Beta

কিশোরগঞ্জে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ

আমার জীবন আছর ও মাগরিবের মাঝামাঝি

০৯ অক্টোবর ২০১৯, ২২:৪৮

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বুধবার বিকেলে কিশোরগঞ্জের তাড়াইল উপজেলার মুক্তিযোদ্ধা সরকারি কলেজ মাঠে আয়োজিত সুধী সমাবেশে বক্তব্য দেন। ছবি : এনটিভি

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বলেছেন, আমার জীবন এখন আছর ও মাগরিবের মাঝামাঝিতে অবস্থান করছে। আমার দীর্ঘদিনের রাজনৈতিক সহকর্মীদের বেশির ভাগই এখন পরপারে পাড়ি জমিয়েছেন। আমি ১৯৭০ সালের সংসদ নির্বাচনে আমি তাড়াইল, ইটনা, অষ্টগ্রাম ও নিকলী এই চার থানা নিয়ে গঠিত আসন থেকে প্রথমবারের মতো নির্বাচিত হয়েছিলাম। তাড়াইল থেকে সর্বোচ্চ ভোট পেয়েছিলাম। কিন্তু এই এলাকার আমার সেই সময়কার রাজনৈতিক সহযোদ্ধাদের প্রায় সবাই গত হয়েছেন। হয়তো আমার জীবনেও আছর ও মাগরিবের মাঝামাঝি সময়ের মতো সামান্য সময় বাকি আছে।

বুধবার বিকেলে কিশোরগঞ্জের তাড়াইল উপজেলার মুক্তিযোদ্ধা সরকারি কলেজ মাঠে আয়োজিত সুধী সমাবেশে এভাবেই প্রথম নির্বাচনের স্মৃতিচারণ করেন রাষ্ট্রপতি।

রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ বলেন, বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও প্রবৃত্তির ক্রমান্বয়ে উত্তরণ হচ্ছে। দুর্নীতির সঙ্গে পাল্লা দিয়ে কুলিয়ে উঠতে পারছে না। তাই যেমন করেই হোক দুর্নীতি থামাতে হবে। এটা প্রশংসনীয় যে, সরকার নিজের ঘর থেকেই দুর্নীতি বিরোধী অভিযান শুরু করেছে। আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ, যুবলীগ যেই অপরাধ করুক তাকে ধরতে হবে এবং সাজা দিতে হবে। দুর্নীতি করে কেউ যেন পার না পায়। দুর্নীতি বিরোধী এই অভিযান অব্যাহত রাখতে হবে।

রাষ্ট্রপতি বলেন, দেশে ব্যাপক উন্নয়ন কাজ হচ্ছে এবং এর ধারাবাহিকতায় এক সময়ের অবহেলিত অনুন্নত হাওর এলাকাতেও অনেক উন্নয়ন হয়েছে। দেশের উন্নয়নে দল-মত নির্বিশেষে সবাইকে এক হয়ে কাজ করতে হবে।

আবদুল হামিদ শিক্ষার্থীদের মনোযোগ দিয়ে লেখাপড়া করার পরামর্শ দিয়ে বলেন, তোমাদের প্রতিযোগিতামূলক বিশ্বের জন্য নিজেকে উপযুক্ত করে গড়ে তুলতে হবে। মানুষের মতো মানুষ হতে হবে।

রাষ্ট্রপতি তাঁর বক্তব্যে তাড়াইল উপজেলার মুক্তিযোদ্ধা সরকারি কলেজে নতুন একাডেমিক ভবন নির্মাণ, হাজী গোলাম হোসেন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়কে সরকারিকরণ ও স্টেডিয়াম নির্মাণসহ স্থানীয় কিছু দাবি-দাওয়া বাস্তবায়নে সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

সমাবেশ শুরুর পর পরই বৃষ্টির আশঙ্কায় স্থানীয় সংসদ সদস্য মুজিবুল হক চুন্নু ও তাড়াইল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জহিরুল ইসলাম শাহিনের বক্তব্যের পর রাষ্ট্রপতি বক্তব্য রাখেন। অন্যরা বক্তব্য রাখার সুযোগ পাননি। সাড়ে ৩টায় রাষ্ট্রপতির ভাষণ শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে মুষলধারে বৃষ্টি শুরু হওয়ায় তিনি ঘণ্টা খানেক কলেজের অধ্যক্ষের কক্ষে অবস্থান করেন। হেলিকপ্টারযোগে কিশোরগঞ্জ জেলা সদরে পৌঁছার কর্মসূচি নির্ধারিত থাকলেও বৃষ্টির কারণে সাড়ে ৪টার দিকে সড়ক পথে তিনি রওনা দেন।

এর আগে দুপুর সোয়া ২টায় রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ কিশোরগঞ্জে সাত দিনের সফরের অংশ হিসেবে ঢাকা থেকে হেলিকপ্টারযোগে তাড়াইল পৌঁছে শিমুলহাটি হেলিপ্যাডে অবতরণ করেন। গার্ড অব অনার গ্রহণের পর রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ উপজেলা পরিষদের সামনে মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক ভাস্কর্য স্বাধীনতা ৭১ উদ্বোধন করেন।

সাত দিনের সফরে তাড়াইল ছাড়াও কিশোরগঞ্জ জেলা সদর, ইটনা, মিঠামইন ও অষ্টগ্রাম উপজেলায় বিভিন্ন কর্মসূচিতে অংশ নিবেন রাষ্ট্রপতি। ১৫ অক্টোবর তিনি ঢাকার উদ্দেশে কিশোরগঞ্জ ত্যাগ করবেন।

Advertisement