Beta

‌আগের দিনও যান্ত্রিক ত্রুটিতে পড়ে জাভা সাগরে বিধ্বস্ত বিমানটি

৩০ অক্টোবর ২০১৮, ১০:২৩

অনলাইন ডেস্ক
উদ্ধারকর্মীরা বিমানের ধ্বংসাবশেষ সাগরপাড়ে এনে রাখছেন। বিমানটির ১৮৯ যাত্রীর সবার মৃত্যু হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ছবি : রয়টার্স

সোমবার ইন্দোনেশিয়ার জাকার্তা থেকে উড্ডয়নের খানিক পরেই সাগরে বিধ্বস্ত হওয়া লায়ন এয়ারের বিমানে আগের দিন রোববারও যান্ত্রিক সমস্যা দেখা দিয়েছিল বলে জানিয়েছে বিবিসি।

বিবিসির হাতে আসা বিমানটির রোববারের ফ্লাইট বিবরণীতে দেখা গেছে, বালি থেকে জাকার্তার উদ্দেশে আসার সময় এর পাইলট একটি ‘সমস্যাযুক্ত যন্ত্র’ সম্পর্কে কর্মকর্তাদের জানান।

বিধ্বস্ত হয়ে সাগরে পড়া বিমানটির ১৮৯ যাত্রীর কেউ বেঁচে রয়েছেন, এমন লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না। চলমান উদ্ধার অভিযানে এ পর্যন্ত ২১টি মরদেহের ব্যাগ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছে সিএনএন। উদ্ধারকাজে পাঁচ শতাধিক উদ্ধারকর্মী ও পুলিশের সদস্যরা অংশ নিয়েছেন বলে জানা গেছে।

যাত্রীদের মধ্যে অন্তত ২৩ জন সরকারি কর্মকর্তা, রাষ্ট্রীয় খনি প্রতিষ্ঠান পিটি টিমাহ‌র চার কর্মচারী রয়েছেন। বিমানটিতে একজন ইতালীয় যাত্রী ও একজন ভারতীয় পাইলট ছিলেন বলেও জানান কিছুটা সস্তায় বিমানসেবা প্রদানকারী লায়ন এয়ারের কর্মকর্তারা।

সোমবার স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ৬টায় লায়ন এয়ারের বোয়িং-৭৩৭ বিমানটি ১৮৯ যাত্রী নিয়ে উড্ডয়নের ১৩ মিনিটের মাথায় সব ধরনের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় এবং পরক্ষণে জাভা সাগরে পড়েছে বলে জানায় ইন্দোনেশিয়ার সার্চ অ্যান্ড রেসকিউ এজেন্সি।

উড্ডয়নের পরপরই পাইলট জরুরি অবতরণের (রিটার্ন টু বেইস-আরটিবি) কথা জানালেও কিছুক্ষণের মধ্যেই পাইলটের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। জাকার্তা থেকে বাঙ্কা বেলিতুং দ্বীপের দেপাতি আমির বিমানবন্দরের উদ্দেশে যাত্রা শুরু করে বিমানটি।

এক ঘণ্টা পর গন্তব্যে পৌঁছানোর কথা থাকলেও যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ার আগ মুহূর্তে বিমানটিকে সুকর্ন হাত্তা বিমানবন্দরে জরুরি অবতরণের অনুরোধ জানানো হয়।

রোববার বালি থেকে জাকার্তার ফ্লাইটে বিমানটির গতিপরিমাপক যন্ত্রটিতে সমস্যা দেখা যায়। এতে দেখা যায়, নিয়ন্ত্রণ কক্ষের সঙ্গে বিমানে দেখানো গতি মিলছে, বিমানের পরিমাপক যন্ত্রটিতে অনেক বেশি গতি দেখাচ্ছে। কিছু সময়ের জন্য পাইলট বিমানে থাকা সহকারী পাইলটকে সমস্যাটি দেখভালের দায়িত্ব দেন। পরে তা অবশ্য সমাধান হয়।

এ সমস্যা দেখার পরও পাইলট বিমানটি চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন এবং নিরাপদে জাকার্তায় অবতরণ করেন।

লায়ন এয়ারের প্রধান নির্বাহী এডওয়ার্ড সিরেইট জানান, বালি থেকে জাকার্তার ফ্লাইটে একটা অস্পষ্ট যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দিয়েছিল, তবে তার সমাধান করা হয়েছিল। তিনি বলেন, ‌‘যদি প্লেনটি ভাঙা হতো, তাহলে বালি থেকে উড্ডয়ন করে জাকার্তায় নামতে পারত না।’

‘ফ্লাইটে থাকা পাইলটের রিপোর্ট পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আমরা তার সমাধান করেছিলাম।’

নিখোঁজের খবরের কিছু সময় পর জাভা সাগরের উপকূলের নিকটবর্তী সমুদ্রে অবস্থিত জ্বালানি পরিশোধন কেন্দ্রের স্থাপনার মধ্যে ভাঙা আসন ও লাইফ জ্যাকেটসহ বিমানের কিছু ধ্বংসাবশেষ পাওয়া গেছে বলে জানায় রাষ্ট্রীয় জ্বালানি সংস্থা পেত্রামিনা। পরে সেখানে উদ্ধার কার্যক্রম শুরু হয়।

ইন্দোনেশিয়ার সার্চ অ্যান্ড রেসকিউ এজেন্সির প্রধান মোহাম্মদ সিয়াউগি জানিয়েছেন, যেখানে ধ্বংসাবশেষ পাওয়া গেছে, বিমানপথের ট্রাফিক কন্ট্রোল অফিসের সঙ্গে এর কাছাকাছি জায়গায় বিধ্বস্ত বিমানটির যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়।

তাৎক্ষণিক সংবাদ সম্মেলনে গতকাল সিয়াউগি বলেন, ‘আমরা জানি না, আসলে কেউ বেঁচে আছেন কি না। আমরা আশা করছি, দোয়া করছি, তবে আমরা নিশ্চিত করতে পারছি না।’

অন্যদিকে বিমানটির নির্মাতা প্রতিষ্ঠান মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বোয়িং এক টুইট বার্তায় জানায়, বিপুল পরিমাণ বিক্রীত ৭৩৭ ম্যাক্স ৮ মডেলের বিমান বিধ্বস্তের ঘটনা এটিই প্রথম। ২০১৬ সালে এই জ্বালানিসঞ্চয়ী মডেলটি বাজারে আনে বোয়িং।

তবে কোম্পানিটির বিরুদ্ধে দীর্ঘদিন ধরে অনিরাপত্তা এবং বাজে ব্যবস্থাপনার অভিযোগ রয়েছে। ১৯৯৯ সালে প্রতিষ্ঠিত বিমান কোম্পানিটি ২০১৬ সাল পর্যন্ত ইউরোপের আকাশে উড্ডয়নে নিষেধাজ্ঞাভুক্ত ছিল।

২০১৩ সালে লায়ন এয়ারের একটি বিমান ১০৮ জন যাত্রী নিয়ে বালি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের নিকটবর্তী সমুদ্রে বিধ্বস্ত হয়। তবে সে যাত্রায় বিমানে থাকা যাত্রীদের সবাই প্রাণে বেঁচে যান। ২০০৪ সালে অপর এক দুর্ঘটনায় কোম্পানিটির একটি বিমান জাকার্তা থেকে উড্ডয়নের পর সোলো শহরে বিধ্বস্ত হলে তাতে ২৫ জনের প্রাণহানি ঘটে। ২০১১ ও ২০১২ সালে বেশ কয়েকজন পাইলটকে নেশাগ্রস্ত হিসেবে চিহ্নিত করা হয়।

১৯৯৭ সালে দেশটির সবচেয়ে ভয়াবহ বিমান দুর্ঘটনায় ২৩৪ যাত্রীর মৃত্যু হয়। ইন্দোনেশিয়ার মেডান শহরে গারুদা এয়ারের এ৩০০ বিমানটি বিধ্বস্ত হলে এই বিপুল পরিমাণ প্রাণহানি ঘটে।

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement