Beta

‘ম্যাচ ফিক্সিং খুনের চেয়েও বড় অপরাধ’

১২ মার্চ ২০১৯, ১৩:৫৪

স্পোর্টস ডেস্ক

আইপিএলে ম্যাচ ফিক্সিং কাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে দুই বছর নির্বাসিত ছিল চেন্নাই সুপার কিংস। সে সময় দলটির অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির নামও আলোচনায় আসে। অবশ্য ভারতের সবচেয়ে সফল এই অধিনায়কের বিরুদ্ধে অভিযোগের কোনো সত্যতা পাওয়া যায়নি। তবে আশার কথা, দুই বছরের নির্বাসন কাটিয়ে আবার ফিরে এসেই গত বছর ধোনির নেতৃত্বেই আইপিএলে চ্যাম্পিয়ন হয় চেন্নাই।

আগামী ২৩ মার্চ থেকে শুরু হচ্ছে আইপিএলের পরবর্তী আসর। চেন্নাইয়ের দুই বছরের নির্বাসন প্রসঙ্গে এক ডকুমেন্টরিতে নিজের মতামত জানিয়েছেন ধোনি। সেখানে ট্রেইলরে ম্যাচ-ফিক্সিংকে খুনের চেয়েও বড় অপরাধ বলে মত দিয়েছেন তিনি।

সেখানে ধোনি বলেছেন, ‘আমার মতে সবচেয়ে জঘন্য অপরাধ কাউকে খুন করা নয়, বরং ম্যাচ-ফিক্সিং। দল জড়িয়ে গিয়েছিল। আমার নামও জড়িয়ে যায়। খুব কঠিন সময় ছিল আমাদের। ভক্তরা ভেবেছিলেন, শাস্তিটা বাড়াবাড়ি হয়ে গেছে। কামব্যাকটা ছিল খুবই আবেগতাড়িত। তাই আমি সব সময়ই বলে থাকি, এটা তোমাকে হত্যা করে না, আরো বেশি দৃঢ় করে তোলে।’

বিসিসিআইর সাবেক সভাপতি নারায়ণস্বামী শ্রীনিবাসন ও তাঁর মেয়ের জামাই গুরুনাথ মায়াপ্পনের হয়ে নাকি কাজ করেছিলেন ধোনি। এমনকি চেন্নাইয়ের কর্মকর্তাদের অপরাধ ধামাচাপা দেওয়ার জন্যও নাকি চেষ্টা করেছেন তিনি। অবশ্য ভারতের সাবেক এই অধিনায়ক নিজের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের বিরুদ্ধে কখনই কোনো কথা বলেননি।

ম্যাচ ফিক্সিং কেলেঙ্কারিতে জড়িত থাকায় বিসিসিআই দুই বছরের জন্য রাজস্থান রয়্যালস ও চেন্নাই সুপার কিংসকে আইপিএলে নিষিদ্ধ করেছিল। এই দুটি দল ২০১৬ ও ২০১৭ সালের আইপিএলে অংশ নিতে পারেনি। ফিক্সিং কাণ্ডে যুক্ত থাকার দায়ে ক্রিকেট থেকে আজীবন নির্বাসিত হয়েছিলেন ভারতীয় পেসার শ্রীশান্ত। একাধিকবার প্রশ্ন উঠেছে ধোনির ভূমিকা নিয়েও। কিন্তু ধোনির বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগই প্রমাণিত হয়নি।

Advertisement