Beta

একসঙ্গে কাজ করলে এশিয়া বিশ্বে কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠা করতে পারবে : প্রধানমন্ত্রী

৩০ মে ২০১৯, ২৩:০৪ | আপডেট: ৩০ মে ২০১৯, ২৩:০৫

ইউএনবি
জাপান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সির (জাইকা) প্রেসিডেন্ট শিনিচি কিতাওকা বৃহস্পতিবার টোকিওতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। ছবি : পিআইডি

এশিয়ার সব দেশ একসঙ্গে কাজ করলে মহাদেশটি বিশ্বে কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠা করতে পারবে বলে মনে করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘এশিয়ায় উন্নত, উন্নয়নশীল ও স্বল্পোন্নত দেশ রয়েছে। যদি এশিয়ার সব দেশ একসঙ্গে কাজ করতে পারে তাহলে এটি বিশ্বে কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠা করতে পারবে—আমাদের সেই সম্ভাবনা আছে।’

বৃহস্পতিবার জাপান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সির (জাইকা) প্রেসিডেন্ট শিনিচি কিতাওকা টোকিওতে প্রধানমন্ত্রীর হোটেলে সাক্ষাৎ করতে গেলে তিনি এসব কথা বলেন। সাক্ষাৎ শেষে প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ লেখক মো. নজরুল ইসলাম সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

শেখ হাসিনা বলেন, জাপান ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতার পর থেকেই এ দেশের কাছের বন্ধু এবং তারা বাংলাদেশকে সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে।

শেখ হাসিনা দক্ষতা উন্নয়নে তরুণদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার জন্য বাংলাদেশে একটি প্রশিক্ষণকেন্দ্র স্থাপন করতে জাইকা প্রেসিডেন্টকে অনুরোধ জানান।

জাপানকে আদর্শ হিসেবে গ্রহণ করে বাংলাদেশ জাপানের মতোই কৃষিভিত্তিক দেশ থেকে শিল্পভিত্তিক দেশে পরিণত হচ্ছে, বলেন প্রধানমন্ত্রী। ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানও সেটাই চেয়েছিলেন,’ যোগ করেন তিনি।

শেখ হাসিনা হলি আর্টিজান হামলায় জাপানি নাগরিকদের নিহত হওয়ার ঘটনায় গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেন।

জাইকা প্রেসিডেন্ট শিনিচি কিতাওকা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের উচ্চ প্রবৃদ্ধিকে অসাধারণ বলে আখ্যায়িত করেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশের সঙ্গে গবেষণা কর্মসূচি জোরদার করা হবে, কারণ তারা এতে গুরুত্ব দিচ্ছেন। ‘আমাদের অভিজ্ঞতা ও জ্ঞান বাংলাদেশে মানবসম্পদ উন্নয়নে ব্যবহার করা যেতে পারে।’

জাইকা প্রেসিডেন্ট জানান, যে জাইকা বাংলাদেশে আরো বেশি মানুষকে প্রশিক্ষণ দেওয়ার জন্য একটি কর্মসূচি নিয়েছে।

শিনিচি কিতাওকা বলেন, বুধবার জাপানের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সফল বৈঠকের ফলে জাইকা আরো ঘনিষ্ঠভাবে বাংলাদেশের সঙ্গে কাজ করতে পারবে। তিনি জানান, বাংলাদেশ ও জাপান ২০২২ সালে তাদের সম্পর্কের সুবর্ণজয়ন্তি উদযাপন করবে।

চতুর্থবারের মতো প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হওয়ায় শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানিয়ে শিনিচি কিতাওকা আশা প্রকাশ করেন, বাংলাদেশ আগামী দিনগুলোতে আরো সমৃদ্ধ ও সুখী হবে।

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তাফা কামাল, প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম, মুখ্য সচিব মো. নজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজি বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক মো. আবুল কালাম আজাদ, পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক ও জাপানে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত রাবাব ফাতিমা এ সময় বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

Advertisement