Beta

এইচএসসির ফল

বিদেশে পাসের হার ৯২.২৮

১৯ জুলাই ২০১৮, ১৩:১৩ | আপডেট: ১৯ জুলাই ২০১৮, ১৬:০৭

নিজস্ব প্রতিবেদক

উচ্চ মাধ্যমিক (এইচএসসি) ও সমমান পরীক্ষায় বিদেশের সাতটি কেন্দ্রে গড় পাসের হার ৯২ দশমিক ২৮ শতাংশ।  

আজ বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ শিক্ষা বোর্ডের প্রধানদের নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে ফলের অনুলিপি হস্তান্তর করেন।

এ সময় জানানো হয়েছে, ১০ শিক্ষা বোর্ডে পাসের গড় হার  ৬৬ দশমিক ৬৪ শতাংশ। এ বছর মোট পাস করেছে আট লাখ ৫৮ হাজার ১০১ জন। এর মধ্যে জিপিএ ৫ পেয়েছে ২৯ হাজার ২৬২ জন।

সারা দেশের দুই হাজার ৫৪১টি কেন্দ্রে এবার এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় ১২ লাখ ৮৮ হাজার ৭৫৭ শিক্ষার্থী অংশ নেয়। এর মধ্যে ছাত্রী ছয় লাখ ৮০ হাজার ৮৮৪ জন আর ছাত্র ছয় লাখ সাত হাজার ৮৭৩ জন। এর মধ্যে আটটি সাধারণ শিক্ষা বোর্ড আর একটি কারিগরি ও একটি মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড।

বিদেশে থাকা সাতটি কেন্দ্রে এবার পরীক্ষা দিয়েছে মোট ২৮৫ জন। এর মধ্যে পাস করেছে ২৬৩ জন। পাসের হার ৯২ দশমিক ২৮ শতাংশ।

এর মধ্যে জিপিএ ৫ পেয়েছে ১৬ জন। একটি প্রতিষ্ঠান থেকে শতভাগ শিক্ষার্থী পাস করেছে। কেউ পাস করেনি এমন কোনো প্রতিষ্ঠান বিদেশে নেই।

বাসসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, প্রকাশিত ফলে আবুধাবিতে বাংলাদেশ ইসলামিয়া স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে ১৭ জন অংশ নিয়ে সবাই পাস করেছে। অবশ্য কেউ এখান থেকে জিপিএ ৫ পায়নি।

মানামায় অবস্থিত বাংলাদেশ স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে ১৮ শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিয়ে ১৭ জন পাস করেছে।

এদিকে সৌদি আরবের রিয়াদে বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে ৮৩ জন অংশ নিয়ে ৭৭ জন পাস করেছে। এখানে ১১ পরীক্ষার্থী জিপিএ ৫ পেয়েছে।

কাতারের দোহার বাংলাদেশ মাশহুর-উল-হক মেমোরিয়াল হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে ৫৪ জন অংশ নিয়ে ৫০ জন পাস করেছে। এখানে জিপিএ ৫ পেয়েছে দুজন।

লিবিয়ার ত্রিপোলির বাংলাদেশ কমিউনিটি স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্র থেকে ১২ জন অংশ নিয়ে ১১ শিক্ষার্থী পাস করেছে।

জেদ্দার বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে ৭৮ জন অংশ নিয়ে ৭১ জন পাস করেছে। এখানে জিপিএ ৫ পেয়েছে দুই পরীক্ষার্থী।

এদিকে আবুধাবির শেখ খলিফা বিন জায়েদ বাংলাদেশ ইসলামিয়া স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্র থেকে ২৩ জন অংশ নিয়ে ২০ জন পাস করেছে। তাদের মধ্যে একজন জিপিএ ৫ পেয়েছে।

আজ দুপুর ১টায় শিক্ষামন্ত্রী সংবাদ সম্মেলন করে আনুষ্ঠানিক ফল ঘোষণা করবেন। তারপরই শিক্ষার্থীরা নিজেদের ফল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বা অনলাইনে জানতে পারবে।

গত ২ এপ্রিল শুরু হয় এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা। তত্ত্বীয় পরীক্ষা চলে ১৩ মে পর্যন্ত। আর ১৪ থেকে ২৩ মের মধ্যে অনুষ্ঠিত হয় ব্যবহারিক পরীক্ষা।

বেশ কয়েক বছর ধরে পাবলিক পরীক্ষার প্রশ্নপত্র সামাজিক যোগাযোগের বিভিন্ন মাধ্যমে ফাঁস নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা ছিল তুঙ্গে। কিন্তু এবার প্রশ্ন ফাঁসের কোনো ধরনের অভিযোগ প্রায় ছিল না বলেই চলে।

যেভাবে মোবাইল ফোনে পাওয়া যাবে ফল

আটটি সাধারণ শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষার্থীরা মোবাইল ফোনে ফল পেতে HSC লিখে স্পেস দিয়ে বোর্ডের প্রথম তিন অক্ষর স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে ২০১৮ লিখতে হবে। এরপর ১৬২২২ নম্বরে এসএমএস পাঠাতে হবে। ফিরতি এসএমএসে মিলবে ফল।

মাদ্রাসা বোর্ডের শিক্ষার্থীরা HSC লিখে স্পেস দিয়ে MAD স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে ২০১৮ লিখে ১৬২২২ নম্বরে এসএমএস পাঠাবেন। পরের এসএমএসে তাঁরা ফল পেয়ে যাবেন।

কারিগরি শিক্ষা বোর্ড ফল জানতে HSC লিখে স্পেস দিয়ে TEC লিখে স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে ২০১৮ লিখে ১৬২২২ নম্বরে এসএমএস পাঠাতে হবে। পরের এসএমএসে ফল জেনে যাবেন শিক্ষার্থীরা।

এ ছাড়া এনটিভি অনলাইনের https://www.ntvbd.com/result/hsc-result-2018/ এই লিংকের মাধ্যমেও পরীক্ষার ফল জানা যাবে। আনুষ্ঠানিকভাবে নির্ধারিত ওয়েবসাইট ও নিজ নিজ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে ফল জানতে পারবেন শিক্ষার্থীরা।

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement