Beta

স্লোগানে-আড্ডায় ভোটমুখর মধুর ক্যান্টিনে প্রাণ

১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১২:৪৮ | আপডেট: ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১২:৫৮

বিশ্ববিদ্যালয় সংবাদদাতা
সব ছাত্রসংগঠনের শিক্ষার্থীদের উপস্থিতিতে মুখর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিন। ছবি : এনটিভি

আসন্ন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ছাত্রদল, ছাত্রলীগ, বাম ছাত্রসংগঠনসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্রিয়াশীল ছাত্রসংগঠনের নেতাকর্মীদের আগমনে জমজমাট হয়েছে মধুর ক্যান্টিন।

আজ বুধবার সকাল ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজনীতির ‘আঁতুরঘর’ নামে খ্যাত মধুর ক্যান্টিনে এই দৃশ্য দেখা যায়।

মধুর ক্যান্টিনে গিয়ে দেখা যায়, সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ছাত্রদল আসে। এরপরই ছাত্র ইউনিয়ন, ছাত্র ফেডারেশনসহ আরো কয়েকটি ছাত্রসংগঠন ক্যান্টিনে প্রবেশ করে। তবে এদের আগে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা মধুর ক্যান্টিনে এসে ভেতরের বৃহৎ জায়গা দখল করে নেয়।

ছাত্রদল নেতাদের আগমনে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা তাদের দলীয় স্নোগান দিয়ে মধুর ক্যান্টিনকে অনেকটা জাঁকজমক করে রাখে। তাদের স্লোগানে স্লোগানে ছাত্রদলসহ অন্যান্য সংগঠনের নেতাকর্মীদের বিরক্তিকর ভাব প্রকাশ করতেও দেখা গেছে। যদিও পরে ছাত্রদলও স্লোগান দেয়।

ছাত্রলীগ ‘হাসিনা, হাসিনা’ স্লোগান দিতে থাকে। অন্যদিকে, ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা ‘খালেদা, জিয়া; ‘খালেদা, জিয়া’ স্লোগান দিতে থাকে। তবে বাম সংগঠনগুলোর মোর্চা ‘প্রগতিশীল ছাত্রজোটের’ নেতাকর্মীদের কোনো ধরনের স্লোগান দিতে দেখা যায়নি।

এ বিষয়ে ছাত্রদলের ঢাবি শাখার সহসাংগঠনিক সম্পাদক নাসির উদ্দিন নাসির বলেন, ‘আমরা মধুতে এসেছি। আমাদের সংবাদ সম্মেলন করার কথা ছিল ১১টার দিকে। কিন্তু ছাত্রলীগের স্লোগানে আমরা বিরক্ত। কারো কোনো কথা শোনা যাচ্ছে না।’

এদিকে, ছাত্রদল নেতারা ডাকসুর কার্যক্রম নিয়ে সাড়ে ১০টার দিকে সংবাদ সম্মেলনের ঘোষণা দিলেও ছাত্রলীগের স্লোগানের কারণে তারা সংবাদ সম্মেলন করতে দেরি করে।

এ বিষয়ে ছাত্রলীগের সলিমুল্লাহ মুসলিম হলের সহসভাপতি আরিফ আল হাসান এনটিভি অনলাইনকে বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ে সব সংগঠন তাদের কার্যক্রম চালাবে, এটাই স্বাভাবিক। এখানে সবাই আসবে। সবার আদর্শ নিয়ে ছাত্রবান্ধব রাজনীতি করবে, এই কামনা করছি। ছাত্রলীগ বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নিয়েই তাদের কার্যক্রম চালাচ্ছে।’

ছাত্র ইউনিয়নের ঢাবি শাখার সভাপতি ফয়জুল্লাহ এনটিভি অনলাইনকে বলেন, ‘মধুর ক্যান্টিনে সব সংগঠন আসছে। এটা খুব ভালো লাগছে। সবাই তাদের কার্যক্রম চালাক।’

এরই মধ্যে মধুর ক্যান্টিনের পশ্চিম পার্শ্বে প্রক্টর টিমের দুজন সদস্যকে দেখা যায়। যদিও তাঁরা কিছুক্ষণ থেকে চলে যান।

আগামী ১১ মার্চ ২৫টি পদে ডাকসু নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ২৮ বছর পর অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া এই নির্বাচনের মনোনয়নপত্র ১৯ থেকে ২৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সংগ্রহ করা যাবে।

মনোনয়নপত্র জমা ও বাছাই হবে ২৬ ফেব্রুয়ারি। হলেই ওই দিন সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১২টার মধ্যে মনোনয়নপত্র জমা দিতে হবে। পরে দুপুর ২টা থেকে নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে মনোনয়নপত্র বাছাই করা হবে।

Advertisement