২৩ ঘণ্টা অবস্থানের পর কর্মসূচি স্থগিত পদবঞ্চিতদের

২০ মে ২০১৯, ০৮:১১

বিশ্ববিদ্যালয় সংবাদদাতা
গতকাল রোববার রাত ৯টার দিকে ছাত্রলীগের পদবঞ্চিতদের আট সদস্যবিশিষ্ট একটি প্রতিনিধিদল ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগের সভাপতির কার্যালয়ে দলীয় নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেন। ছবি : এনটিভি

কমিটি পুনর্গঠন, হামলার জন্য দায়ীদের বিচার দাবি করে টানা ২৩ ঘণ্টা অবস্থানের পর আওয়ামী লীগ নেতৃত্বের কাছ থেকে ‘আশ্বাস’ পেয়ে কর্মসূচি স্থগিত ঘোষণা করেছেন ছাত্রলীগের পদবঞ্চিত নেতারা। 

গতকাল রোববার রাত আড়াইটার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সন্ত্রাসবিরোধী রাজু ভাস্কর্যের সামনে কর্মসূচি স্থগিতের ঘোষণা দেন ছাত্রলীগের পদবঞ্চিরা।

গত শনিবার মধ্যরাতে বিতর্কিতদের বিষয়ে ছাত্রলীগের সভাপতি রেজয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীর সঙ্গে ঢাবির টিএসসিতে কথা বলতে গেলে পদবঞ্চিতদের ওপর হামলা করা হয়। পদবঞ্চিতরা দাবি করেন, গোলাম রাব্বানীর নেতৃত্বেই তাদের ওপর হামলা করা হয়। এ সময় নারী নেত্রীসহ ১৫ জনের মতো আহত হন।

এ ঘটনার পর গত শনিবার রাত ৩টা থেকে রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে অনশন কর্মসূচিতে বসেছিলেন পদবঞ্চিতরা। তাঁরা সবাই নিজেদের সংগঠনের সক্রিয় সদস্য বলে দাবি করেছেন।

সারাদিন রাজু ভাস্কর্যে অবস্থানের পর গতকাল রোববার রাত ৯টার দিকে পদবঞ্চিতদের আট সদস্যবিশিষ্ট একটি প্রতিনিধিদল ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগের সভাপতির কার্যালয়ে যান। প্রতিনিধিদলে ছিলেন ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় কমিটির প্রচার সম্পাদক সাইফ বাবু ও সাবেক দপ্তর সম্পাদক শাহজাদা, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কবি জসিম উদ্দীন হল শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শাহেদ খান। নতুন কমিটির সংস্কৃতিবিষয়ক উপসম্পাদক তিলোত্তমা শিকদার, ফরিদা পারভীন ও শ্রাবণী শায়লা এবং শামসুন নাহার হল শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জিয়াসমিন শান্তা।

অপরদিকে সেখানে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক ও আবদুর রহমান এবং সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক ও আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম ছিলেন।

সেখানে প্রায় চার ঘণ্টা বৈঠক শেষে ছাত্রলীগের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক এবং পদবঞ্চিতদের প্রতিনিধিরা রাত পৌনে ১টার দিকে ফের রাজু ভাস্কর্যে ফিরে আসেন। তাঁদের সঙ্গে জ্যেষ্ঠ নেতাদের পক্ষ থেকে রাজু ভাস্কর্যে আসেন আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি মোল্লা মো. আবু কাওছার।

এ সময় ছাত্রলীগ সভাপতি রেজয়ানুল হক চৌধুরী শোভন পদবঞ্চিতদের উদ্দেশে পদের লোভ না করে দল ও দেশের জন্য কাজ করার আহ্বান জানান। তিনি সবাইকে কাঁদা ছোড়াছুড়ি না করারও অনুরোধ করেন।

ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী বলেন, 'আপা (প্রধানমন্ত্রী) প্রথমত আমাদের সবাইকে এক ছাতার নিচে দেখতে চান। তিনি দ্বিধাবিভক্ত কারও সঙ্গে কথা বলবেন না। আমরা ঐক্যবদ্ধ হলে তিনি আমাদের সব কথা শুনবেন।'

এসব ব্যাপারে জানতে চাইলে ছাত্রলীগের পদবঞ্চিত ও সংগঠনের বিগত কমিটির প্রচার সম্পাদক সাঈফ বাবু বলেন, 'আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ নেতাদের সঙ্গে কথা বলে আমাদের আশ্বাস্ত করা হয়েছে। তাই আমরা আন্দোলন স্থগিত করেছি।’ 

পদবঞ্চিতরা দাবি করেছেন, আওয়ামী লীগ নেতারা খুব শিগগিরই দলের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে পদবঞ্চিতদের সাক্ষাৎ করিয়ে দেবেন। পদবঞ্চিতদের ওপর মধুর ক্যান্টিনে গত সোমবারের হামলার ঘটনা এবং টিএসসিতে গত শনিবারের হামলার ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচার করা হবে এবং দোষীদের বিচারের আওতায় আনা হবে। তদন্তের মাধ্যমে বিতর্কিতদের পদগুলোকে শূণ্য ঘোষণা করে যোগ্যতার ভিত্তিতে সেসব পদে পদবঞ্চিতদের দিয়ে পূরণ করা হবে।