Beta

চাঁদাবাজির দ্বন্দ্বে সাতক্ষীরা-খুলনা বাস চলাচল বন্ধ

১১ মে ২০১৫, ২১:৫২

সুভাষ চৌধুরী, সাতক্ষীরা

দুই জেলার মালিক সমিতির চাঁদাবাজির দ্বন্দ্বে বন্ধ হয়ে গেল সাতক্ষীরা-খুলনা মহাসড়কে সরাসরি যাত্রীবাহী বাস চলাচল। আজ সোমবার সাতক্ষীরা জেলা মিনিবাস-বাস মালিক সমিতি খুলনায় বাস না পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিলে খুলনা-সাতক্ষীরা পথে বাস চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। 

সাতক্ষীরা জেলা বাসমালিক সমিতির নেতা আশরাফ আলী জানান, খুলনায় সাতক্ষীরার কোনো যাত্রীবাহী বাস গেলে খুলনা জেলা মালিক সমিতিকে বাসপ্রতি এক হাজার ১৯৫ টাকা হারে চাঁদা দিতে হয়। অপরদিকে সাতক্ষীরায় খুলনার যাত্রীবাহী বাস এলে সাতক্ষীরা মালিক সমিতিকে বাসপ্রতি ৩৯০ টাকা হারে চাঁদা দেওয়া হয়। দীর্ঘদিন ধরে চলে আসা এই বৈষম্য দূর করতে খুলনা মালিক সমিতিকে বারবার তাগাদা দেওয়া হলেও তারা বৈষম্য নিরসনে কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। সর্বশেষ সাতক্ষীরা মালিক সমিতি খুলনা মালিক সমিতিকে বাসপ্রতি ৩৯০ টাকা হারে চাঁদা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিলে খুলনা মালিক সমিতি তা প্রত্যাখ্যান করে। এরই প্রতিবাদে সাতক্ষীরা মালিক সমিতি বৈষম্য নিরসন না হওয়া পর্যন্ত খুলনায় বাস না পাঠানোর সিদ্ধান্ত  নিয়েছে। 

সাতক্ষীরা জেলা মিনিবাস-বাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান গোলাম মোর্শেদ জানান, আর্থিক বৈষম্য নিরসন না হওয়া পর্যন্ত অনির্দিষ্টকালের জন্য সাতক্ষীরা জেলার বাস সাতক্ষীরা-খুলনার জিরো পয়েন্ট সুভাসিনী বাজার পর্যন্ত চলাচল করবে।

এদিকে হঠাৎ করেই খুলনা-সাতক্ষীরা পথে সরাসরি বাস চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় সাধারণ যাত্রীরা বিপাকে পড়েছেন। এ জন্য তাঁদের আর্থিক ক্ষতির পাশাপাশি অতিরিক্ত সময়ও ব্যয় হচ্ছে। 

খুলনা অভিমুখী যাত্রীরা জানান, খুলনায় যাওয়ার পথে কোনো না কোনো দুর্ভোগ লেগেই থাকে। সাতক্ষীরা থেকে বাসে ওঠার পর সুভাসিনী বাজারে নামিয়ে দেওয়া হয়েছে। এখান থেকে ভ্যানে করে কিছুদূর যাওয়ার পর আবার খুলনার বাসে উঠতে হচ্ছে। এতে খরচ বেশি হচ্ছে। সময়ও বেশি লাগছে।

সাধারণ যাত্রীরা দুর্ভোগ কমানোর লক্ষ্যে কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

Advertisement