Beta

প্রবাসীদের ভালোবাসায় সিক্ত হলেন মিলন

১৩ নভেম্বর ২০১৮, ১২:২৫ | আপডেট: ১৩ নভেম্বর ২০১৮, ১৩:২০

মালয়েশিয়ার আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগ থেকে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করায় সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী ও বিএনপির আন্তর্জাতিক সম্পাদক ড. আ ন ম এহছানুল হক মিলনকে সংবর্ধনা দিয়েছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা। ছবি : এনটিভি

মালয়েশিয়ায় বসবাসরত প্রবাসীদের ভালোবাসায় সিক্ত হলেন সাবেক চারদলীয় জোট সরকারের শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী ড. আ ন ম এহছানুল হক মিলন। মালয়েশিয়ার আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগ থেকে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন উপলক্ষে মালয়েশিয়াপ্রবাসী বাংলাদেশিরা তাঁর  জন্য সংবর্ধনার আয়োজন করেন।

গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় কুয়ালালামপুরের একটি হোটেলে ওই সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

সংবর্ধনায় মোহাম্মদ রাসেল পাটোয়ারীর সভাপতিত্বে ও মুজাহিদুল ইসলাম মুরাদের পরিচালনায় প্রধান অতিথি ছিলেন অধ্যাপক ড. মো. আবুল বাশার।

এ সময় বক্তব্য দেন অধ্যাপক মেহেদী মাসুদ, অধ্যাপক আবদুল আজিজ, ফয়জুল হক, আরাফাত রহমান কোকো স্মৃতি পরিষদের সভাপতি মোহাম্মদ আলমগীর হোসেন, মালয়েশিয়া বিএনপির সহসভাপতি মোহাম্মদ তালহা মাহমুদ, সহদপ্তর সম্পাদক এ কে এম হাবিবুর রহমান শিশির, বাদল, কারার, এ এম বশির আলম, নজরুল ইসলাম, সোহেল রানা মিল্কি, আবুল কালাম, রফিকুল ইসলাম, আবদুল্লাহ আল মাসুম, আবদুল লতিফ জন, মোস্তফা হোসেন শাহীন, আবদুল ওয়াদুদ খানসহ চাঁদপুরের সর্বস্তরের নেতৃবৃন্দ।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী ও বিএনপির আন্তর্জাতিক সম্পাদক ড. আ ন ম এহছানুল হক মিলন দীর্ঘ চার বছরের সাধনায় এ ডিগ্রি অর্জন করেন বলে জানান। তাঁর গবেষণার বিষয় ছিল ‘মানবিক মূলধন এবং সামাজিক-অর্থনৈতিক উন্নয়ন’।

মালয়েশিয়ায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী ও বিএনপির আন্তর্জাতিক সম্পাদক ড. আ ন ম এহছানুল হক মিলন। ছবি : এনটিভি

এহছানুল হক মিলন বলেন, ‘আল্লাহর অশেষ রহমত এবং দেশবাসীর দোয়ায় এটা আমি সম্পন্ন করেছি। একজন সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী হয়ে আমি এখনো পড়াশোনা করে চলেছি। বাংলাদেশের ছাত্রদের সঙ্গে ক্লাস করেছি। আমি মনে করি, শিক্ষার কোনো শেষ নেই। একমাত্র শিক্ষাই মানুষকে আলোর দিকে নিয়ে যেতে পারে। একটি জাতিকে গঠন করতে হলে শিক্ষার কোনো বিকল্প নেই। আমার শয়নে-স্বপ্নে শুধু শিক্ষা। আজ সেই শিক্ষা ব্যবস্থা ধ্বংস করে ফেলেছে আওয়ামী লীগ সরকার। ভ্যানিটি ব্যাগের মতো অসংখ্য মিথ্যা মামলা দিয়ে আমাকে দমাতে পারেনি। এই সময়টা আমি আমার শিক্ষার কাজে লাগিয়েছি।’

এহছানুল হক মিলন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সুস্বাস্থ্য ও নিঃশর্ত মুক্তি কামনা করেন।

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement