Beta

সুপার ওভার টাই হলে বাউন্ডারি নয়, অন্য পথ বাতলালেন শচীন

১৮ জুলাই ২০১৯, ০৮:১৩ | আপডেট: ১৮ জুলাই ২০১৯, ০৯:২৮

স্পোর্টস ডেস্ক

সদ্য শেষ হওয়া দ্বাদশ ক্রিকেট বিশ্বকাপের ফাইনাল ম্যাচটি নির্ধারিত ৫০ ওভারের খেলা শেষেও অমীমাংসিত থাকায় গড়ায় সুপার ওভারে। কিন্তু কী অদ্ভুত কাণ্ড, সুপার ওভারও হলো টাই! সুপার ওভারে প্রথমে ব্যাট করে ইংল্যান্ড তোলে ১৫ রান। জবাবে ব্যাট করতে নেমে নিউজিল্যান্ডও করে ১৫ রান। কিন্তু ম্যাচ জিতে গেল ইংল্যান্ড। বিশ্বকাপ শিরোপা উঠল মরগানদের হাতে। কারণ আইসিসির নিয়ম অনুযায়ী, কোনো ম্যাচ টাই হওয়ার পর সুপার ওভারেও খেলার মীমাংসা না হলে যে দল ম্যাচে সবচেয়ে বেশি বাউন্ডারি মেরেছে, তারাই বিজয়ী হবে।

তবে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসির এমন নিয়ম মেনে নিতে পারেননি অনেকেই। আইসিসির এই নিয়ম নিয়ে সরব হয়েছিলেন ভারতের বেশ কয়েকজন সাবেক ক্রিকেটার। এবার আইসিসির এই নিয়ম নিয়ে মুখ খুললেন কিংবদন্তি ক্রিকেটার শচীন টেন্ডুলকার।

ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, মাস্টার ব্লাস্টার ব্যাটসম্যান শচীন বলেন, ‘আমি মনে করি, ফাইনালে আরো একটা সুপার ওভার হওয়া উচিত ছিল। যে দল সবচেয়ে বেশি চার মেরেছে, তাদের জয়ী ঘোষণা করার পরিবর্তে আরেকটি সুপার ওভার হওয়া উচিত ছিল। কেবল বিশ্বকাপের ফাইনাল বলে নয়। যেকোনো খেলাই গুরুত্বপূর্ণ। যেমন ফুটবলের ক্ষেত্রে দেখুন, যখন খেলা অতিরিক্ত সময়ে গড়ায়, তখন অন্য কোনো কিছুই বিবেচনায় আনা হয় না।’

এর আগে ভারতের জাতীয় ক্রিকেট দলের সহ-অধিনায়ক রোহিত শর্মাও শচীনের মতো সুপার ওভারের নিয়মের সমালোচনা করেছিলেন। রোহিত টুইট করে জানান, ‘ক্রিকেটের কোনো কোনো নিয়মকে সত্যিই ভালোভাবে পর্যালোচনা করা উচিত।’

ভারতের জেতা ২০১১ বিশ্বকাপের ‘ম্যান অব দ্য সিরিজ’ নির্বাচিত হওয়া সাবেক ক্রিকেটার যুবরাজ সিংও সুপার ওভারে নিউজি‌ল্যান্ডের পরাজয় মেনে নিতে না পেরে বলেছিলেন, ‘আমি এই নিয়মটি মানতে পারছি না। কিন্তু নিয়ম তো নিয়মই।’

বিশ্বকাপ চলার সময়ই সেমিফাইনালে হেরে টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে যাওয়ার পর বিশ্বকাপের ফরম্যাট নিয়েই প্রশ্ন তুলেছিলেন ভারতের অধিনায়ক বিরাট কোহলি। বিশ্বকাপেও আইপিএলের মতো প্লে-অফের পক্ষে সরব হন কোহলি।

Advertisement