Beta

দল হোয়াইটওয়াশ হয়েছে, অথচ কোচ খুশি!

০৮ এপ্রিল ২০১৯, ১৩:১৬

স্পোর্টস ডেস্ক

দুয়ারে বিশ্বকাপ। অথচ তার আগে অস্ট্রেলিয়ার কাছে ওয়ানডে সিরিজে ৫-০ ব্যবধানে হোয়াইটওয়াশ হয়েছে পাকিস্তান। দল ব্যর্থ হলেও ব্যাটসম্যানদের উন্নতিতে খুশি পাকিস্তানের ব্যাটিং কোচ গ্র্যান্ট ফ্লাওয়ার।

সম্প্রতি সংযুক্ত আরব আমিরাতে অস্ট্রেলিয়ার কাছে এক রকম পর্যুদস্ত হয়েছে পাকিস্তান দল। তারপরও এ সিরিজ থেকে ইতিবাচক কিছু নিতে চান জিম্বাবুয়ের সাবেক এই ব্যাটসম্যান। সম্প্রতি তিনি বলেন, ‘অস্ট্রেলিয়াকে হারানোটা সব সময়ই কঠিন। যদিও তাদের বেশ কয়েকজন খেলোয়াড় বিশ্রামে ছিল এই সিরিজে। সে  বিবেচনায় সিরিজের ফল যতটা খারাপ হওয়ার কথা ছিল, ততটা হয়নি।’

অবশ্য অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজটি পাকিস্তানের জন্য বিশেষভাবে স্মরণীয় হয়ে থাকবে। ২০০৩ সালের পর এই প্রথমবার কোনো ওয়ানডে সিরিজে পাকিস্তানের ব্যাটসম্যানরা পাঁচটি সেঞ্চুরি করেছেন। হারিস সোহেল ও মোহাম্মদ রিজওয়ান দুটি করে এবং আবিদ আলি একটি সেঞ্চুরি করেন।

এ সিরিজে পাকিস্তানের পক্ষে সর্বোচ্চ রান করা হারিস সোহেলের খুবই প্রশংসা করেন ফ্লাওয়ার, ‘হারিস চমৎকার একজন খেলোয়াড়। স্বীকার করতেই হবে, ক্যারিয়ারের শুরুতে সে এতটা কঠোর পরিশ্রম করেনি। তবে এখন যে পরিশ্রম করছে, তার ফলও পাচ্ছে।’

দুই বছর পর ওয়ানডে দলে ফেরা ২৬ বছর বয়সী রিজওয়ান এবং ওয়ানডে অভিষেকেই পাকিস্তানি খেলোয়াড়দের মধ্যে সর্বোচ্চ রান করা ৩১ বছর বয়সী আলিরও প্রশংসা করেন ব্যাটিং কোচ, ‘রিজওয়ান ভালো খেলছে। তবে এবার তাঁকে আরো বেশি পরিপক্ব মনে হচ্ছে। গতির বিপক্ষে তাঁর ইনিংসগুলো আরো ভালো হচ্ছে। লোয়ার অর্ডারেও সে ভালো করে থাকে।’

আর আবিদ আলি সম্পর্কে কোচ বলেন, ‘আবিদের সেঞ্চুরি দেখতে খুবই ভালো লেগেছে। সিরিজের আগে খুব বেশি কাজ না করায় তাঁর কাছ থেকে এমন অসাধারণ একটি ইনিংস আমরা আশা করিনি। আমাকে কেবল বলা হয়েছিল, সে ভালো খেলোয়াড়। তাঁর এমন ব্যাটিং দেখাটা সত্যিই উৎসাহজনক। ফ্রন্টফুট, ব্যাকফুট, অফসাইড, লেগসাইড যা-ই বলুন না কেন, অসাধারণ। অস্ট্রেলিয়ানরা তাঁর খেলা দেখে মুগ্ধ।’

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ৩১ মে ম্যাচ দিয়ে নিজেদের বিশ্বকাপ মিশন শুরু করবে পাকিস্তান। তার আগে ইংল্যান্ড সফরে স্বাগতিকদের বিপক্ষে পাঁচটি ওয়ানডে ও একটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলবে পাকিস্তান।

Advertisement