Beta

ডাকসু নির্বাচন

রিটের পর ভিসির কার্যালয় অবরোধে ছাত্রদল

২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৪:০৩ | আপডেট: ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৪:২৭

বিশ্ববিদ্যালয় সংবাদদাতা
আজ রোববার দুপুরে ডাকসু নির্বাচন নিয়ে বিভিন্ন দাবিতে ছাত্রদল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের কার্যালয় অবরোধ করে। ছবি : এনটিভি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনের ভোটকেন্দ্র হলের বাইরে একাডেমিক ভবনে করা, বিশ্ববিদ্যালয়ে সহাবস্থান নিশ্চিত করাসহ সাত দফা দাবিতে উপাচার্যের কার্যালয় ঘেরাও করেছেন ছাত্রদলের নেতারা।

আজ রোববার দুপুর পৌনে ১২টার দিকে মধুর ক্যান্টিন থেকে একটি মিছিল বের করেন সংগঠনের নেতাকর্মীরা। পরে উপাচার্যের কার্যালয় ঘেরাও করেন তাঁরা।

ছাত্রদল এরই মধ্যে জানিয়েছে, এই নির্বাচনে তাঁরা অংশ নেবেন। তবে নিজেদের দাবিতে অনড় থেকে আন্দোলনও চালিয়ে যাবেন তাঁরা। এর মধ্যেই আজ সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের ছাত্রী ও ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় ছাত্রীবিষয়ক সম্পাদক ফাহমিদা মজিদ ডাকসু নির্বাচন স্থগিত চেয়ে হাইকোর্টে একটি রিট করেছেন। আগামীকাল এই রিটের ওপর শুনানি হতে পরে।

ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সভাপতি রাজীব আহসান, সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদলের সভাপতি আল মেহেদী তালুকদার ও সাধারণ সম্পাদক আবুল বাশার সিদ্দিকী এতে নেতৃত্ব দেন। এ ছাড়া সংগঠনের বিভিন্ন স্তরের দেড় শতাধিক নেতাকর্মী এতে অংশ নিয়েছেন।

ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা সেখানে ‘ভোটার লিস্টে বৈষম্য মানি না, মানব না’, ‘সিকিম নয়, ভুটান নয়, এটা সোনার বাংলাদেশ’, ‘হলে হলে ভোটকেন্দ্র, মানি না মানব না’, ‘প্রহসনের নির্বাচন, মানব না মানব না’, ‘ডাকসু না প্রহসন’ বলে স্লোগান দেন।

এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ সম্পাদক আবুল বাশার সিদ্দিকী বলেন, ‘আমরা নির্বাচনের তারিখ পুনরায় পেছানোর দাবি এবং ভোটকেন্দ্র হলের বাইরে রাখার দাবিসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের কাছে সাত দফা দাবি জানিয়েছি। কিন্তু প্রশাসন আমাদের কোনো আশ্বাস দেয়নি ৷ আমরা এখনো প্রশাসনকে দাবিগুলো মেনে নেওয়ার অনুরোধ জানাচ্ছি।’

২৮ বছর পর আগামী ১১ মার্চ এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। তফসিল অনুযায়ী ২৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ডাকসু নির্বাচনের মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করা যাবে। ২৬ ফেব্রুয়ারি মনোনয়ন ফরম জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ও মনোনয়ন বাছাই।

নির্বাচনে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ২৮ ফেব্রুয়ারি। যাচাই-বাছাইয়ের পর ৩ মার্চ হলের নোটিশ বোর্ড ও ওয়েবসাইটে প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করা হবে। ভোট গ্রহণের জন্য ১১ মার্চ সকাল ৮টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত সময় নির্ধারণ করা হয়েছে।

Advertisement