Beta

চবিতে ১৩ গাড়ি ভাঙচুর করল ছাত্রলীগ

২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ২১:১৪ | আপডেট: ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ২১:১৯

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান গেইট বন্ধ করে দিয়ে আজ মঙ্গলবার ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের অবস্থান। পরে পুলিশ তাদের ধাওয়া দিয়ে সরিয়ে দেয়। ছবি : এনটিভি

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) আজ মঙ্গলবার ছাত্রলীগের ধর্মঘট চলাকালে নেতাকর্মীদের ওপর কাঁদানে গ্যাসের শেল নিক্ষেপ করেছে পুলিশ। পুলিশের তাড়া খেয়ে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা প্রক্টর অধ্যাপক আলী আজগরের প্রাইভেটকার ও সময় টিভির গাড়িসহ ১৩টি যানবাহন ভাঙচুর করেন। হামলা চালান প্রক্টরের কার্যালয়ে।

পুলিশ জানায়, গতকাল সোমবার ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের পর রাতে শাহ আমানত ও শাহজালাল হলে অভিযান চালায় পুলিশ। অভিযানের সময় দুটি অস্ত্র ও ৮-১০টি রাম দা উদ্ধার করা হয়। এর প্রতিবাদে আজ মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র ধর্মঘট ডাকে ছাত্রলীগ। সেই সঙ্গে প্রক্টর অধ্যাপক আলী আজগরের পদত্যাগের দাবিতে আন্দোলন শুরু করে। সকাল থেকে তারা বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিল করে। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান গেইট বন্ধ করে দেয়। এ সময় তারা স্লোগান দেয়, ‘ভেঙে দাও, গুঁড়িয়ে দাও প্রক্টরের আস্তানা’। এর আগে শাটল ট্রেনের হোস পাইপ কেটে অবরোধ করে।

একপর্যায়ে পুলিশ ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের ওপর কাঁদানে গ্যাসের শেল নিক্ষেপ করে ছত্রভঙ্গ করে দেয়। পুলিশের তাড়া খেয়ে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা প্রক্টর অধ্যাপক আলী আজগরের প্রাইভেটকার ও সময় টিভির গাড়িসহ ১৩টি যানবাহন ভাঙচুর করে। হামলা চালায় প্রক্টরের কার্যালয়ে।

চবি ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আলমগীর টিপু জানান, আবাসিক হলে ছাত্রদের ওপর পুলিশ নির্যাতন করেছে। প্রক্টরের নির্দেশে পুলিশি অভিযান চালানো হয়েছে। এ কারণে তারা অবরোধ কর্মসূচি পাল করে।

সময় টেলিভিশনের প্রতিবেদক পার্থ প্রতীম বিশ্বাস জানান, তাঁরা চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক আলী আজগরের কক্ষে কথা বলার সময় ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আলমগীর টিপুর কর্মীরা ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে হামলা চালায়। এ সময় প্রক্টর ও সিনিয়র কয়েকজন শিক্ষক তাঁর কার্যালয়ে কাজ করছিলেন। হামলায় সময় টিভির ড্রাইভার আবদুল হাকিম আহত হয়েছেন।

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement