Beta

‘ঢাকার অবৈধ ও ঝুঁকিপূর্ণ ভবন পর্যায়ক্রমে ভেঙে ফেলা হবে’

২১ জুন ২০১৯, ১৭:৫০

নিজস্ব প্রতিবেদক
ডিআরইউতে আয়োজিত অনুষ্ঠানে কথা বলেন গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম। ছবি : এনটিভি

পরিবেশবান্ধব আবাসিক এলাকা তৈরি করতে রাজধানী ঢাকার অবৈধ ও ঝুঁকিপূর্ণ ভবন পর্যায়ক্রমে ভেঙে ফেলা হবে বলে জানিয়েছেন গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম। এরই মধ্যে এক হাজার ৮১৮টি ভবন তালিকাভুক্ত করা হয়েছে।

আজ শুক্রবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) আয়োজনে মিট দ্য প্রেস অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম। এ ছাড়া পুরান ঢাকাকে পরিকল্পিত আবাসিক এলাকা গড়ে তুলতে দক্ষিণ সিটি করপোরেশনকে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে বলে জানান মন্ত্রী।

ডিআরইউর নিয়মিত আয়োজন মিট দ্য প্রেসের এবার অতিথি ছিলেন গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম। অনুষ্ঠানে বরাবরের মতোই মন্ত্রীকে পেয়ে বিভিন্ন প্রশ্ন করেন সাংবাদিকরা। এ সময় ঢাকার অপরিকল্পিত ও ঝুঁকিপূর্ণ আবাসিক ভবনের বিরুদ্ধে সরকারের করণীয় সম্পর্কে মন্ত্রী বলেন, ‘ঢাকার ঝুঁকিপূর্ণ বহুতল ভবনের তালিকা করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে নিরীক্ষার মাধ্যমে অবৈধ ও ঝুঁকিপূর্ণ ভবনগুলো ভেঙে দেওয়া হবে।’

শ ম রেজাউল করিম বলেন, ‘ঢাকার একটি বিল্ডিংকেও আমরা ইনসপেকশনের বাইরে রাখব না ইনশাআল্লাহ। এক হাজার ৮১৮টি ভবনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছি আমরা।’

তিনি বলেন, ‘নতুন ঢাকায় যাঁরা যথেচ্ছাচারভাবে বিল্ডিং নির্মাণ করেছেন, তাঁদের একেবারে অনিয়মের বিল্ডিংগুলো ভেঙে ফেলতে হবে। যেটাকে কোনোভাবে রাখা যাবে না, যদি তারা ভাঙতে না চান ওই বিল্ডিংকে আমরা বেআইনি, ব্যবহার অনুপযোগী বলে সিলগালা করে দেব।’

এ ছাড়া পুরান ঢাকাকে পরিকল্পিত আবাসিক এলাকা নির্মাণের পরিকল্পনার কথাও জানান তিনি।

মন্ত্রী বলেন, ‘পরিবেশসম্মত ঝুঁকিহীন অবস্থা করার জন্য যে রিডেভেলপমেন্ট বলে, যেটা সিঙ্গাপুর করেছে, জাপান করেছে, আমরা সে প্রস্তাব ঢাকার মেয়র সাঈদ খোকনকে দিয়েছি এবং পুরান ঢাকার লোকজনকেও দিয়েছি। যে আমরা সাহায্য করে আপনাদের বিল্ডিং করে দেব। অনেকেই সাড়া দিয়েছেন, হয়তো একটু সময় লাগবে।’

এদিকে কোন প্রক্রিয়ায় বিজিএমই ভবন ভাঙা হবে, আগামী সপ্তাহেই তার সিদ্ধান্ত হবে বলে জানান মন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘আমরা চুক্তিতে যাব যে কী প্রক্রিয়ায় উনি ভাঙবেন। সেই প্রক্রিয়া যদি ঝুঁকিপূর্ণ হয়, তবে কোনোভাবেই সেই প্রক্রিয়ায় ভাঙতে দেব না।’

অনুষ্ঠানে রাজউকসহ মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন অনিয়ম ও উন্নয়ন প্রকল্পের বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাব দেন মন্ত্রী।

Advertisement