Beta

রম্য

স্টুলিশের নানামুখী ব্যবহার

২৮ মে ২০১৮, ১৬:৫৭ | আপডেট: ২৮ মে ২০১৮, ১৭:০৪

মেহেদী হাসান গালিব

বেশ কয়েকদিন হলো সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকের নিউজ ফিড দখল করে রেখেছে স্টুলিশ নামের একটি অ্যাপ, যার সাহায্যে নিজের পরিচয় গোপন রেখে অন্যকে মেসেজ দেওয়া যায়। অ্যাপটি আত্মপ্রকাশের পর থেকেই ফেসবুক সেলিব্রেটিরা বিভক্ত হয়ে গিয়েছেন দুই দলে। একদল স্টুলিশ ব্যবহারের পক্ষে একের পর এক স্ট্যাটাস দিয়ে যাচ্ছেন। আবার আরেকদল দেখাচ্ছেন স্টুলিশ ব্যবহার না করার যত যুক্তি। তবে লাইক-কমেন্ট ও হাহা রিয়্যাক্টের ভিত্তিতে জয়ী হয়েছে স্টুলিশ ব্যবহারের পক্ষের সেলিব্রেটিরা। তাই আসুন জেনে নেওয়া যাক, স্টুলিশকে আমরা কীভাবে আমাদের দৈনন্দিন জীবনের বিভিন্ন ক্ষেত্রে ব্যবহার করতে পারি।

ভালোবাসার কথা জানাতে
চারতলার উঁচু নাকওয়ালা মেয়েটিকে অনেক ভালো লাগে?  লজ্জা কিংবা প্রত্যাখ্যানের ভয়ে জানাতে পারছেন না মনের কথা? তবে আর চিন্তা নেই। আপনার জন্য আছে স্টুলিশ। স্টুলিশে মেয়েটির আইডি খুঁজে বলে ফেলুন আপনার মনের কথা। এরপর রিপ্লাই পেতে চোখ রাখুন মেয়েটির ফেসবুক টাইমলাইন কিংবা মাই ডে-তে।

বন্ধুদের কাছে মনের ভাব প্রকাশ করতে
সামনেই শুরু হতে যাচ্ছে বিশ্বকাপ ফুটবল। মাঠের খেলোয়াড়রা খেলা শুরু না করতেই ফেসবুকে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই শুরু করে দিয়েছেন বিভিন্ন দলের সমর্থক। আর এই লড়াইয়ে আপনার অনেক বন্ধুই এসে হাজির হবে অযৌক্তিক কিছু যুক্তি নিয়ে। তাদের যুক্তি শুনে আপনার মেজাজ হয়ে যাবে গরম। এ ক্ষেত্রে তাদের গালি তথা মনের ভাব প্রকাশ করতে ব্যবহার করুন স্টুলিশ। মনের ভাবও প্রকাশ হবে, বন্ধুত্বও অটুট থাকবে।

বাজার খরচ বাঁচাতে
বাজারের অর্ধেক তরিতরকারিই শেষ হয়ে যাচ্ছে বউয়ের রূপচর্চায়? রান্না বন্ধ হওয়ার ভয়ে মুখ ফুটে বলতে পারছেন না মনের কথা? তবে এখনই স্টুলিশে বউকে একটি মেসেজ পাঠান, কোনোরকম মেক-আপ ছাড়াই আপনাকে যা লাগে না ভাবি। এই সৌন্দর্যের রহস্যটা বলবেন প্লিজ? ব্যস।এবার নিশ্চিন্তে ফ্রিজ থেকে গাজর বের করে চিবোতে থাকেন।

বন্ধুদের সারপ্রাইজ দিতে
বন্ধুদের সারপ্রাইজ দিতে আমাদের কার না ভালো লাগে? তাই বন্ধুদের সারপ্রাইজ দিতে তাদের গুণকীর্তণ করে শেষে একটা ছোট্ট 'ভালোবাসি' যোগ করে পাঠিয়ে দিন বন্ধুর ইনবক্সে। ব্যস, এবার অপেক্ষায় থাকুক, কখন আপনার বন্ধু এই খুশির খবরটি আপনাদের জানায়। জানানো মাত্রই একটা ট্রিট আদায় করতে ভুলবেন না যেন।

অন্যের ধৈর্য্য পরীক্ষা করতে
স্টুলিশে আপনার মেসেজগুলোর জবাব দিতে ব্যবহার করতে পারেন ফেসবুক। একের পর এক ফেসবুক স্ট্যাটাস দেখে বন্ধুতালিকায় থাকা বন্ধুদের প্রতিক্রিয়াই বলে দেবে কার ধৈর্য কতটুকু। আপনার বন্ধু তালিকায় যদি কোন শত্রু থেকে থাকে, তাহলে প্রতিটি স্ট্যাটাসে তাকে ট্যাগ দিয়ে খানিকটা বিরক্ত করে মজাও নিতে পারেন। এ ক্ষেত্রে অবশ্য ব্লক কিংবা অফলাইনে দু-একটি ঘুষি খেলে কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে না।

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement