Beta

র‌্যাগিং বন্ধে কাজ করবে জাবির সম্মিলিত শিক্ষক সমাজ

১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ২৩:৩৮

জাবি সংবাদদাতা
সম্মিলিত শিক্ষক সমাজ রোববার জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের গাণিতিক ও পদার্থ বিষয়ক অনুষদের ডিনের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে। ছবি : এনটিভি

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) র‌্যাগিং বন্ধে কাজ করার ঘোষণা দিয়েছে উপাচার্যবিরোধী আওয়ামী লীগ (একাংশ), বিএনপি ও বাম ঘরানার শিক্ষকদের জোট সম্মিলিত শিক্ষক সমাজ। এর জন্য প্রশাসনের সহযোগিতাও চেয়েছে তারা।

রোববার বিশ্ববিদ্যালয়ের গাণিতিক ও পদার্থ বিষয়ক অনুষদের ডিনের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেয় তারা।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে সংগঠনটির যুগ্ম আহ্বায়ক অধ্যাপক সাঈদ ফেরদৌস বলেন, ‘নতুন একটি ব্যাচ ভর্তি হওয়া মাত্রই তাদের মৌখিক নিপীড়ন, গালিগালাজ, মানসিক নির্যাতন, এমনকি যৌন নির্যাতনেরও শিকার হতে হয়। যাকে এক কথায় র‌্যাগিং হিসেবে উল্লেখ করা হয়। এই নিপীড়নের ফলে প্রতি বছরই অনেক শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়ছেন। এদের মধ্যে অনেকেই ভয়ে শিক্ষাজীবন ত্যাগ করে ক্যাম্পাস ছেড়ে চলে যান।’

সাঈদ ফেরদৌস আরো বলেন, ‘র‌্যাগিংয়ের বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতি অবস্থান নিলেও প্রশাসনের ভূমিকা ছিল নিষ্ক্রিয়। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে র‌্যাগিংয়ের বিরুদ্ধে শাস্তির ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় অপরাধীরা র‌্যাগিংয়ের প্রতি উৎসাহিত হচ্ছে।’

হল প্রাধ্যক্ষ ও বিভাগের শিক্ষকদের সম্পৃক্ত করে নিয়মিত পরিদর্শনের ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য প্রশাসনের প্রতি দাবি জানায় সংগঠনটি।

সম্মিলিত শিক্ষক সমাজের ছয়জন শিক্ষক বর্তমানে হল প্রভোস্টের দায়িত্বে আছেন। এ ছাড়া গত বছর এই গ্রুপের আরো ছয়জন শিক্ষক হল প্রভোস্টের দায়িত্বে ছিলেন। প্রভোস্টের দায়িত্বে থাকা অবস্থায় তারা র‌্যাগিং বন্ধে কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করেননি কেন সাংবাদিক এমন প্রশ্নের জবাবে প্রীতিলতা হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক কৌশিক সাহা বলেন, ‘র‌্যাগিং বন্ধে হল প্রশাসন পদক্ষেপ নিলেও কেন্দ্রীয় প্রশাসনের সরাসরি হস্তক্ষেপ জরুরি ছিল। কিন্তু কেন্দ্রীয় প্রশাসন কখনোই এ বিষয়ে হল প্রশাসনকে যথেষ্ট সহযোগিতা করেনি।’

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে সংগঠনটির আহ্বায়ক অধ্যাপক অজিত কুমার মজুমদার, যুগ্ম আহ্বায়ক অধ্যাপক আলমগীর কবির, অধ্যাপক শামছুল আলম, সদস্য সচিব অধ্যাপক জামাল উদ্দিন, সদস্য ও শিক্ষক সমিতির নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক সোহেল রানা, অধ্যাপক কৌশিক সাহা, অধ্যাপক নূরুল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Advertisement