Beta

পাঁচ বছরে ৫৯ বার মাদক পরীক্ষা!

২৭ জুলাই ২০১৫, ১৭:০৩ | আপডেট: ২৭ জুলাই ২০১৫, ১৮:৫০

স্পোর্টস ডেস্ক
লুজান ডায়মন্ড লিগের ১০০ মিটার জিতে ভক্তদের পেছনে রেখে জাস্টিন গ্যাটলিনের সেলফি। ৯ জুলাইয়ের দৃশ্য। ছবি : রয়টার্স

মাদক নেওয়ার অপরাধে চার বছরের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ট্র্যাকে ফিরলেও এখনো যেন সন্দেহের ঊর্ধ্বে নন জাস্টিন গ্যাটলিন। যুক্তরাষ্ট্রের মাদকবিরোধী সংস্থা ইউএসএডিএ জানিয়েছে, গত পাঁচ বছরে ৫৯ বার মাদক পরীক্ষা করা হয়েছে বিশ্বের সাবেক দ্রুততম মানবের!

২০০৪ সালে এথেন্স অলিম্পিকে ১০০ মিটার স্প্রিন্টে সোনা জিতেছিলেন গ্যাটলিন। পরের বছর ফিনল্যান্ডের হেলসিংকিতে অনুষ্ঠিত বিশ্ব অ্যাথলেটিক্স চ্যাম্পিয়নশিপে ১০০ ও ২০০ মিটারের শিরোপাও তাঁর হাতে উঠেছিল। তবে এই মার্কিন গতি-তারকার ক্যারিয়ার থমকে যায় ২০০৬ সালে। নিষিদ্ধ মাদক টেস্টসটেরন নেওয়ার দায়ে আট বছরের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছিলেন তিনি। অবশ্য ইউএসএডিএকে সাহায্য করার পুরস্কার হিসেবে শাস্তিটা নেমে আসে চার বছরে।

২০১০ সালে নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ট্র্যাকে ফেরেন গ্যাটলিন। সে বছর কোনো মাদক পরীক্ষা দিতে হয়নি। তবে পরের বছর থেকে নিয়মিত বিরতিতে পরীক্ষার সামনে তাঁকে দাঁড়াতে হচ্ছে।

সম্প্রতি ইউএসএডিএ একটি রিপোর্ট প্রকাশ করেছে। তাতে দেখা যাচ্ছে, ২০১১ সালে ৮, ২০১২ সালে ১৩, ২০১৩ সালে ১৪, গত বছর ১৫ এবং এ বছর এরই মধ্যে ৯ বার মাদক পরীক্ষা করা হয়েছে গ্যাটলিনের। কোনো প্রতিযোগিতা চলার সময় তো বটেই, এর বাইরেও নিজেকে নির্দোষ প্রমাণের পরীক্ষা দিতে হয়েছে তাঁকে।

রক্ত বা মূত্র কোন্ পরীক্ষা করা হয়েছে এবং সে সবের ফলই বা কি তা অবশ্য জানায়নি ইউএসএডিএ। শুধু মার্কিন সংস্থাটিই নয়, বিশ্ব অ্যাথলেটিকসের নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইএএএফ এবং বিশ্ব মাদকবিরোধী সংস্থা ওয়াডাও পরীক্ষা নিয়েছে গ্যাটলিনের।

সব ‘হয়রানি’র জবাব অবশ্য ট্র্যাকেই দিচ্ছেন ৩৩ বছর বয়সী গ্যাটলিন। ২০১৫ সালে ১০০ মিটারে সেরা টাইমিং তাঁরই। আগামী মাসে বেইজিংয়ে অনুষ্ঠেয় বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে গতি-সম্রাট উসাইন বোল্টের সঙ্গে গ্যাটলিনের লড়াই দেখতে তাই অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছে অ্যাথলেটিকসপ্রেমীরা।

Advertisement