Beta

অভিনয়জীবনের ৪৪ বছর রজনীর!

১৮ আগস্ট ২০১৯, ২১:১৭

অনলাইন ডেস্ক
ভারতীয় চলচ্চিত্রের জীবিত কিংবদন্তি রজনীকান্ত। ছবি : টুইটার

ক্যালেন্ডারের পাতায় আজ ১৮ আগস্ট, ২০১৯। ৪৪ বছর আগে, ঠিক আজকের এই দিনেই তামিল জনগণ এক ইতিহাসের সাক্ষী হয়। তাঁরা দেখেন, একজন অসাধারণ দক্ষতাসম্পন্ন ব্যক্তি তামিল চলচ্চিত্রজগতে প্রবেশ করলেন।

বলছি, ১৯৭৫ সালে মুক্তি পাওয়া তামিল সিনেমা অপূর্ব রগঙ্গল দিয়ে অভিনয়জীবন শুরু করা মহাতারকা রজনীকান্তের কথা। ভারতের দক্ষিণী সুপারস্টার রজনীকান্তের আগমনের পর থেকেই তামিল চলচ্চিত্রের গতিপথ পাল্টে যেতে থাকে।

এরপরের গল্পটুকু কেবলই রজনীকান্তময়। দক্ষিণী চলচ্চিত্রের ঈশ্বর বলা চলে তাঁকে। অসামান্য অভিনয়শৈলী দিয়ে পেয়েছেন থালাইভার খেতাব। ভারতের বিভিন্ন অঞ্চলের সিনেমায় অভিনয়ের পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্রের চলচ্চিত্রসহ অন্যান্য দেশের সিনেমায়ও অভিনয় করেছেন রজনীকান্ত।

২০০৭ সালে শিবাজি সিনেমায় ৭.৮ মিলিয়ন মার্কিন ডলার পারিশ্রমিক নেন রজনীকান্ত। এর মধ্য দিয়ে জ্যাকি চ্যানের পর এশিয়ার সর্বোচ্চ পারিশ্রমিকপ্রাপ্ত তারকা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হন এ অভিনেতা।

মহাতারকা রজনীকান্ত ভারতের তৃতীয় বেসামরিক সম্মাননা পদ্মভূষণ অর্জন করেছেন। বিশ্বজুড়ে অগণিত ভক্তের মন জয় করা এই বর্ষীয়ান অভিনেতা আজ তামিল সিনেমায় আগমনের ৪৪ বছর পূর্ণ করলেন।

টুইটারে বিভিন্ন শুভেচ্ছাবার্তা পোস্ট করে তাঁর ভক্তরা বিশেষ দিনটি উদযাপন করছেন। তাঁরা বলছেন, রজনীবাদের ৪৪ বছর।

৬৮ বছর বয়সী এ তারকা সহ-অভিনেতা হিসেবে তাঁর ক্যারিয়ার শুরু করেন। ভৈরবী সিনেমাতে তিনি প্রথম মূল চরিত্রে অভিনয় করেন। সিনেমাটি ১৮৭৮ সালে মুক্তি পায়। এ সিনেমাটি করার পরেই তারকা খেতাব পান তিনি। এরপর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি তাঁকে। একপর্যায়ে তামিল সিনেমার এক নম্বর তারকায় পরিণত হন। সূত্র : ইন্ডিয়া টুডে

Advertisement