Beta

ভারতে তৃতীয় দফা ভোট, রাহুল ও অমিতের ভাগ্য পরীক্ষা আজ

২৩ এপ্রিল ২০১৯, ০৯:৫২

কলকাতা সংবাদদাতা
কংগ্রেসের সভাপতি রাহুল গান্ধী ও বিজেপির সভাপতি অমিত শাহের এলাকায় ভোট আজ। ছবি : সংগৃহীত

ভারতে লোকসভা নির্বাচনের তৃতীয় দফার ভোট গ্রহণ আজ। এই দফায় ভারতের ১৫টি রাজ্যের ১১৭টি লোকসভা আসনে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

আজ মঙ্গলবার সকাল ৭টা থেকে শুরু হয়েছে ভোট গ্রহণ। চলবে বিকেল ৬টা পর্যন্ত।

বিজেপির কাছে বড় ধরনের ভাগ্য পরীক্ষা এই তৃতীয় দফার নির্বাচন। গত লোকসভা নির্বাচনে এই ১১৭টির মধ্যে ১১৫টি আসনে বিজেপি ৬২টিতে জয়ী হয়েছিল। অন্য দলগুলোর মধ্যে কংগ্রেস পেয়েছিল ১৬টি আসন, কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিআই) পেয়েছিল সাতটি, বিজু জনতা দল (বিজেডি) পেয়েছিল ছয়টি ও সমাজবাদী পার্টি (সপা) জয় পেয়েছিল তিনটি আসনে। স্বাভাবিকভাবেই কেন্দ্রে সরকার গঠনের জন্য প্রতিটি রাজনৈতিক দলের কাছেই তৃতীয় দফার ভোট অনেক গুরুত্বপূর্ণ। বিশেষ করে বিজেপির কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। বিজেপি এবার কয়টি আসন ধরে রাখতে পারে, সেটির দিকেই নজর রাজনৈতিক মহলের।

ভারতের প্রধান দুটি রাজনৈতিক দল বিজেপি ও কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতিরা লড়াই করছেন এই তৃতীয় দফায়।

এবারই প্রথম লোকসভা নির্বাচনে সরাসরি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ। গুজরাটের গান্ধীনগর কেন্দ্র থেকে প্রার্থী হয়েছেন তিনি।

অন্যদিকে কেরালার ওয়ানাড কেন্দ্র থেকে লড়ছেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। উত্তরপ্রদেশের আমেথি কেন্দ্র থেকেও লড়াই করবেন তিনি।

তৃতীয় দফায় ভারতের গুজরাট রাজ্যের ২৬টি আসনে, কেরালার ২০টি, কর্ণাটকের ১৪টি, মহারাষ্ট্রের ১৪টি, উত্তরপ্রদেশের ১০টি, ছত্তিশগড়ের সাতটি, উড়িষ্যার ছয়টি, বিহারের পাঁচটি, পশ্চিমবঙ্গের পাঁচটি, আসামের চারটি, ত্রিপুরার একটি, গোয়ার দুটি, দাদরা ও নগর হাভেলির একটি, দিউয়ের একটি ও জম্মু-কাশ্মীরের একটি আসনে ভোট গ্রহণ হবে।

এরই মধ্যে তৃতীয় দফার ভোট অবাধ ও শান্তিপূর্ণ করতে সব ধরনের প্রস্তুতি নিয়েছে ভারতের নির্বাচন কমিশন।

বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ ও কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী ছাড়াও একাধিক হেভিওয়েট রাজনৈতিক নেতা-নেত্রীরা ভোটের ময়দানে লড়ছেন। এ ছাড়া হেভিওয়েট যেসব প্রার্থীর ভাগ্য পরীক্ষা হতে চলছে, তাঁরা হলেন—সমাজবাদী পার্টির (সপা) প্রধান মুলায়ম সিং যাদব, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী সন্তোষ কুমার গাঙ্গোয়ার, সমাজবাদী পার্টির অন্যতম নেতা আজম খান, বিজেপির বরুণ গান্ধী, বিজেপি নেত্রী তথা বলিউড অভিনেত্রী জয়াপ্রদা, কংগ্রেস নেতা মল্লিকার্জুন খাড়গে, কংগ্রেস নেতা শশী থারুর, লোকতান্ত্রিক জনতা দলের (ইউ) নেতা শরদ যাদব, ন্যাশনালিস্ট কংগ্রেস পার্টির (এনসিপি) প্রধান শরদ পাওয়ারের মেয়ে সুপ্রিয়া সুলে প্রমুখ।

এদিকে পশ্চিমবঙ্গের যে পাঁচটি লোকসভা আসনে ভোট নেওয়া হবে সেগুলো হলো—বালুরঘাট, মালদা উত্তর, মালদা দক্ষিণ, জঙ্গিপুর ও মুর্শিদাবাদ। পশ্চিমবঙ্গের এ পাঁচটি কেন্দ্রেই এবার লড়াই হচ্ছে বহুমুখী। তৃতীয় দফায় পশ্চিমবঙ্গে মোট প্রার্থী ৬১ জন। মোট ভোটারের সংখ্যা ৮০ লাখ ২৩ হাজার ৮৫২।

পশ্চিমবঙ্গের বালুরঘাট লোকসভা আসনে তৃণমূলের প্রার্থী এই কেন্দ্রের বিদায়ী সাংসদ বিশিষ্ট নাট্যব্যক্তিত্ব অর্পিতা ঘোষ, বিজেপি প্রার্থী সুকান্ত মজুমদার, কংগ্রেসের সাদিক সরকার। এই কেন্দ্রে ভারতের কমিউনিস্ট পার্টি (মার্ক্সবাদী-সিপিআইএম) কোনো প্রার্থী দেয়নি।

উত্তর মালদা কেন্দ্রে তৃণমূলের প্রার্থী হয়েছেন কংগ্রেসের সাবেক সংসদ সদস্য বেনজির নূর, বিজেপির খগেন মুর্মু, কংগ্রেসের ইশা খান চৌধুরী, সিপিআইএমের বিশ্বনাথ ঘোষ।

মালদা দক্ষিণ কেন্দ্রে তৃণমূলের প্রার্থী হয়েছেন মোয়াজ্জেম হোসেন, বিজেপির শ্রীরুপা মিত্র চৌধুরী, কংগ্রেসের আবু হাসেম খান চৌধুরী। এই কেন্দ্রেও সিপিআইএমের কোনো প্রার্থী নেই।

জঙ্গিপুর আসনে লড়ছেন কংগ্রেসের বিদায়ী সাংসদ সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়ের ছেলে অভিজিত মুখোপাধ্যায়। এ ছাড়া রয়েছেন তৃণমূলের প্রার্থী খলিলুর রহমান, বিজেপির মাফুজা খাতুন ও সিপিআইএমের জুলফিকার আলি।

মুর্শিদাবাদ কেন্দ্রে বিজেপি প্রার্থী হুমায়ুন কবীরের বিরুদ্ধে লড়ছেন তৃণমূলের আবু তাহের খান, কংগ্রেসের আবু হেনা ও সিপিআইএমের বদরুজ্জামান খান।

এদিকে পশ্চিমবঙ্গে গত দুই দফার নির্বাচনে অধিকাংশ বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী না থাকার অভিযোগ উঠেছিল। তবে তৃতীয় দফার নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গের পাঁচটি কেন্দ্রের প্রায় ৯২ শতাংশ বুথেই কেন্দ্রীয় বাহিনী রাখা হবে বলে জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

Advertisement