Beta

আপনার জিজ্ঞাসা

ইউটিউবে নারীকণ্ঠে তিলাওয়াত শোনা কি জায়েজ?

২৯ জানুয়ারি ২০১৯, ১৮:১৭

অনলাইন ডেস্ক

 

নামাজ, রোজা, হজ, জাকাত, পরিবার, সমাজসহ জীবনঘনিষ্ঠ ইসলামবিষয়ক প্রশ্নোত্তর অনুষ্ঠান ‘আপনার জিজ্ঞাসা’। জয়নুল আবেদীন আজাদের উপস্থাপনায় এনটিভির জনপ্রিয় এ অনুষ্ঠানে দ‍র্শকের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন বিশিষ্ট আলেম ড. মুহাম্মদ সাইফুল্লাহ।

আপনার জিজ্ঞাসার ২২৩০তম পর্বে ইউটিউবে নারীকণ্ঠের তিলাওয়াত শোনা জায়েজ কি না, সে বিষয়ে ই-মেইলে জানতে চেয়েছেন হাসিবুল হোসাইন। অনুলিখন করেছেন জান্নাত আরা পাপিয়া।

প্রশ্ন : মেয়েরা কি উচ্চ কণ্ঠে কোরআন তিলাওয়াত করতে পারবে? ইউটিউবে নারীদের কিছু সুরেলা কণ্ঠের তিলাওয়াত পাওয়া যায়। এটা শোনা কি জায়েজ?

উত্তর : উচ্চস্বরে কোরআন তিলাওয়াত করা মেয়েদের জন্য নাজায়েজ নয়। কিন্তু এ ক্ষেত্রে শর্ত রয়েছে। সেটা হলো বেগানা পুরুষ, ভিন্ন পুরুষ বা যাদের সাথে বৈবাহিক সম্পর্ক জায়েজ রয়েছে, এ ধরনের বেগানা পুরুষ যেন তিলাওয়াত শুনতে না পারে। বেগানা পুরুষের প্রতি আকর্ষণ সৃষ্টি করার জন্য বা ফেতনা সৃষ্টি করার জন্য যদি মেয়েরা উচ্চস্বরে কোরআন তিলাওয়াত করেন, তাহলে তিনি গুনাহগার হবেন। তার জন্য এটা জায়েজ নেই।

কিন্তু তিনি যদি কোরআন তিলাওয়াত করে থাকেন আর সেক্ষেত্রে যদি একটু আওয়াজ হয়, এটাতে কোনো ধরনের পাপ নেই।

আর দ্বিতীয়ত, নারীদের কোরআন তিলাওয়াতের বিষয়টি প্রদর্শনের সামান্যতম কোনো সুযোগ নেই এবং সেটা কোনোভাবেই প্রচারের বিষয় নয়। যদি এটা প্রচারের উদ্দেশ্যে হয়ে থাকে, তবে এই কাজটি বড় ধরনের ফেতনা। এটা শোনাও জায়েজ নেই আর যারা করেছে, তাদের জন্য এই কাজটি হারাম। যারা এটা প্রচার করছে, তারাও বড় ধরনের গুনাহগার হবে। কারণ এর সাথে ফেতনার বিষয়টি জড়িয়ে আছে। এখানে নারীদের প্রদর্শনের বিষয়টি আসে, যা ইসলামের শরীয়তে একেবারেই হারাম।

Advertisement