Beta

‘সিনেবাজ ফিল্মস’-এর যাত্রা শুরু

২৮ এপ্রিল ২০১৯, ১৪:৪৮

গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর একটি পাঁচতারকা হোটেলে উদ্বোধন হয় ‘সিনেবাজ ফিল্মস’। ছবি : সংগৃহীত

বাংলা চলচ্চিত্র বর্তমানে একটি সংকট মূহূর্তে দাঁড়িয়ে আছে। এরই মধ্যে দেশের অনেক নামী চলচ্চিত্র প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে গেছে। এমতাবস্থায় বাংলা সিনেমাকে পৃষ্ঠপোষকতা করে দেশে ও দেশের বাইরে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার মতো প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা এখন খুবই কম। তাই কোয়ালিটি মানের ছবি দর্শকদের উপহার দিতে এবং প্রতিবছর গুণগত মানের কিছু প্রোডাকশন দর্শকদের কাছে পৌঁছাতে ‘সিনেবাজ ফিল্মস’ তার যাত্রা শুরু করতে যাচ্ছে।

গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর একটি পাঁচতারকা হোটেলে হয়ে গেল এর উদ্বোধন অনুষ্ঠান। উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে চিত্রনায়ক ও সংসদ সদস্য আকবর হোসেন পাঠান ফারুক এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চলচ্চিত্র নির্মাতা মোরশেদুল ইসলাম ও চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই দর্শকপ্রিয় নির্মাতা ও ‘সিনেবাজ ফিল্মস’-এর ক্রিয়েটিভ ডিরেক্টর ইফতেখার চৌধুরী নতুন এই প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের সকলের সঙ্গে মঞ্চে পরিচয় করিয়ে দেন। এ সময় এক এক করে মঞ্চে হাজির হন এ প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) শাম ইসলাম, চেয়ারপারসন জ্যোৎস্না ইসলাম, জনপ্রিয় অভিনেতা ও কোম্পানির ডিরেক্টর অব কমিউনিকেশন স্বাধীন খসরু, কনসালট্যান্ট রমিম রায়হান, মিউজিক সুপারভাইজার আহমেদ হুমায়ূনসহ অনেকে।

চিত্রনায়ক ফারুক তাঁর বক্তব্যে বলেন, ‘আপনারা ছবি বানান, আমি সব সময় আপনাদের সঙ্গে আছি। কারণ, সিনেমা হচ্ছে পৃথিবীর অন্যতম শক্তিশালী মাধ্যম। এই প্রতিষ্ঠানের জন্য শুভকামনা জানাচ্ছি।’

‘সিনেবাজ ফিল্মস’-এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) শাম ইসলাম বলেন, ‘বিদেশে থাকলেও আমি বাংলা চলচ্চিত্রকে ভালোবাসি। এখানের শিল্পী, কলাকুশলীরা অনেক মেধাবী। তাঁদের নিয়ে গুণগতমানের প্রোডাকশন নিয়মিত করতে চাই এবং বিশ্বের মানুষের কাছেও তা পৌঁছাতে চাই।’

চেয়ারপারসন জ্যোৎস্না ইসলাম বলেন, ‘ছোটবেলা থেকেই বাংলা চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় অভিনেতা-অভিনেত্রীদের ছবি দেখে এসেছি। পরিচালক, প্রযোজকরা ভালো মানের ছবি উপহার দিয়েছেন। এখনো বিশ্বাস করি, আমরা ভালো কিছু কাজ এই সিনেবাজের মাধ্যমে দর্শকদের দিতে পারব।’

স্বাধীন খসরু বলেন, ‘ইউকে ও বাংলাদেশে বেইজ কোম্পানি এটি। অতীতে অনেক ভালো প্রোডাকশন হাউস ছিল এ দেশে, যে ছবিগুলো বাংলাদেশকে রিপ্রেজেন্ট করেছে। বর্তমানে ভালো প্রোডাকশন হাউস দেশে নেই বললেই চলে। বিশ্বায়নের যুগে সিনেবাজ ফিল্মস সেই সাহসী উদ্যোগ নিয়েছে। এই প্রতিষ্ঠান থেকে আন্তর্জাতিকমানের ছবি প্রযোজনার পাশাপাশি মুক্তিও দেওয়া হবে।’

রমিম রায়হান বলেন, ‘চলচ্চিত্রের সঙ্গে বাণিজ্যিক সম্পর্ক বেশ নিবিড়। চলচ্চিত্রের নামে শুধু চলচ্চিত্র হচ্ছে, তবে এটাকে কীভাবে সামনে এগিয়ে নেওয়া হবে, তা নিয়ে চিন্তাভাবনা করছি না আমরা। এখন বিশ্বায়নের যুগ। চলচ্চিত্রের ক্রান্তিকাল চলছে এখন। সে ক্ষেত্রে করপোরেট কোম্পানিকে এগিয়ে আসতে হবে এখন। বাইরে এটার প্র্যাকটিস থাকলেও এ দেশে এটা খুবই কম দেখা যায়। অনেক চলচ্চিত্রে বড় কোম্পানি যুক্ত হচ্ছে, তবে সংখ্যটা কম। তাই বলতে চাই আরো বেশি যুক্ত হওয়া উচিত। বাংলাদেশে শুধু বাংলা চলচ্চিত্র মুক্তি দিতে চাই না, সারা বিশ্বে বাংলা চলচ্চিত্র ঠিকভাবে পৌঁছে দেওয়ার চেষ্টাই কাজ করবে সিনেবাজ ফিল্মস। আপনারা সকলে আমাদের পাশে থাকবেন বলে আশা করছি।’

ইফতেখার চৌধুরী বলেন, “বর্তমানে ভালো মানের সিনেমা কম তৈরি হচ্ছে। যে সিনেমাটা শুধু দেশে না, বাইরেও মুক্তি দিতে পারব আমরা, সেই ধরনের ছবি দর্শকদের উপহার দিতে চাই। ভালো কিছু কনটেন্ট তৈরি করতে চাই সিনেবাজ থেকে। এই প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান থেকে ‘পিকনিক’, ‘বিফোর ডন’সহ বেশ কিছু নতুন ছবি শুরু করতে যাচ্ছি আমরা।”

অনুষ্ঠানে গায়িকা মেহরীন, চলচ্চিত্র নির্মাতা ওয়াজেদ আলী সুমন, দেবাশীষ বিশ্বাস, চিত্রনায়ক ড্যানি সিডাক, বাপ্পী চৌধুরী, রোশান, চিত্রনায়িকা ববি, জলি, রাহা তানহা খানসহ অনেকেই উপস্থিত ছিলেন।

Advertisement