Beta

হিন্দু ধর্মের প্রচলিত প্রথা পালন‌ না করায় জোর করে মাথা ন্যাড়া!

২৭ মে ২০১৯, ২২:৫৩

অনলাইন ডেস্ক

প্রচলিত প্রথা পালন‌ করতে রাজি না হওয়ায় জোর করে নয়জন পুরুষের মাথা ন্যাড়া করা এবং সাতজন নারীর নখ কেটে নেওয়ার অভিযোগে ভারতের ঝাড়খণ্ডে ছয়জনকে আটক করেছে পুলিশ।

সংবাদ মাধ্যম এনডিটিভির খবর অনুসারে পুলিশ জানায়, এক গ্রামবাসীর মৃত্যুর পর ওই আক্রান্ত নারী-পুরুষেরা প্রচলিত প্রথা পালন‌ করতে রাজি না হওয়ায় শাস্তি হিসেবে নয়জন পুরুষের মাথা ন্যাড়া করা এবং সাতজন নারীর নখ কেটে নেওয়া হয়।

ওই এলাকার পুলিশ সুপার চন্দনকুমার সিনহা জানিয়েছেন, গ্রামের এক বাসিন্দার মৃত্যুর পর হিন্দু ধর্মের প্রথা অনুযায়ী গ্রামের বাকিরা তাদের চুল কেটে ফেলে। কিন্তু ১২টি পরিবারের ১৬ জন নারী ও পুরুষ ওই রীতি মানতে রাজি হয়নি।

জানা যায়, আক্রান্তরা হিন্দু প্রথা মানতেন না বা মন্দিরেও যেতেন না। তাঁরা ‘গুরু মা'-র উপাসনা করতেন। তাঁদের প্রত্যাখ্যানকে ‘অপবিত্র' মনে করে তাঁদের নিয়ে একটি বৈঠকে গ্রামবাসী সিদ্ধান্ত নেয়, তাঁরা যদি স্নান করে মাথার চুল কেটে ফেলেন তবে তাঁদের ‘শুদ্ধিকরণ' ঘটবে।

কিন্তু গ্রামবাসীর বৈঠকের সিদ্ধান্তও মানেননি আক্রান্তরা। এরপরই গ্রামপ্রধানের উপস্থিতিতে জোর করে পুরুষদের মাথা ন্যাড়া করে দেওয়া হয় এবং নারীদের নখ কেটে দেওয়া হয়।

পুলিশ আরো জানিয়েছে, আটক অভিযুক্তদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। যাঁদের মধ্যে রয়েছেন গ্রামপ্রধানও।

Advertisement