Beta

আমি কোপাতে পারি না, স্বীকার করলেন মেসি

২৯ জুন ২০১৯, ১০:১৪ | আপডেট: ২৯ জুন ২০১৯, ১০:১৫

অনলাইন ডেস্ক
কোপা আমেরিকায় ভেনেজুয়েলার বিপক্ষে আর্জেন্টিনার ম্যাচ চলাকালে মাঠে বসে পড়লেন মেসি। রয়টার্স

কোপা আমেরিকায় দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১৪টি শিরোপা জিতেছে আর্জেন্টিনা। যদিও এখনো সুপারস্টার লিওনেল মেসি মর্যাদাপূর্ণ প্রতিযোগিতাটির শিরোপা জয়ের স্বাদ পাননি। শেষ দুবার কোপার ফাইনালে উঠেও শেষরক্ষা হয়নি মেসির আর্জেন্টিনার।

আসর দুটিতে মেসি খেলছেন দুর্দান্ত; কিন্তু চলমান কোপায় নিশ্চুপ মেসি! চার ম্যাচে করেছেন মাত্র একটি গোল! তাও পেনাল্টি থেকে। বার্সেলোনা তারকার এই নির্বিষ প্রতিচ্ছবি দেখে ফুটবল বিশেষজ্ঞ ও ভক্ত মনে জন্ম নিয়েছে নানান প্রশ্ন।

শুক্রবার দিবাগত রাতে ভেনেজুয়েলার বিপক্ষে আর্জেন্টিনা জিতেছে ২-০ গোলে, তবে চোখে পড়ার মত কোন পায়ের জাদু দেখা পারেননি ফুটবলের জাদুকর খ্যাত মেসি।

তাই ভেনেজুয়েলার বিপক্ষে ম্যাচ শেষে তিনি নিজেই স্বীকার করলেন তাঁর নির্বিষ পারফর্মেন্সের কথা। তিনি তাঁর নিজের খেলায় একেবারেই সন্তুষ্ট না।

এই সাক্ষাৎকারে মেসি বলেন, ‘এটা সত্য আমি কোপা আমেরিকায় আমার সেরাটা দিতে পারছি না, আমি যেমনটা আর্জেন্টিনার হয়ে দিতে চাই।‘

কোপা আমেরিকার কোয়ার্টার ফাইনালে ভেনেজুয়েলাকে ২-০ গোলে হারিয়ে সেমিফাইনালের টিকেট নিশ্চিত করেছে মেসির আর্জেন্টিনা। আগামী বুধবার সেমিফাইনালে ব্রাজিলের মুখোমুখি হবে টুর্নামেন্টের ১৪ বারের চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা।

বার্তাসংস্থা রয়টার্সের খবরে বলা হয়, গ্রুপ পর্বে কিছুটা ছন্দহীন থাকলেও ভেনেজুয়েলার বিপক্ষে কোয়ার্টার ফাইনাল বাধা পার হতে সমস্যা হয়নি মেসিদের। ঐতিহাসিক মারাকানা স্টেডিয়ামে এই ম্যাচের আগে পেনাল্টি শ্যুটআউটের মাধ্যমে সেমির টিকেট নিশ্চিত করেছিল ব্রাজিল।

ম্যাচের প্রথমার্ধে আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকার লুতারো মার্টিনেজ গোল করে দলকে এগিয়ে নেন। দ্বিতীয়ার্ধে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন জিওভানি লো সেলসো। আর এতেই দুই গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে লিওনেল স্কালোনির শিষ্যরা।

এদিকে গত আসরে তাঁদের অনায়াসে হারালেও ভেনেজুয়েলার বিপক্ষে সাম্প্রতিক ফর্ম খুব একটা স্বস্তি দিচ্ছিল না মেসিদের। কিন্তু ম্যাচ শুরুর ১০ মিনিটে সব দুশ্চিন্তা মুছে যায় মার্তিনেসের প্রথম গোলে।

অধিনায়ক মেসির করা কর্নার কিক থেকে অপ্রত্যাশিত পরিস্থিতিতে গোলের সুযোগ পায় তাঁরা। জটলা থেকে ভেনেজুয়েলা বল ক্লিয়ার করতে না পারায় সেই সুযোগে কিক নেন আগুয়োরো। সেখান থেকে ব্যাক হিলে কাঙ্ক্ষিত লিড নেন মার্তিনেস।

বিরতির পর ৭৪ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন আর্জেন্টিনার সেলসো। এই জয়ের ফলে ২০০৭ সালের পর বড় কোনো টুর্নামেন্টের নকআউটে মুখোমুখি হবে আর্জেন্টিনা ও ব্রাজিল। ২০০৭ সালের কোপা আমেরিকার ফাইনালে তাঁরা মুখোমুখি হলেও তাতে ৩-০ গোলে জয়ী হয়েছিল সেলেসাওরা।

Advertisement