Beta

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে তাণ্ডব, লাঞ্ছিত কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়

২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১২:১৪

কলকাতা সংবাদদাতা

কলকাতার যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার অখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদের (এবিভিপি) একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে গিয়ে লাঞ্ছিত হয়েছেন ভারতের কেন্দ্রীয় পরিবেশ ও বন প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়।

বৃহস্পতিবার বিকেলে ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) ছাত্রসংগঠন এবিভিপি আয়োজিত নবীনবরণ উৎসবে অংশগ্রহণ করতে গিয়ে বিক্ষোভের মুখে পড়েন সুপ্রিয়। তাঁর সঙ্গে বিজেপি নেত্রী অগ্নিমিত্রা পালও ছিলেন। এ সময় বিক্ষোভকারীরা ‘গো ব্যাক বাবুল সুপ্রিয়’ স্লোগান দিতে থাকেন।

শিক্ষার্থীরা বাবুল সুপ্রিয়কে প্রায় চার ঘণ্টা ঘেরাও করে রাখেন। ক্যাম্পাসের গেট থেকেই বাবুলকে বাধা দেন ছাত্রছাত্রীরা। কালো পতাকা দেখিয়ে বিজেপিবিরোধী পোস্টার ও ব্যানার দেখিয়ে চলে তুমুল বিক্ষোভ। শুরু হয় হাতাহাতি ও ধস্তাধস্তি। ওই পরিস্থিতিতে অনুষ্ঠান শেষ করেন বাবুল সুপ্রিয়।

বাবুল সুপ্রিয়ের অভিযোগ, তাঁর চুল ধরে টানা হয়েছে। কিল-ঘুষি মারা হয়েছে। অন্যদিকে, বাবুলের নিরাপত্তারক্ষীর বিরুদ্ধে পাল্টা মারধরের অভিযোগ করেন শিক্ষার্থীরা। 

এ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসেন পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়। কিন্তু রাজ্যপালকেও ঘেরাও করে রাখেন বিক্ষোভকারীরা। পরে রাত ৮টার পর পুলিশের সহয়তায় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বের হয়ে আসেন বাবুল সুপ্রিয়।

জানা যায়, বিক্ষোভকারী শিক্ষার্থীদের মধ্যে নকশালপন্থী ওএসএফআই সমর্থকরা ছিলেন। বিক্ষোভের শুরুতেই যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সুরঞ্জন দাস ও সহ-উপাচার্য প্রবীণ কুমার ঘোষ অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন।

কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রীকে শিক্ষার্থীরা আটকে রেখেছেন, এ খবর পেয়ে পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড় নিজেই বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে চলে আসেন। এরপর তিনি পুলিশি নিরাপত্তায় মন্ত্রীর কাছে পৌঁছান। সে সময় শিক্ষার্থীরা রাজ্যপালের গাড়ির সামনে গিয়ে বসে পড়েন।

তখন বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্য গেট দিয়ে এভিবিপির সমর্থকরা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেতরে ঢুকে বামপন্থী ছাত্রসংগঠন এসএফআইর ইউনিয়ন রুম ভাঙচুর করে। বিশ্ববিদ্যালয়ের গেটের বাইরে আগুন জ্বালিয়ে দেয় তারা। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেতরে থাকা হোস্টেলের শিক্ষার্থীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

এদিকে, অনুষ্ঠানে বাবুল সুপ্রিয়ের সঙ্গে থাকা বিজেপি নেত্রী অগ্নিমিত্রা পাল চরম হেনস্তার শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন। বিজেপি নেত্রী জানান, তাঁর শাড়ি ছিঁড়ে দেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছে। পাশাপাশি তাঁকে চূড়ান্ত হেনস্তা করা হয়েছে। এ ঘটনায় যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের বাম দলীয় ছাত্র রাজনীতির সঙ্গে জড়িত নেতাকর্মী বিরুদ্ধে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেন অগ্নিমিত্রা।

তবে এ ঘটনায় যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে বাবুল সুপ্রিয়র প্ররোচনাতেই এই তাণ্ডব চলেছে বলে অভিযোগ করেন সিপিএমের ছাত্রসংগঠন এসএফআই।

বাবুল সুপ্রিয়কে দোষী সাব্যস্ত করে আজ শুক্রবার রাজ্যজুড়ে বিক্ষোভ ও অবরোধের ডাক দিয়েছে এসএফআই।

Advertisement