Beta

মুন্সীগঞ্জে ঘুষ ছাড়াই পুলিশে চাকরি দিলেন এসপি

০৯ জুলাই ২০১৯, ২২:৩২ | আপডেট: ০৯ জুলাই ২০১৯, ২২:৫৬

আজ মঙ্গলবার দুপুরে মুন্সীগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সভাকক্ষে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন পুলিশ সুপার জায়েদুল আলম। ছবি : এনটিভি

কোনো ধরনের ঘুষ বা অর্থনৈতিক সুবিধা ছাড়াই পুলিশে নিয়োগের যে ঘোষণা দেওয়া হয়েছিল তার বাস্তবায়ন করলেন মুন্সীগঞ্জের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জায়েদুল আলম। সম্পূর্ণ মেধা ও যোগ্যতার ভিত্তিতে মুন্সীগঞ্জ জেলায় এ বছর পুলিশ কনস্টেবল পদে ২২৬ জনকে চাকরি দিয়ে দৃষ্টান্ত দেখালেন তিনি।

মুন্সীগঞ্জের ইতিহাসে এই প্রথম সর্বোচ্চ সংখ্যক পুলিশ কনস্টেবল পদে চাকরি পেয়েছে স্থানীয় নারী-পুরুষ।

দেশের বিভিন্ন জেলায় ১০০ টাকায় পুলিশের চাকরি হচ্ছে বলে যে খবর পাওয়া যায় তার শুরুটা করেছেন মুন্সীগঞ্জের জেলার বর্তমান পুলিশ সুপার জায়েদুল আলম। তিনি ২০১৬ সালে মুন্সীগঞ্জ জেলায় যোগদানের পর থেকেই এই ঘোষণা দেন। এরপর ২০১৭ সালে ৮৩ জন ও ২০১৮ সালে ৮৫ জন এবং এ বছর ২২৬ জন পুলিশ কনস্টেবল পদে চাকরি পেয়েছেন। শুধু তাই নয়, তিনিই প্রথম ২০১৭ সালে মুন্সীগঞ্জের পুলিশ সদস্যদের মধ্যে ডোপ টেস্ট চালু করেছেন।

গত ২৪ জুন মুন্সীগঞ্জ জেলা পুলিশে কনস্টেবল পদে নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হয়ে বিভিন্ন ধাপে যাচাই-বাছাই করে ২৯ জুন যোগ্য এবং মেধাবী প্রার্থীদের নির্বাচিত করা হয়।

আজ মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সভাকক্ষে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে এসব কথা বলেন পুলিশ সুপার জায়েদুল আলম।

পুলিশ সুপার জানান, নির্বাচিত ২২৬ জনের মধ্যে সাধারণ পুরুষ ১৭১ জন, সাধারণ নারী ৪২ জন, পুরুষ মুক্তিযোদ্ধা ১০ জন, পুলিশ পোষ্য পুরুষ দুজন ও আনসার একজন। এবার চূড়ান্ত পর্যায়ে যারা নির্বাচিত হয়েছেন তাদের বেশির ভাগই হতদরিদ্র, দিনমজুর ও চা বিক্রেতার সন্তান।

এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. মোস্তাফিজুর রহমান, ডিআই-২ প্রাণ বন্ধুসহ সদ্য নিয়োগ প্রাপ্তদের অভিভাবক ও সাংবাদিকরা।

Advertisement