Beta

‘বিস্মিত হই যখন আমাকে দেখার জন্য ভক্তরা আসে’

১৮ এপ্রিল ২০১৮, ১৫:২৫

জনপ্রিয় মডেল ও অভিনেত্রী মোনালিসা। ছবি : সংগৃহীত

মোজেজা আশরাফ মোনালিসা। দেশের জনপ্রিয় মডেল, নৃত্যশিল্পী ও অভিনেত্রী। দীর্ঘদিন ধরে নিউইয়র্কে বসবাস করছেন তিনি। মাঝেমধ্যে দেশে আসেন ঘুরতে। সম্প্রতি দেশে এসেছেন তিনি। এবার  ঢাকায় আসার কারণ ও অন্যান্য  বিষয়  নিয়ে এনটিভি অনলাইনের সঙ্গে খোলামেলা কথা বলেছেন মোনালিসা। 

এনটিভি অনলাইন : এবার ঢাকায় কতদিন থাকবেন? 

মোজেজা আশরাফ মোনালিসা :  তিন মাস  থাকার পরিকল্পনা আছে। বেড়াতে এসেছি। পরিবারকে সময় দেব। কিছু কাজও করব। যারা কাছের মানুষ তাদের কিছু কাজ করার ইচ্ছে আছে। যদিও আমি এটা এখন বলছি কিন্তু এটা করা সম্ভব নাও হতে পারে। কারণ অনেক কাজ করার প্রস্তাব পেয়েছি। এপ্রিলের শেষের দিকে অথবা মে মাস থেকে কাজ করার কথাবার্তা চলছে। 

আর এর ফাঁকে আমি সিঙ্গাপুরে বেড়াতে যাব।সিঙ্গাপুরে আমার বোন আছে। ওর সঙ্গে দেখা করব। কারণ আমি জানি ব্যস্ত হয়ে পড়লে বোনের সঙ্গে আর দেখা হবে না।
এনটিভি অনলাইন : নিউইয়র্কে  আপনার সময়  কীভাবে কাটে? 

মোজেজা আশরাফ মোনালিসা :  দেশ থাকতে আমি যেমন ব্যস্ত ছিলাম। নিউনিয়র্কেও অনেক ব্যস্ত থাকি। জব করছি সেখানে তাই ব্যস্ত থাকতে হয়। কাজের বাইরে নিজেকে সময় দেই। এ ছাড়া ফ্রেন্ডদের সাথে ঘুরতে বের হই। নিউইয়র্কে রিচি আপু (অভিনেত্রী), রোমানা আপুর (অভিনেত্রী) সঙ্গে দেখা হয়। আমরা আড্ডা দেই। ঘুরতে যাই বিভিন্ন জায়গায়। তবে দেশকে অনেক মিস করি।

এনটিভি অনলাইন : নিউইয়র্কে ভক্তদের সঙ্গে কী দেখা হয়?

মোজেজা আশরাফ মোনালিসা :  আমি খুব বিস্মিত হই যখন নিউইয়র্কের বিভিন্ন জায়গা থেকে  শুধু আমাকে দেখার জন্য ভক্তরা আসে। এটা আমার জন্য আশীর্বাদ। আমি অনেক সম্মানিতবোধ করি।

এনটিভি অনলাইন : নিউইয়র্কে  আপনার পেশাগত জীবন সম্পর্কে জানতে চাই….

মোজেজা আশরাফ মোনালিসা :   ফরাসি ব্র্যান্ড সেফোরার  মতো ভালো একটা প্রতিষ্ঠানে বিউটি অ্যাডভাইজার হিসেবে আমি কাজ করছি। কাজের অভিজ্ঞতা খুব ভালো আমার। আমি ম্যাকের সিনিয়র মেকাপ আর্টিস্ট ছিলাম। নিউইয়র্কে মেকাপ আর্টিস্ট হিসেবে ক্যারিয়ার গড়ে তোলা খুব সহজ নয়। সেখানে একজন মেকাপ আর্টিস্টের সম্মান অনেক বেশি।  এ ছাড়া টাইম টেলিভিশনে  অনুষ্ঠান  প্রধান ও পরিচালক হিসেবে আমি কাজ করেছি।

এনটিভি অনলাইন : আপনার কাছে সৌন্দর্যের সংজ্ঞা কী? 

মোজেজা আশরাফ মোনালিসা :   সুন্দর মন-মানসিকতা। একটা মানুষের মন-মানসিকতা যদি বাজে হয় সে মানুষটা কোনো দিক থেকে সুন্দর হতে পারে না। মানুষের বাহ্যিক বিষয় আমাকে টানে না। 

এনটিভি অনলাইন :  দেশে  ঘুরতে এলেও আপনি বেশকিছু নাটকে অভিনয় করেছেন। দীর্ঘদিন পর ক্যামেরার সামনে দাঁড়াতে আপনার অসুবিধা হয় কি? 

মোজেজা আশরাফ মোনালিসা :  অভিনয় রক্তের মধ্যে মিশে আছে। তাই কখনো সমস্যা হয়নি। আমি যেহেতু আর্টিস্ট তাই মাঝেমধ্যে মনে হয় বুড়ো হলেও আমি অভিনয় করতে পারব (হাসি)। কিছু টেকনিক্যাল বিষয়ে পরিবর্তন দেখতে পাই। তবে সেটা ম্যানেজ করে নেওয়া যায়। 

এনটিভি অনলাইন : এখন  মিডিয়ায় কাজের পরিবেশ কেমন? আপনার কী মনে হয়? 

মোজেজা আশরাফ মোনালিসা :  আমার মনে হয় এখন সবার সময় খুব সীমিত। আগে চিত্রনাট্য বাসায় পাঠানো হতো এখন চিত্রনাট্যের সারমর্ম বলা হয় শুধু। অভিনয় শুরু করার আগে প্রস্ততি নেওয়ার জন্য অনেক সময় ছিল। এখন সেটা দেখতে পাই না। এখন অস্থিরতাও বেড়েছে। এর মধ্যেই সবাই  কাজ করছে। 

আর  ভক্তদের  জন্যই এখনো আমি কাজ করছি। ফেসবুকে প্রায় আমাকে  ভক্তরা  বার্তা লেখেন এভাবে, ‘আপনি কবে দেশে আসবেন? আপনাকে অনেক মিস করি।’ 

সত্যি বলতে ভক্তদেরও অনেক মিস করি আমি। তাঁদের আবদার ও অনুরোধের জন্য আবারও ক্যামেরার সামনে দাঁড়াই বার বার।

এনটিভি অনলাইন : এবার  দেশে ফিরে প্রথম এনটিভির বিনোদনমূলক অনুষ্ঠান  ‘রঙিন পাতা’য় অংশগ্রহণ করেছেন। কেমন লাগলো অনুষ্ঠানটি করে?

মোজেজা আশরাফ মোনালিসা :  খুব ভালো লেগেছে। অনেক ব্যতিক্রমধর্মী একটা অনুষ্ঠান। নতুন অভিজ্ঞতা হয়েছে।

এনটিভি অনলাইন : একজন মোনালিসা হয়ে উঠার পেছনে কার অবদান সব থেকে বেশি? 

মোজেজা আশরাফ মোনালিসা :  আমার মায়ের। মায়ের সমর্থন ছাড়া আমি এত দূর আসতে পারতাম না। মা আমার সাথে ছায়ার মতো ছিলেন।  মায়ের পরামর্শ আমি সবসময় মেনেছি। সততা,কঠোর পরিশ্রম ও প্রত্যয় ছাড়া কাজে সফলতা পাওয়া অসম্ভব। আমাকে নীতিবোধের শিক্ষা আমার মা দিয়েছেন।

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement