Beta

কর্নাটকে এগিয়ে মোদির দল, আটকাতে মরিয়া কংগ্রেস

১৫ মে ২০১৮, ১৯:১৯

কলকাতা সংবাদদাতা

ভারতের কর্নাটক রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফলে এগিয়ে আছে দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির দল ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি)। তবে সরকার গঠনের দৌড়ে আছে কংগ্রেস ও জনতা দলও (জেডি-এস)। এ নিয়ে চলছে টানটান উত্তেজনা।

গত ১২ মে কর্নাটকে বিধানসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। আজ মঙ্গলবার ভোটগণনা শুরু হয়। সর্বশেষ পাওয়া ফলাফলে দেখা যায় বিজেপি পেয়েছে ১০৪টি আসন, কংগ্রেস পেয়েছে ৭৮টি এবং জেডি (এস) পেয়েছে ৩৮টি আসন। অন্যান্যরা পেয়েছে দুটি আসন।

২২৪টি আসনের ওই বিধান সভায় সরকার গঠনের জন্য প্রয়োজন ১১২টি আসন। দুইটি আসনের ভোট গ্রহণ পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে। ওই ১১২টি আসন মেলানোর জন্য বিজেপি ও কংগ্রেস শিবিরে বিরাজ করছে টানটান উত্তেজনা। কংগ্রেস এরই মধ্যে জেডির (এস) সঙ্গে জোট করে সরকার গঠনের জন্য দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছে।

সরকার গঠনের দৌড়ে থাকলেও কর্নাটকে কিন্তু মোদির কাছে হেরেছে রাহুল গান্ধীর কংগ্রেস।  ২০১৩ সালে অনুষ্ঠিত বিধানসভা নির্বাচনে কংগ্রেস পেয়েছিল ১২২টি আসন। বিজেপি পেয়েছিল ৪০টি আসন। ওই সময় কর্নাটকে কংগ্রেস এককভাবে সরকার গঠন করে। তখন কর্নাটকের মুখ্যমন্ত্রী হন সিদ্ধারমায়া। তবে এবার বিজেপির কাছে পরাজিত হওয়ার পর সরকার গঠনের দৌড়ে জেডির দিকে তাকিয়ে থাকতে হচ্ছে কংগ্রেসকে। জেডি (এস) হচ্ছে ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী এইচডি দেবগৌড়ার নেতৃত্বাধীন দল।

কর্নাটক বিধানসভা নির্বাচনে বিভিন্ন বুথ ফেরত সমীক্ষা বলেছিল এবারে ত্রিশঙ্কু হতে চলেছে কর্নাটক বিধানসভা। তবে জোটের সম্ভাবনাকে উড়িয়ে দিয়ে বিজেপি নেতা সদানন্দ গৌড়া জানিয়েছেন, তাঁরা একাই সরকার গড়তে সক্ষম হবেন। কর্নাটকের বিভিন্ন জায়গায় বিজয়োল্লাস শুরু করেছে বিজেপি কর্মী সমর্থকরা।

তবে কর্নাটক দখলের ক্ষেত্রে বিজেপি ম্যাজিক ফিগারের কিছুটা নিচে থমকে দাঁড়ানোর ফলে এখন টানটান উত্তেজনা কংগ্রেস ও বিজেপি শিবিরে। যেকোনো মূল্যে বিজেপিকে ঠেকাতে মরিয়া কংগ্রেস। কংগ্রেসের তরফে জেডি(এস)এর শর্ত মেনে জেডি(এস)এর কুমারস্বামীকে মুখ্যমন্ত্রী তৈরি করতেও রাজি হয়েছে কংগ্রেস। জেডি(এস) এর সঙ্গে জোটে যাওয়ার ক্ষেত্রে গুলাম নবী আজাদের সঙ্গে এরইমধ্যে কথা বলেছেন কংগ্রেসের নেত্রী সোনিয়া গান্ধী। কর্নাটকে কংগ্রেস ও জেডি(এস) মিলিত আসন হতে পারে ১১৩ থেকে  ১১৬ পর্যন্ত। যা ম্যাজিক ফিগারের থেকে একটু বেশি। সোনিয়ার সঙ্গে পরামর্শ করে কংগ্রেস নেতা গুলাম নবী আজাদ কর্নাটকে সরকার গঠনের জন্য জেডিকে (এস) সমর্থনের কথা ঘোষণা করে ফেলেছেন। তিনি জানিয়েছেন, জেডি (এস) নেতা কুমারস্বামীকে মুখ্যমন্ত্রী করতে রাজ্যপালকে লিখিত প্রস্তাব দেবে কংগ্রেস।

অন্যদিকে, জেডির(এস) মুখপাত্র তানভীর আহমেদের দাবি, কর্নাটক রাজ্যের মানুষ চায় যে, তাঁদের দলের সরকার গঠিত হোক। এই ব্যাপারে কংগ্রেসের প্রস্তাব দলের শীর্ষ নেতৃত্ব স্বীকার করেছে। জেডির (এস) দাবি, আগামী ১৮ মে শপথগ্রহণ হবে তাঁদের জোট সরকার।

বিজেপিকে আটকাতে এ ক্ষেত্রে জেডি (এস) কে যথাসময়ে সমর্থনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে কংগ্রেস। এর আগে গোয়ার ক্ষেত্রে সিদ্ধান্ত গ্রহণে দেরি হওয়ার কারণে কংগ্রেস সরকার গঠন করতে পারেনি। সেই ভুল থেকে কংগ্রেস শিক্ষা নিয়েছে বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল। তাই এদিন ফলাফল প্রকাশের আগেই কংগ্রেসের গুলাম নবী ও অশোক গেহলটকে মাঠে নামিয়ে দেন সোনিয়া। দুজনে গতকালই ব্যাঙ্গালুরুতে পৌঁছে যান। আজ ফলাফল ঘোষণার মধ্যেই দ্রুত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

অন্যাদিকে, ম্যাজিক ফিগারের নিচে বিজেপি থেকে গেলে সেক্ষেত্রে অন্যান্য দলের থেকে এবং জেডি(এস)থেকে বিধায়ক ভাঙ্গানোর খেলা বিজেপি খেলতে পারে বলে রাজনৈতিক মহলের ধারণা। এদিকে কর্নাটকে সরকার গঠনের লক্ষ্যে রাজভবনে রাজ্যপালের সঙ্গে এরইমধ্যে দেখা করেছেন বিজেপির  ইয়েদুরাপ্পা। সূত্রের খবর সরকার গঠনের জন্য রাজ্যপালের কাছে এক সপ্তাহ সময় চেয়েছে বিজেপি। রাজভবন থেকে বেরিয়ে ইয়েদুরাপ্পা বলেন, ‘একক বৃহত্তম দল হিসেবে বিজেপিকে সরকার গঠনের সুযোগ দেওয়া হোক।’ রাজ্যপালের কাছে এমনই দাবি জানিয়েছেন তিনি। ইয়েদুরাপ্পার রাজভবন ছাড়ার কয়েক মিনিটের মধ্যেই সেখানে যান জেডিএস নেতা এইচডি কুমারস্বামী। কংগ্রেসের সমর্থনে সরকার গঠনের দাবিও তিনি জানাবেন বলে জানা যায়।

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement