Beta

শিশুকে বলা ঠিক নয় যে ৪ বিষয়

২৫ আগস্ট ২০১৯, ১৯:২৯

ফিচার ডেস্ক
ইতিবাচক বা নেতিবাচক যে ধরনের কথাই আপনি বলেন না কেন, সেটি শিশুর মনের ওপর বেশ প্রভাব ফেলে। ছবি : সংগৃহীত

কথা অনেকটা গুলির মতো। মুখ দিয়ে একবার বেরিয়ে গেলে আর ফিরিয়ে আনা যায় না। তাই বিজ্ঞজনেরা সবসময়  কথা বলতে সাবধানী হতে বলেছেন।

আর সেই কথা যখন আপনি শিশুর সঙ্গে বলছেন, তখন আরো সতর্ক হওয়াটা জরুরি। এটাই বলেন মনোবিশেষজ্ঞরা। কারণ, ইতিবাচক বা নেতিবাচক যে ধরনের কথাই আপনি বলেন না কেন সেটি শিশুর মনের ওপর বেশ প্রভাব ফেলে।

জীবনধারা বিষয়ক ওয়েবসাইট ফেমিনা জানিয়েছে এমন কিছু বিষয়ের তালিকা, যেগুলো শিশুকে বলা থেকে বিরত থাকতে বলেন বিশেষজ্ঞরা।

১. ‘তুমি একটা গাধা’

এই কথাটি ধীরে ধীরে শিশুর আত্মবিশ্বাস কমিয়ে দেয়। শিশুটি বোকা, গাধা এ ধরনের কথা সারাক্ষণ বলতে থাকলে সে এক সময় ভীষণরকম হীনমন্যতায় ভুগবে। আর এটি তার ভবিষ্যৎকে বিপদগ্রস্ত করে তুলবে।

২. ‘তুমি কেন এমন নয়…’?

তুলনা মনকে হত্যা করতে পারে। তাই তুলনা করার অভ্যাস থাকলে সেটি পরিহার করাই ভালো। শিশুকে কখনোই বলবেন না যে ‘তুমি ওর মতো হও’ বা ‘ওই ব্যক্তির মতো হও’। তাকে বোঝান তুমি যেমন আমি তোমাকে সেভাবেই ভালোবাসি।

৩. ‘এটা কর, না হলে…’

পড়তে বস, না হলে তোমাকে শাস্তি দেওয়া হবে।’ আপনি যতই রাগ করেন না কেন বা শিশুর প্রতি বিরক্ত হন না কেন, এ ধরনের কথা আসলে তেমন কাজ করে না। মূলত, এ ধরনের কথাই সাময়িকভাবে প্রভাব ফেললেও দীর্ঘমেয়াদি প্রভাব ফেলে না। তাই এ ধরনের কথা এড়িয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন মনোবিদরা।

৪. ‘লজ্জা পাওয়া বন্ধ কর, এটা খারাপ’

লজ্জা পাওয়া বা অন্তর্মুখী হওয়া দোষের কিছু নয়। আপনার শিশু হয়তো সবার সঙ্গে তেমন মিশতে চায় না, এতে তাকে বকাঝকা করার কিছু নেই। হতেই পারে সে একটু আলাদা ব্যক্তিত্বের। ধৈর্য ধরে তাকে সাহায্য করুন এ অন্তর্মুখীভাব থেকে বেরিয়ে আসতে।

Advertisement