Beta

কেন পালালেন দুবাই শাসকের স্ত্রী?

০৩ জুলাই ২০১৯, ১২:০৬ | আপডেট: ০৩ জুলাই ২০১৯, ১২:৩২

অনলাইন ডেস্ক

দুবাইয়ের শাসক শেখ মোহাম্মদ আল মাখতুমের একাধিক স্ত্রীর একজন প্রিন্সেস হায়া বিনতে আল-হুসেইন। এ বছরের শুরুর দিকে দেশ ছেড়ে পালিয়েছিলেন তিনি। এখন বলছেন, প্রাণভয়েই স্বামীকে ছেড়ে দুবাই থেকে পালিয়েছেন তিনি।

বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ৬৯ বছর বয়সী শেখ মোহাম্মদ আল মাখতুম একজন বিলিওনেয়ার। তিনি ইনস্টাগ্রামে সম্প্রতি কয়েকটি কবিতা পোস্ট করে একজন নারীকে বিশ্বাসঘাতকতার জন্য দায়ী করেছেন।

জর্ডান বংশোদ্ভূত ও ব্রিটেনে পড়াশোনা করা ৪৫ বছর বয়সী প্রিন্সেস হায়া ২০০৪ সালে শেখ মোহাম্মদের সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। দুবাই শাসকের ষষ্ঠ ও সর্বকনিষ্ঠ স্ত্রী এই প্রিন্সেস হায়া।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, একাধিক স্ত্রীর ঘরে শেখ মোহাম্মদ আল মাখতুমের ২৩টি সন্তান রয়েছে।

দুবাই থেকে পালিয়ে প্রিন্সেস হায়া প্রথমে যান জার্মানি। সেখানে রাজনৈতিক আশ্রয় চেয়ে ব্যর্থ হয়ে যান লন্ডনে।

হায়া এখন থাকছেন লন্ডনের কেনসিংটন প্যালেস গার্ডেনসের একটি বাড়িতে। বাড়ির মূল্য প্রায় ১০ কোটি ৭০ লাখ ডলার।

এখন আদালতে আইনি লড়াইয়ের প্রস্তুতি নিচ্ছেন প্রিন্সেস হায়া।

তবে এটা কিন্তু নিছক ঘর ছেড়ে স্ত্রীর চলে যাওয়ার গল্প নয়। এ ঘটনার একটি আন্তর্জাতিক মাত্রা কিন্তু আছে।

রাজকুমারী হায়া ইংল্যান্ডের ব্রায়ানস্টন স্কুলের গণ্ডি পেরিয়ে পড়াশোনা শেষ করেছেন অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। এখন তিনি ব্রিটেনেই থাকতে চাইছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

কিন্তু হায়ার স্বামী যদি নিজের স্ত্রীকে দুবাইতে ফেরত পাঠানোর দাবি করেন, তাহলে বিপাকে পড়বে ব্রিটেন। কারণ, সংযুক্ত আরব আমিরাতের সঙ্গে ব্রিটেনের যে ঘনিষ্ঠ মিত্রতা!

এদিকে এ ঘটনায় বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়েছে জর্ডানও। প্রিন্সেস হায়া সম্পর্কে জর্ডানের বাদশাহ আবদুল্লাহর সৎবোন। সংযুক্ত আরব আমিরাতে কাজ করে দেশে রেমিট্যান্স পাঠাচ্ছেন প্রায় আড়াই লাখ জর্ডান নাগরিক। তাই দুবাইয়ের সঙ্গে কোনোভাবেই ঝামেলায় যেতে চাইবে না জর্ডান।

Advertisement