Beta

কোটা বাতিলের প্রতিবাদে মহাসড়ক অবরোধ অব্যাহত

০৭ অক্টোবর ২০১৮, ২১:১৩

ইবি সংবাদদাতা
সরকারি চাকরিতে ৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা কোটা বহালের দাবিতে আজ রোববার কুষ্টিয়া-খুলনা মহাসড়কে আগুন জ্বালিয়ে অবরোধ করে ইবি মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তানরা। ছবি : এনটিভি

প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির সরকারি চাকরিতে মুক্তিযোদ্ধা কোটা বাতিলের প্রতিবাদে তৃতীয় দিনের মতো কুষ্টিয়া-খুলনা মহাসড়ক অবরোধ অব্যাহত রেখেছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তানরা। আজ রোববার দুপুর ১২টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ‘আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান’ ব্যানারে ক্যাম্পাসের ফটকের সামনে দীর্ঘ চার ঘণ্টা সড়ক অবরোধ করে তারা। এর ফলে সড়কের উভয় দিকে সৃষ্টি হয় তীব্র যানজট।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, কোটা বাতিলের প্রতিবাদে ও ৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা কোটা বহালের দাবিতে আজ চার ঘণ্টা কুষ্টিয়া-খুলনা মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তানরা। অবরোধের একপর্যায়ে সড়কে আগুন জ্বালিয়ে দেয় তারা। এর ফলে সড়কের উভয়পাশে সৃষ্টি হয় তীব্র যানজট।

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়টির শিক্ষক-শিক্ষার্থী এবং কর্মকর্তা-কর্মচারী বহনকারী দুটি গাড়ি অবরোধে আটকা পড়ে। ফলে চরম ভোগান্তিতে পড়েন শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারী ও সড়কের যাত্রীরা।

এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মাহবুবর রহমান ও ইবি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রতন শেখ ঘটনাস্থলে গিয়ে অবরোধ তুলে দিতে ব্যর্থ হন। পরে বিকেল ৪টার দিকে অবরোধ প্রত্যাহার করে শিক্ষার্থীরা।

প্রক্টর অধ্যাপক ড. মাহবুবর রহমান বলেন, ‘শিক্ষার্থীরা শান্তিপূর্ণভাবে কর্মসূচি শেষ করেছে। তবে দীর্ঘ সময় ধরে অবরোধের কারণে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহনগুলো সঠিক সময়ে ক্যাম্পাস থেকে ছেড়ে যেতে পারেনি।’

আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা জানিয়েছে, সরকারি চাকরিতে ৩০ শতাংশ মুক্তিযোদ্ধা কোটা বহাল রাখতেই হবে। অন্যথায় আন্দোলন আরো কঠিন আকার ধারণ করবে।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার ও শনিবার একই দাবিতে কুষ্টিয়া-খুলনা মহাসড়ক অবরোধ করেছিল বিশ্ববিদ্যালয়ের মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তানরা।

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement