Beta

স্যারকে নিয়ে কেন বাজে কথা বলব : পপি

০৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৫:০৪

সিনেমার শুটিংয়ের জন্য এফডিসিতে মেকআপ করছিলেন পপি। সে সময় সেটে হাজির হন ড. মাহফুজুর রহমান। মেকআপম্যান ঠিকমতো মেকআপ করতে না পারায় তিনি পপির মেকআপ ঠিক করে দেন। ছবি : সংগৃহীত

ঢালিউডের জনপ্রিয় নায়িকা পপির সম্পর্কে সম্প্রতি কিছু মন্তব্য করেছেন বেসরকারি স্যাটেলাইট টেলিভিশন চ্যানেল এটিএন বাংলা ও এটিএন নিউজের চেয়ারম্যান ড. মাহফুজুর রহমান। পপি তাঁকে মেকআপম্যান হিসেবে পরিচয় করিয়ে দিয়েছিলেন—এমন অভিযোগ তুলে তিনি বলেন, ‘পপিকে আমি তখনই মাফ করব যখন সে পা ধরে মাফ চাইবে এবং সেটা আমি টিভিতে দেখাব।’

রাজধানীর কারওয়ান বাজারে এটিএন বাংলার কার্যালয়ে গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় ‘সময় ও অসময়ের গল্প’ সিরিজ নাটকের সংবাদ সম্মেলনে পপি সম্পর্কে ওই সব কথা বলেন মাহফুজুর রহমান। সেই ভিডিও এখন অন্তর্জালে ভাইরাল। এসব বিষয় নিয়ে এনটিভি অনলাইনের সঙ্গে কথা বলেন নায়িকা পপি।

প্রশ্ন : যেদিনের ঘটনা নিয়ে ড. মাহফুজুর রহমান ক্ষিপ্ত হয়েছেন, সেদিন আসলে কী ঘটেছিল?

পপি : আমি এফডিসিতে সাদেক সিদ্দিকী পরিচালিত ‘সাহসী যোদ্ধা’ ছবির শুটিংয়ের প্রস্তুতি নিচ্ছিলাম। মেকআপম্যান মেকআপ করছিলেন। আমি সংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলছিলাম। এমন সময় মাহফুজুর রহমান স্যার মেকআপরুমে আসেন। আমার দিকে তাকিয়ে বললেন, তোমার মেকআপ তো হয়নি। এই বলে তিনি মেকআপের ব্রাশটা হাতে তুলে নেন এবং আমার মুখে মেকআপ করতে থাকেন। তখন মেকআপরুমে হাস্যোজ্জ্বল একটা পরিবেশ ছিল। ইউনিটের অনেকেই ছবি তুলেছেন, সাংবাদিকরাও ছবি তুলেছেন। মেকআপ শেষ করে আমি শট দিতে চলে যাই। এরপর ওই ছবি নিয়ে অনেক গণমাধ্যমে নিউজ করতে দেখেছি।

প্রশ্ন : মাহফুজুর রহমান দাবি করছেন, ছবিটা আপনি দিয়েছেন। আপনি নাকি বলেছেন, এখন থেকে আপনার নতুন মেকআপম্যান মাহফুজুর রহমান।

পপি : ছি! স্যারকে নিয়ে আমি কেন বাজে কথা বলব? আর এই ছবিটা তো আমি তুলিনি। কারণ, ছবি তোলার সময় আমি তো মেকআপ নিচ্ছিলাম। আমি কোথায় লিখব, এখন থেকে আপনার নতুন মেকআপম্যান মাহফুজুর রহমান? স্যার আমাকে মেকআপ করছেন, এ বিষয়ে কোনো গণমাধ্যেমের সঙ্গেও আমার কোনো কথা হয়নি। এমনকি অন্য কোথাও এ বিষয়ে কারো সঙ্গে আমার কথাও হয়নি।

প্রশ্ন : আপনি কি মাহফুজুর রহমানের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন?

পপি : আসলে আমি কোনো অন্যায় করিনি, যে কারণে ক্ষমার চাওয়ার কোনো কারণ দেখি না। তিনি সম্মানিত মানুষ, বয়সেও আমার চেয়ে অনেক বড়। ছোট হিসেবে আমি যদি ভুল করে থাকি, তাহলে উনার কাছে ক্ষমা চাইতে আমার কোনো সমস্যা নেই। যেহেতু আমি কোনো ভুল করিনি, তাই ক্ষমা চাওয়ার প্রশ্নই ওঠে না।

প্রশ্ন : তবে কেন মাহফুজুর রহমান আপনাকে নিয়ে এসব কথা বললেন?

পপি : আমি তা বুঝতে পারছি না। তবে আমার মনে হয়েছে, উনার আশপাশে অনেক মানুষ আছে, যারা সারাক্ষণই নানা বিষয় নিয়ে উনার সঙ্গে কথা বলে সম্পর্ক ভালো করতে চাই। তাদের মধ্যে কেউ হয়তো স্যারকে ভুল বুঝিয়েছে। অথবা তিনি নিজে বিষয়টি নিয়ে ভুল করছেন।

প্রশ্ন : মাহফুজুর রহমানের বক্তব্যের জবাবে আপনি কি কিছু বলতে চান?

পপি : আমার আসলে তেমন কিছু বলার নেই। আমি চাইব, মাহফুজুর রহমান স্যারের শুভবুদ্ধির উদয় হোক। আমি একজন মেয়েমানুষ, উনার প্রতি অনুরোধ থাকবে, তিনি মেয়েদের সম্মান দিয়ে কথা বলবেন। আমাদের দেশের প্রধানমন্ত্রীও একজন নারী। শিল্পী হিসেবে আমি আমার সম্মান চাই। আমি চাই, স্যার শিল্পীদের সম্মান দিয়ে কথা বলবেন। সর্বশেষ উনাকে বলব, আপনার কোথাও ভুল হচ্ছে, আপনি খুঁজে দেখুন আপনার ভুল আপনি বুঝতে পারবেন।

Advertisement