Beta

জম্মু-কাশ্মীরে হাতে অস্ত্র দেখলেই গুলি : সেনাবাহিনী

১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৮:২৭

কলকাতা সংবাদদাতা
ভারতের সেনাবাহিনীর কমান্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল কানওয়ালজিৎ সিং ধিল্লোঁ। ছবি : সংগৃহীত

ভারতের জম্মু–কাশ্মীরে কাউকে অস্ত্র হাতে দেখলেই গুলি করা হবে। পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলার পর এভাবেই কড়া বার্তা দিল ভারতীয় সেনাবাহিনী।

আজ মঙ্গলবার সকালে ভারতের জম্মু-কাশ্মীরের শ্রীনগরে ভারতীয় সেনাবাহিনী, সিআরপিএফ ও জম্মু-কাশ্মীর রাজ্য পুলিশ এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে।

সংবাদ সম্মেলনে সেনাবাহিনীর কমান্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল কানওয়ালজিৎ সিং ধিল্লোঁ বলেন, ‘আমি স্পষ্টভাবে জানাতে চাই, পুলওয়ামা হামলার ১০০ ঘণ্টার মধ্যেই পাকিস্তান থেকে পরিচালিত জইশ-ই-মুহম্মদকে উপত্যকার মাটি থেকে সম্পূর্ণ উপড়ে ফেলা হয়েছে। এরপর যেই হাতে অস্ত্র তুলবে, তাকেই গুলি করে নিশ্চিহ্ন করে দেওয়া হবে। উপত্যকায় কোনো রকম নাশকতা আর বরদাস্ত করা হবে না।’

সেনাবাহিনীর কমান্ডার আরো বলেন, ‘যারা হাতে অস্ত্র তুলে নেবে, তাদের ক্ষেত্রে সন্দেহ নেই যে, তাদের পেছনে পাকিস্তানি সেনা আর আইএসআই জড়িত। জইশ-ই-মুহম্মদ পাকিস্তানি সেনার সন্তানমাত্র। তাই কাশ্মীরের মায়েদের কাছে অনুরোধ করব, যে সন্তানরা বিপথগামী হয়ে সন্ত্রাসবাদের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে, তাদের মূলস্রোতে ফিরিয়ে আনুন। সন্তানদের বোঝান, তারা যেন অবিলম্বে সন্ত্রাসবাদের পথ ছেড়ে আত্মসমর্পণ করে। তাহলে সামাজিক সুরক্ষা মিলবে।’

জম্মু–কাশ্মীর পুলিশের আইজি এসপি সোনি বলেছেন, ‘সাম্প্রতিককালে সন্ত্রাসবাদী ‌নিয়োগ উপত্যকায় গুরুত্বপূর্ণভাবে কমেছে। গত তিন মাসে আমরা কোনো নিয়োগ হতে দেখিনি। অবশ্যই এই ঘটনায় উপত্যকার পরিবারগুলোর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা আছে। জম্মু-কাশ্মীর উপত্যকার পরিবার এবং সম্প্রদায়কে অনুরোধ করব, আগামী দিনে সন্ত্রাসবাদের দলে বিপথগামী যুবকদের এই নিয়োগ আরো কম করানোর চেষ্টা করতে।

সংবাদ সম্মেলনে উপত্যকায় যেকোনো এনকাউন্টার চলাকালীন ঘটনাস্থল থেকে দূরে থাকার জন্য উপত্যকাবাসীর কাছে অনুরোধ জানানো হয়। আর তা না হলে ক্ষয়ক্ষতির সম্ভাবনা বাড়তে পারে।

Advertisement