Beta

আদালত খুলেছে, ব্যস্ততা শুরু হয়নি

১৪ আগস্ট ২০১৯, ২১:৪১

আদালত প্রতিবেদক
ঢাকার নিম্ন আদালত আজ বুধবার খুললেও এখনো ব্যস্ততা শুরু হয়নি। তবে ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে বিকেলের দিকে কিছুটা ব্যস্ততা দেখা গেছে। ছবি : এনটিভি

ঈদুল আজহার ছুটি শেষে আজ বুধবার ছিল প্রথম কর্মদিবস। নিম্ন আদালত খুললেও এখনো ব্যস্ততা শুরু হয়নি। তবে ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে বিকেলের দিকে কিছুটা ব্যস্ততা দেখা গেছে।

আজ বুধবার ঢাকার জেলা ও দায়রা জজ, মহানগর দায়রা জজ, ঢাকার মুখ্য বিচারিক হাকিম ও ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিমের আদালতে দেখা গেছে, বিচারপ্রার্থী ও আইনজীবীদের সংখ্যা খুব কম।  শুধু যে সব বিচারপ্রার্থীদের হাজিরা ছিল তারাই আদালতে এসেছেন।

জোসনা নামের এক নারী জানান, তিনি প্রতারণার একটি মামলার বাদী। আজ আদালতে হাজিরা থাকায় এসেছেন। আদালতে হাজিরা থাকায় তিনি ঈদের ছুটিতে বাড়িতে যাননি। আগামীকাল তিনি গ্রামের বাড়ি ভোলায় যাবেন।

নেওয়াজ আহম্মেদ নামের আরেক বিচারপ্রার্থী জানান, রাজনৈতিক একটি মামলার হাজিরা ছিল আজ। সকাল থেকে বৃষ্টি থাকায় সাভার থেকে আসতে খুব সমস্যা হয়েছে। তবে আদালতে লোকজন এমন কম আগে দেখিনি। ঈদের আগে সিএমএম আদালতে হাজিরা দিতে অনেক সময় অপেক্ষা করতো হতো। আজ দ্রুত হাজিরা দিয়ে চলে যেতে পারছি বিধায় ভালো লাগছে।

কামরুজ্জামান সুমন নামের এক আইনজীবী বলেন, ঈদের পরে আজই প্রথম কর্মদিবস। তবে আদালত এখনো পুরোদমে ব্যস্ত হয়নি। অনেক বিচারক ছুটি নিয়ে বাড়িতে আছেন। আগামী রোববার থেকে ঢাকায় ব্যস্ততার সঙ্গে আদালতের ব্যস্ততা বাড়বে।

জহুরুল হক নামের এক আইনজীবীর সহকারী (মুহুরি) বলেন, সিনিয়র আইনজীবী বাড়িতে থাকায় আজ সকালে নিজেই এসেছি। কয়েকজন আসামির হাজিরা ছিল। সে সব হাজিরা দিয়ে দুপুরেই বাসায় চলে যাচ্ছি। আজ আবহাওয়া এমনিতেই ভালো না, গিয়ে বাসায় ঘুম দিব।

আবুল কালাম নামের এক পেশকার এনটিভি অনলাইনকে বলেন, তাঁর গ্রামের বাড়ি কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলায়। আজ সকালে আদালত খোলা থাকায় এসেছেন। আবার চলে যাবেন। বিচারক ও আদালতের বাকি কর্মীরা এখনো আসেননি। আগামী রোববার থেকে আদালতের কার্যক্রম স্বাভাবিক হবে বলে জানান তিনি।

Advertisement