Beta

মাদক সেবনে বাধা দেওয়ায় কলেজছাত্র খুন

১৫ মে ২০১৯, ১৪:১৫ | আপডেট: ১৫ মে ২০১৯, ১৪:১৭

মো. মাসুদ পারভেজ, নোয়াখালী
নোয়াখালীর চৌমুহনীতে ছুরিকাঘাতে মঙ্গলবার রাতে মো. যোবায়ের নামের এক কলেজশিক্ষার্থী নিহত হন। ছবি : সংগৃহীত

নোয়াখালীর চৌমুহনীতে মসজিদে তারাবির নামাজ পড়ে বাড়ি ফেরার পথে দুর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাতে মো. যোবায়ের নামের এক কলেজশিক্ষার্থী নিহত হয়েছেন।

গতকাল মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে চৌমুহনীর পৌর এলাকার আলীপুর গ্রামে বেগমগঞ্জ উপজেলা সার্কেল এসপি অফিসের পেছনে আপন নিবাস হাউজিং এলাকায় ওই ঘটনা ঘটে।  

নিহত যোবায়ের সেনবাগ উপজেলার বীজবাগ ইউনিয়নের কাজিরখীল গ্রামের শেখ মোশারফ হোসেন বেলালের ছেলে। আট বছর ধরে তাঁরা আপন নিবাস হাউজিংয়ে ভাড়া বাসায় বসবাস করছেন। যোবায়ের নোয়াখালী সরকারি কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্র। তিনি ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন বলে জানা যায়।

পুলিশ ও নিহতের পরিবার জানায়, কয়েক দিন ধরে যোবায়েরের একদল বখাটে সহপাঠী নিয়মিত আপন নিবাস হাউজিংয়ের সামনে মাদক সেবন ও আড্ডা দিয়ে আসছিল। যোবায়ের তাদের নানাভাবে বাধা দেওয়ার চেষ্টা করলে দ্বন্দ্বের সূত্রপাত হয়। তারই জের ধরে গতকাল রাতে তারাবির নামাজ পড়ে বাড়ি ফেরার পথে যোবায়েরের গতিরোধ করে তাকে তুলে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে দুষ্কৃতকারীরা। ওই সময় দৌড়ে পালাবার চেষ্টা করলে যোবায়েরকে ধরে প্রথমে পিটুনি ও পরে বুকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায় তারা।

পরে এলাকাবাসী যোবায়েরকে উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নেওয়ার পথে তাঁর মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় ছাত্রলীগ ও যুবলীগ কর্মীসহ মোট আটজনকে গ্রেপ্তারের কথা জানিয়েছে বেগমগঞ্জ থানা পুলিশ।

বেগমগঞ্জ সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শাহজাহান শেখ বলেন, ‘নিহত যোবায়ের ও ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের অনেকে একে অপরের বন্ধু ও সহপাঠী। কিন্তু দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে তাদের মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। তারই জের ধরে গত রাতে ঘটনাস্থলে উভয় পক্ষের কথাকাটাকাটির একপর্যায়ে মারামারি হয়। সে সময় কেউ একজন যোবায়েরকে ছুরিকাঘাত করে। পরে তাঁকে উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।’ এ ঘটনায় থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান তিনি।

Advertisement