Beta

ডেঙ্গু আক্রান্ত হলে হৃদরোগীরা কী করবেন?

২৯ আগস্ট ২০১৯, ১৭:১৯

ফিচার ডেস্ক
হৃদরোগে আক্রান্ত হলে সব সময় সতর্ক থাকতে হবে এডিস মশা যাতে না কামড়ায়। ছবি : সংগৃহীত

দেশে বর্তমানে ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে ডেঙ্গু রোগ। প্রতিদিনই ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছেন অনেক মানুষ।

ডেঙ্গু জ্বরের ব্যাপকতা বেড়ে যাওয়ার কারণে হৃদরোগীদের নিয়ে বাড়তি সতর্কতার প্রয়োজন বলে মনে করছেন চিকিৎসকরা। ডেঙ্গু আক্রান্ত হলে হৃদরোগীদের করণীয় বিষয়ে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা ইউএনবি।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ রাজিব কুমার সাহা বলেন, যথাসময়ে পদক্ষেপ না নিলে ডেঙ্গু জ্বর প্রাণঘাতী হয়ে উঠতে পরে এবং হৃদরোগে আক্রান্ত কেউ যদি এ জ্বরে আক্রান্ত হন, তাহলে তাঁকে আরো দ্রুততার সঙ্গে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত।

ডেঙ্গু আক্রান্ত হলে কী পদক্ষেপ নেবেন হৃদরোগীরা

রাজিব কুমার সাহা বলছেন, যিনি এরই মধ্যেই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েছেন বা চিকিৎসা নিচ্ছেন, তাঁদের সব সময় সতর্ক থাকতে হবে এডিস মশা যাতে কামড়াতে না পারে। ডেঙ্গুর সাধারণ লক্ষণ, যেমন—অনেক জ্বর, বমি হওয়া, শরীরে র‍্যাশ ওঠা কিংবা পাতলা পায়খানা হলে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। খুব দ্রুত না এলে হৃদরোগীর জন্য পরিস্থিতি ভয়াবহ হয়ে উঠতে পারে। কারণ, হৃদরোগীরা যেসব ওষুধ সেবন করে, সেগুলো সাধারণত রক্ত তরল করার জন্য। এগুলো অ্যান্টিপ্লাটিলেট। আবার ডেঙ্গু হলে প্লাটিলেট ভেঙে যায়। তাই দুটি মিলে কী হতে পারে, সহজেই বোঝা যায়। তাই জ্বরের লক্ষণ বোঝা গেলেই দ্রুত পরীক্ষা-নিরীক্ষা করিয়ে দেখতে হবে।

ঝুঁকি কোথায়?

রাজিব কুমার সাহা হৃদরোগে আক্রান্তদের ডেঙ্গু আক্রান্ত হওয়ার কয়েকটি ঝুঁকির কথা উল্লেখ করেন। এগুলো হচ্ছে :

১. প্রেশার কমে যাওয়া।

২. হাইপোটেনশন থেকে বিপদ হওয়ার ভয়।

৩. ডেঙ্গু থেকে লিভার আক্রান্ত হতে পারে। বিলুরুবিন বেড়ে যাতে পারে।

৪. রক্তের অণুচক্রিকায় রক্তক্ষরণের ঝুঁকি বেড়ে যাওয়া।

৫. হৃদরোগ ছাড়াও যাঁরা উচ্চ রক্তচাপ ও হার্ট ফেইলিউরের ওষুধ নিচ্ছেন, তাঁদের সেসব ওষুধ রক্তচাপ কমিয়ে দিতে পারে।

হৃদরোগ ও ডেঙ্গু : কোনটির চিকিৎসা আগে?

ডা. রাজিব কুমার সাহা বলছেন, প্রথমে জ্বর নিয়ন্ত্রণে এনে শরীরের ফ্লুয়িড ম্যানেজমেন্ট (তরলের ব্যবস্থাপনা) ঠিক রাখতে হবে। প্রেশার ঠিক করতে হবে। জ্বর কমে গেলে হার্টের চিকিৎসায় যথাযথ পদক্ষেপ নিতে হবে।

সে কারণেই হৃদরোগে যাঁরা ভুগছেন, তাঁদের অধিকতর সতর্ক থাকারও পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।

আবার ডেঙ্গু জ্বর সেরে গেলে হৃদরোগের চিকিৎসার যেসব ওষুধ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল, যত দ্রুত সম্ভব সেসব ওষুধ আবার চালু করতে হবে, তবে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে।

Advertisement