Beta

প্রথম মৌসুমেই বাজিমাত করলেন রোনালদো

১৯ মে ২০১৯, ১৪:৫১

স্পোর্টস ডেস্ক

রাশিয়া বিশ্বকাপ শেষে হুট করেই ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো রিয়াল মাদ্রিদ ছেড়ে যাবেন, এটা যেন কারো দূর কল্পনাতেও ছিল না। কিন্তু রিয়ালের হয়ে টানা তিনটি চ্যাম্পিয়নস লিগ জেতার নজিরবিহীন রেকর্ড গড়লেও বিশ্বকাপের পরপরই ইতালিতে পাড়ি জমান রোনালদো। যোগ দেন ইতালিয়ান চ্যাম্পিয়ন জুভেন্টাসে। জুভদের হয়ে প্রথম মৌসুমেই সাফল্য পেয়েছেন এই পর্তুগিজ তারকা। আয়াক্সের কাছে অপ্রত্যাশিত পরাজয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগ থেকে বিদায় নিলেও সিরি-এ’র শিরোপাটা ঠিকই জিতে নেয় জুভেন্টাস। আর ২২ গোল করে দলের সাফল্যের প্রধান কারিগর ছিলেন রোনালদো। দুর্দান্ত এই ফর্মের পুরস্কার পেয়েছেন এই পর্তুগিজ তারকা। সিরি-এ’র এবারের বর্ষসেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়েছেন তিনি।

ইনজুরির কারণে এবারের মৌসুমে জুভদের হয়ে কয়েকটা ম্যাচ খেলতে পারেননি রোনালদো। তবে যে কটি ম্যাচ খেলেছেন, সেই ম্যাচগুলোতে নিজের ঝলক ঠিকই দেখিয়েছেন। নিজে ২২ গোল করার পাশাপাশি সতীর্থদের ১১ গোলে বলের জোগানদাতা ছিলেন এই পর্তুগিজ তারকা। ইতালিয়ান বর্ষসেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার জেতার ক্ষেত্রে তাই রোনালদোই ছিলেন ফেভারিট। শনিবার এ মৌসুমের ‘মোস্ট ভ্যালুয়েবল প্লেয়ার’ হিসেবে রোনালদোর নাম ঘোষণা করে সেটা নিশ্চিত করে সিরি-এ কর্তৃপক্ষ।

প্রথম মৌসুমে খেলতে গিয়েই সিরি-এ’র সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার জেতার কৃতিত্বের বড় একটা অংশ জুভেন্টাসের কোচ অ্যালেগ্রিকে দিয়েছেন রোনালদো। পুরস্কার পাওয়ার প্রাথমিক প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে কোচ অ্যালেগ্রিকে ধন্যবাদ জানিয়ে পর্তুগিজ তারকা বলেন, ‘আপনার সঙ্গে কাজ করতে পারা আমার জন্য ভীষণ গৌরবের। মৌসুমে নিজের সব কৃতিত্বের জন্য ধন্যবাদ জানাই আপনাকে।’

আগামী মৌসুমে জুভেন্টাসের ডাগআউটে কোচ হিসেবে আর দেখা যাবে না ম্যাসিমিলিয়ানো অ্যালেগ্রিকে। এখন পর্যন্ত নিশ্চিত করে কিছু না বললেও আগামী মৌসুমে অ্যালেগ্রির সম্ভাব্য ঠিকানা হিসেবে বায়ার্ন মিউনিখ, চেলসি অথবা ফরাসি জায়ান্ট পিএসজির নাম বলছে অনেকেই। বিদায়বেলায় ইতালিয়ান এই কোচকে ভালো কোচের পাশাপাশি সুন্দর মনের মানুষ হিসেবেও আখ্যা দেন রোনালদো। অ্যালেগ্রির প্রশংসা করে বলেন, ‘আমরা একটা মাত্র মৌসুম শুধু একসঙ্গে খেলেছি। কিন্তু এই এক মৌসুমেই বুঝেছি, আপনি মানুষ ও কোচ হিসেবে কতটা অসাধারণ।’

চলতি মৌসুমে ইতালিয়ান লিগের সেরা গোলরক্ষক নির্বাচিত হয়েছেন ইন্টার মিলানের স্লোভেনিয়ান গোলরক্ষক সামির হানডানোভি। সেরা ডিফেন্ডার হয়েছেন নাপোলির সেনেগালিজ ডিফেন্ডার কালিদু কোলিবালি। সেরা মিডফিল্ডারের পুরস্কার গেছে লাৎসিওর সার্বিয়ান মিডফিল্ডার সার্জিও মিলিনকোভিচ-সাভিচের দখলে। আর পুরো মৌসুমে দুর্দান্ত ফর্মের স্বীকৃতি হিসেবে সেরা স্ট্রাইকার নির্বাচিত হয়েছেন সাম্পদোরিয়ার ফ্যাবিও কোয়াগরিয়েরেল্লা। সেরা উদীয়মান খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়েছেন রোমার ইতালিয়ান মিডফিল্ডার নিকোলো জানিওল।

Advertisement