Beta

গ্যাস বিক্রিতে রাজি না হওয়ায় ২০০১ সালে ক্ষমতায় আসতে দেয়নি : প্রধানমন্ত্রী

০৯ অক্টোবর ২০১৯, ২১:০৯

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ বুধবার বিকেলে গণভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দেন। ছবি : বাসস

ভারতে এলপিজি রপ্তানির বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘গ্যাস বিক্রি করতে রাজি না হওয়ায় ২০০১ সালে আমাকে ক্ষমতায় আসতে দেওয়া হয়নি। মুচলেকা দিয়ে আমি ক্ষমতায় আসতে চাইনি।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে ভারতের কাছে দেশ বিক্রির অভিযোগ করে বিএনপি। অথচ তারাই মুচলেকা দিয়ে ২০০১ সালে ক্ষমতায় এসেছিল। আমার হাত দিয়ে দেশের বিন্দুমাত্র ক্ষতি হবে, এটা আমি কল্পনাও করতে পারি না।’

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ভারত সফর শেষে আজ বুধবার বিকেলে সরকারি বাসভবন গণভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন। সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী বুয়েটের মেধাবী ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ড, ভারতের সঙ্গে সম্পাদিত দ্বিপাক্ষিক চুক্তি, ছাত্র রাজনীতি বন্ধসহ বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন।

ভারতের সঙ্গে এলপিজি রপ্তানি চুক্তির বিষয়ে জানতে চাইলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘গ্যাস বিক্রির মুচলেকা দিয়েই বিএনপি ২০০১ সালে ক্ষমতায় এসেছিল। আমাকে আমেরিকার সাবেক প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটনও এ প্রস্তাব দিয়েছিলন। কিন্তু আমি রাজি হইনি। এখন যারা গ্যাস নিয়ে প্রশ্ন তুলেন তারা গ্যাস বিক্রির মুচলেকা দিয়ে ক্ষমতায় এসেছিল। যারা প্রশ্ন তুলে তারা অতীতকে ভুলে যায়।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশের কোনো স্বার্থ শেখ হাসিনা বিক্রি করবে এটা কখনও হতে পারে না। আমরা আগে নিজের দেশের স্বার্থ দেখি। এটি নিয়ে প্রশ্ন তোলার কিছু নেই।’

এলপিজি রপ্তানির বিষয়ে শেখ হাসিনা আরো বলেন, ‘এটি বাংলাদেশে উৎপাদন হয় না। আমরা এলপিজি আমদানি করে নিজস্ব চাহিদা মেটানোর পর বাইপ্রোডাক্ট হিসেবে যে কাঁচামাল থাকবে সেটা ভারতে রপ্তানি করব। যখন আমরা গ্যাস উৎপাদন করি তখন কিছু এলপিজি তৈরি হয়, সেখান থেকে কিছু রপ্তানি করব। এতে দেশ লাভবান হবে।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘ত্রিপুরা যদি কিছু চায় সেটি আমাদের দিতে হবে। কারণ ১৯৭১ সালের কথা মনে রাখবেন। আমাদের মুক্তিযুদ্ধের সময় ত্রিপুরা আমাদের আশ্রয় দিয়েছিল। আমাদের মুক্তিযোদ্ধাদের একটা ঘাটি ছিল। তাদের সাথে আমাদের একটা ভালো সম্পর্ক ছিল, আছে, থাকবে।’

Advertisement