Beta

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বললেন

পারস্য উপসাগরীয় অঞ্চলকে বারুদের বাক্সে পরিণত করছে যুক্তরাষ্ট্র

১৩ আগস্ট ২০১৯, ১৩:৪৬

অনলাইন ডেস্ক

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ জাওয়াদ জারিফ মধ্যপ্রাচ্যে অস্ত্র প্রতিযোগিতার বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছেন, পারস্য উপসাগরীয় অঞ্চলের কয়েকটি দেশের কাছে অস্ত্র বিক্রি করে এ অঞ্চলকে বিস্ফোরণের অপেক্ষায় থাকা বারুদের বাক্সে পরিণত করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

কাতারে এক সরকারি সফরে গিয়ে গতকাল সোমবার জাওয়াদ জারিফ আলজাজিরা টেলিভিশনকে দেওয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেন।

এ সময় ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, গত বছর মধ্যপ্রাচ্যে পাঁচ হাজার কোটি ডলারের অস্ত্র বিক্রি করেছে যুক্তরাষ্ট্র। ইরানের প্রেস টিভি ও পার্স টুডের প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

জাওয়াদ জারিফ বলেন, ‘এ অঞ্চলের (পারস্য উপসাগরীয় অঞ্চল) কোনো কোনো দেশের মোট জনসংখ্যা ইরানের জনসংখ্যার এক-তৃতীয়াংশেরও কম, অথচ অস্ত্র ও সামরিক সরঞ্জাম ক্রয় খাতে তারা আট হাজার৭০০ কোটি ডলার ব্যয় করেছে। অন্যদিকে, ইরানের সেনাসংখ্যা ১০ লাখের কাছাকাছি হলেও সামরিক ব্যয় মাত্র এক হাজার ৬০০ কোটি ডলার।’

মার্কিন অস্ত্র মধ্যপ্রাচ্যকে অস্থিতিশীল করে তুলছে উল্লেখ করে জাওয়াদ জারিফ আরো বলেন, ‘সংযুক্ত আরব আমিরাতের মোট জনসংখ্যা ১০ লাখ। আর তাদের সামরিক ব্যয় ছিল দুই হাজার ২০০ কোটি ডলার। অন্যদিকে সৌদি আরব এ খাতে ‍ব্যয় করেছে আট হাজার ৭০০ কোটি ডলার।’

জাওয়াদ জারিফ আরো বলেন, ‘যদি আপনি এ অঞ্চলে ঝুঁকির কথা বলেন, তাহলে বলতে হবে সে ঝুঁকি আসছে যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্রদের কাছ থেকে, যারা এ অঞ্চলে ব্যাপক অস্ত্র সরবরাহ করছে। তারাই মধ্যপ্রাচ্যকে বিস্ফোরণের অপেক্ষায় থাকা বারুদের বাক্সে পরিণত করেছে।’

পারস্য উপসাগরের নিরাপত্তার নামে যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক জোট গঠনের উদ্যোগ সম্পর্কে মন্তব্য করতে গিয়ে জারিফ জানান, এ অঞ্চলে যত জাহাজ আনা হবে, ততই অনিরাপদ হয়ে উঠবে পারস্য উপসাগরীয় অঞ্চল।

Advertisement