Beta

আপনার জিজ্ঞাসা

কবরস্থানে কোরআন তিলাওয়াত করা কি জায়েজ?

০৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৩:৫১

অনলাইন ডেস্ক

 

নামাজ, রোজা, হজ, জাকাত, পরিবার, সমাজসহ জীবনঘনিষ্ঠ ইসলামবিষয়ক প্রশ্নোত্তর অনুষ্ঠান ‘আপনার জিজ্ঞাসা’। জয়নুল আবেদীন আজাদের উপস্থাপনায় এনটিভির জনপ্রিয় এ অনুষ্ঠানে দ‍র্শকের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন বিশিষ্ট আলেম ড. মুহাম্মদ সাইফুল্লাহ।

আপনার জিজ্ঞাসার ৫৭৩তম পর্বে কবরস্থানে কোরআন তিলাওয়াত করা জায়েজ কি না, সে বিষয়ে নাটোর থেকে টেলিফোনে জানতে চেয়েছেন জিয়াউর রহমান। অনুলিখন করেছেন জান্নাত আরা পাপিয়া।

প্রশ্ন : আমি আম্মার কবরে যখন যাই, তখন সেখানে ছোট সুরার বই দেখে সুরা ইয়াসিন তিলাওয়াত করি। এভাবে কবরস্থানে কোরআন তিলাওয়াত করা জায়েজ কি না?

উত্তর : মৃতদের আপনি সুরা ইয়াসিন শোনানোর জন্য যতই চেষ্টা করুন না কেন, শোনাতে পারবেন না। আল্লাহ কোরআনুল কারিমের মধ্যে রাসুল (সা.)-কে লক্ষ করে বলেছেন, আপনি কখনো ‍মৃতদের শোনাতে পারবেন না। রাসুল (সা.) যেখানে মৃতদের শোনাতে পারবেন না, সেখানে আপনার কবরস্থানে সুরা ইয়াসিন শোনানো একেবারেই ভুল কাজ।

কবরস্থান কোরআন তিলাওয়াতের জায়গা নয়। কবরে কবরস্থ যাঁরা আছেন, তাঁদের জন্য দোয়া করার জায়গা। যদি কোনো কারণে আপনি কবরস্থানে যান, তাহলে আপনি মৃতদের জন্য দোয়া করবেন। রাসুল (সা.) বিভিন্ন দোয়া যেভাবে আমাদের শিক্ষা দিয়েছেন। সেই দোয়া আপনি মৃত ব্যক্তির জন্য পড়বেন। তাঁদের সমস্ত আমল বন্ধ হয়েছে। এখন যদি কিছু দোয়া পাঠান তাঁদের জন্য, তাহলে তাঁরা উপকৃত হবেন।

কবরস্থানে গিয়ে সুরা ফাতেহা, সুরা ইখলাস, সুরা ইয়াসিন তিলাওয়াত করার কোনো প্রয়োজন নেই। এগুলো রাসুল (সা.)-এর হাদিস দ্বারা সাব্যস্ত হয়নি। নবম হিজরিতে ওহুদের যুদ্ধে যাঁরা শহীদ হয়েছেন, রাসুল (সা.)  তাঁদের কবরে গিয়ে সুনির্দিষ্টভাবে সবার নাম ধরে দোয়া করেছেন। রাসুল (সা.) কোরআনের একটি আয়াতও সেখানে তিলাওয়াত করেননি। কবরে কোরআন তিলাওয়াত করার কাজটি সুন্নাহ দ্বারা সাব্যস্ত হয়নি।

Advertisement