Beta

যমজ কন্যার মা হলেন মণিপুরের লৌহমানবী ইরম শর্মিলা

১৩ মে ২০১৯, ২০:১৭

কলকাতা সংবাদদাতা
১৬ বছর পর ২০১৬ সালে অনশন ভাঙেন ভারতের মণিপুর রাজ্যের লৌহমানবী ইরম শর্মিলা চানু। ছবি : সংগৃহীত

যমজ কন্যার মা হলেন ভারতের মণিপুর রাজ্যের দেবী খ্যাত ইরম শর্মিলা চানু। রোববার বেঙ্গালুরুর এক হাসপাতালে দুই কন্যা সন্তানের জন্ম দিয়েছেন ৪৬ বছর বয়সী ইরম শর্মিলা চানু।

হাসপাতালে দেবীর পাশে রয়েছেন স্বামী ডেসমন্ড কুটিনহো। দুই কন্যা সন্তানের নামও

এরই মধ্যে ঠিক করে ফেলেছেন শর্মিলা ও তাঁর ব্রিটিশ স্বামী ডেসমন্ড কুটিনহো। মা-বাবার নামের সঙ্গে নাম মিলিয়ে দুই কন্যা সন্তানের নাম রাখা হয়েছে নিক্স সথি ও অটাম তারা।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, মা ও মেয়েরা সবাই সুস্থ রয়েছেন। শর্মিলার মুখপাত্র জানান, খুব শিগগিরই দুই কন্যার ছবি প্রকাশ করা হবে।

ভারতের মণিপুর রাজ্য তথা সমগ্র উত্তর-পূর্ব ভারত থেকে সেনাবাহিনীর বিশেষ ক্ষমতা আফম্পা প্রত্যাহার করে নাগরিকদের সুরক্ষিত জীবনের দাবিতে ইরম শর্মিলা চানুর দীর্ঘ সংগ্রামের কথা সর্বজনবিদিত। ২০০০ সাল থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত টানা ১৬ বছর ধরে তাঁর অনশন তাঁকে মণিপুর রাজ্যের জনসাধারণের কাছে দেবীতে উন্নীত করেছে।

দীর্ঘ অনশনের শেষের দিকে চানুর শরীর এতটাই অসুস্থ হয়ে পড়ে যে তাঁকে বাঁচিয়ে রাখতে নলের মাধ্যমে তরল খাবার দেওয়া শুরু করেন চিকিৎসকরা। কিন্তু চানু নিজের আদর্শে এতটাই দৃঢ় ছিলেন যে সেই তরল খাবারটুকু নিতেও অস্বীকার করেন।

লৌহমানবী খ্যাত ইরম শর্মিলা চানু বিশ্বাস করতেন, তাঁর এই আন্দোলন একদিন মণিপুর রাজ্য থেকে আফম্পা প্রত্যাহার করতে বাধ্য হবে কেন্দ্র সরকার। মণিপুরের মানুষকে সুরক্ষার নামে সেনাবাহিনীর অত্যাচার সহ্য করতে হবে না।

লড়াইয়ের একটা পর্যায়ে এসে চানু পিপলস রিসার্জেন্স অ্যান্ড জাস্টিস অ্যালায়েন্স নামের একটি রাজনৈতিক দলও প্রতিষ্ঠা করেন। সেই দলের হয়ে ভোটেও দাঁড়ান তিনি। কিন্তু ভাগ্যের পরিহাসে মাত্র ৯১টি ভোট পান মণিপুরবাসীর দেবী।

এরপর ইরম শর্মিলা চানু ফিরে যান তাঁর দীর্ঘদিনের প্রেমিক ডেসমন্ড কুটিনহোর কাছে। সিদ্ধান্ত নেন বিয়ে করবেন। সেই মতো ২০১৭ সালে মণিপুর থেকে অনেক দূরে দক্ষিণ ভারতের কোদাইকানালের এক গির্জায় সাদামাটাভাবে বিয়ে সারেন চানু ও ডেসমন্ড। এরপর গত রোববার বিশ্ব মা দিবসেই চানুর কোল আলো করে এলো যমজ কন্যা সন্তান নিক্স ও অটাম।

Advertisement