Beta

রম্য

মেসেঞ্জারে ইলিশ বিক্রেতা বনাম ক্রেতা

১০ এপ্রিল ২০১৮, ১২:০৯ | আপডেট: ১০ এপ্রিল ২০১৮, ১৫:২১

মেহেদী হাসান গালিব

আপনাদের পেজে ইলিশের ছবি দেখে মন ভরে গেল ভাই। কিন্তু ভয় হচ্ছে ছবিগুলো আবার ফটোশপে এডিট করা না তো?

ছিঃ! ছিঃ! কী বলেন এসব? ডিএসএলআরে তোলা ছবি। তাই ও রকম মনে হচ্ছে। আর পদ্মার ইলিশ দেখতে এমনিতেই অনেক সুন্দর—নো মেকআপ, নো এডিট।

তা বুঝলাম। কিন্তু ইলিশের দাম এত বেশি কেন?

কই এত দাম? এই বৈশাখে একমাত্র আমরাই দিচ্ছি 'লাইক দাও, ইলিশ নাও' অফার।

মানে?

মানে হলো স্যার, আমাদের পেজ থেকে ইলিশের একটি ছবিতে আপনাকে লাইক দিতে হবে। এরপর সেই ছবি শেয়ার করতে হবে আপনার টাইমলাইনে। শেয়ারকৃত ছবিতে ১০০০+ লাইক পেলে আপনি বিনামূল্যেই পেয়ে যাবেন একটি তরতাজা ইলিশ।

ধুর মিয়া, মজা নেন? আমারই ছবিতে তো কোনো দিন ১০০-এর বেশি লাইক পড়ল না, আর এই ইলিশের ছবিতে পড়বে ১০০০+ লাইক?

স্যার, তাহলে আর কী করার? টাকা দিয়েই কিনতে হবে।

কম দামি কোনো ইলিশ নাই?

আছে স্যার।

কই দেখি? একটা ছবি পাঠান।

pantailish.com sent you a photo.

এটা তো খেলনা ইলিশ।

জি স্যার। পেটের নিচে চাবি আছে। ঘুরায় দিলে সামনে চলতে পারে। নববর্ষের দিন বউ-বাচ্চা মিলে পান্তা খাওয়ার আগে চাবি ঘুরিয়ে ইলিশটি ছেড়ে দেবেন। খেলনাটি আপনাদের আশপাশে ঘুরবে আর আপনারা পান্তা খাবেন। ব্যস, হয়ে গেল পান্তা-ইলিশ খাওয়া।

পাশাপাশি নববর্ষ শেষ হলেও আপনার বাচ্চারা এটা দিয়ে খেলতে পারবে।

বাচ্চার খেলাধুলা পরে, আগে স্ত্রীর খেলাধুলার ব্যবস্থা করতে হবে। স্ত্রী এবার বায়না ধরেছে পান্তা-ইলিশ ও সঙ্গে খাঁটি সরিষা তেলে ভাজা নুডলসের মালাইকারি খাবে।

তাহলে তো আর ইলিশ না কিনলে আপনার ঘরে ঢোকা হচ্ছে না স্যার।

ঘরে আর কী ঢুকব—বউ তো ঘরেই আটকে রেখেছে। ইলিশের অর্ডার দিয়ে তাকে স্ক্রিনশট না পাঠালে সে নাকি দরজা খুলবে না।

তাহলে স্যার টাকার চিন্তা ছেড়ে কিনেই ফেলুন একটা ইলিশ। এত টাকার চিন্তা করে কী হবে—একদিন তো মরেই যাবেন।

তা তো কিনতেই হবে। আচ্ছা, আমি যদি ইলিশের আঁশ, লেজ আর কানকো না নিই, তাহলে কি কিছু কমে পাওয়া যাবে?

Seen

ভাই কী হলো, দেওয়া যাবে?

Seen

ভাই, রিপ্লাই দেন না কেন?

Seen

আঁশ, কানকো, লেজ, এমনকি পাখনাও নেব না ভাই। দেখেন না, একটু কম করে রাখা যায় কি না। নইলে বউ সত্যি সত্যি ঘর থেকে বেরোতে দেবে না।

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement