Beta

‘র‍্যাগিং’ এ জড়িত থাকায় ৬ শিক্ষার্থী বহিষ্কার

০৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ২০:৫১

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়। ছবি : এনটিভি

গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও  প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে  দুই শিক্ষার্থীকে অপদস্থ করার (র‌্যাগিং) অভিযোগে ছয় শিক্ষার্থীকে আজীবন বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

আজ সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টোরিয়াল বডির জরুরি বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

বহিষ্কৃত শিক্ষার্থীরা হলেন ইলেক্ট্রনিক্স অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের (ইটিই) দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ঢাকার কেরাণীগঞ্জের    মো. শিপন আহম্মেদ, নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারের মো. শাহিন মিয়া, টাঙ্গাইলের নাগরপুরের নাদিম ইসলাম, শেরপুরের নকলার হৃদয় কুমার ধর, ভোলা সদরের তুর্য্য হাওলাদার ও ফরিদপুর জেলার মধুখালীর আশিকুজ্জামান লিমন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. মাহবুবুল হক জানান, আজ সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টোরিয়াল বডি ইটিই বিভাগের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মো. শাহজাহান ও কৃষি বিভাগের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান আনিসুজ্জামানকে নিয়ে জরুরি বৈঠকে বসেন। বৈঠকে সাক্ষ্য প্রমাণ ও তথ্যের ভিত্তিতে ইটিই বিভাগের ছয় শিক্ষার্থী দোষী প্রমাণিত হন। প্রক্টোরিয়াল বডি ওই শিক্ষার্থীদেরকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আজীবনের জন্য বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেয়।

প্রক্টর আশিকুজ্জামান ভূঁইয়া বলেন, ‘গত ২ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যা সাতটা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত ইলেক্ট্রনিক্স অ্যান্ড টেলিকমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ছয় শিক্ষার্থী কৃষি বিভাগের প্রথম বর্ষের দুই শিক্ষার্থী মো. রাজেশ হোসেন শিথিল ও মাহমুদ হাসানকে শারীরিক ও মানসিকভাবে অত্যাচার করে র‌্যাগিংয়ের ঘটনা ঘটায়। পরে এর ভিডিও সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়। বিষয়টি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের নজরে আসে।’

আশিকুজ্জামান আরো জানান, সোমবার বৈঠকে ঘটনার সত্যতা পাওয়ায় এ ঘটনায় জড়িত ছয় শিক্ষার্থীকে আজীবন বহিষ্কার করা হয়। এ ব্যাপারে অভিযুক্ত ছয় শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে আইসিটি আইনে মামলা করার সিদ্ধান্ত হয়েছে। এখন মামলার প্রস্তুতি চলছে।

Advertisement