজের বাংলা বিভাগের প্রভাষক মাসুদুর রহমান। এরই জের ধরে গত ১২ মে কলেজ থেকে বাসায় ফেরার পথে কলেজের গেটে শিক্ষক মাসুদুর রহমানকে মারধর করেন ছাত্রলীগের কয়েকজন কর্মী। সিসিটিভি ক্যামেরায় ধরা পড়া সেই হামলার ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হলে তোলপাড় সৃষ্টি হয়।

প্রভাষক মাসুদুর রহমান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগ থেকে স্নাতক-স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করার পর ৩৬তম বিসিএসের মাধ্যমে যোগ দেন বিসিএস শিক্ষা ক্যাডারে।

Advertisement