Beta

টাকা ধার না দেওয়ায় হত্যা, আসামির ফাঁসি

১২ জুন ২০১৯, ১৩:৪৩

খুলনার দীঘলিয়া উপজেলার চন্দনীমহল গ্রামের গৃহবধূ হালিমা বেগমকে হত্যার দায়ে আজ বুধবার একজনের মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। ছবি : এনটিভি

খুলনার দীঘলিয়া উপজেলার চন্দনীমহল গ্রামের গৃহবধূ হালিমা বেগমকে হত্যার দায়ে একজনের মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত।

আজ বুধবার দুপুর ১২টায় খুলনা জেলা ও দায়রা জজ মো. মশিউর রহমান আসামির উপস্থিতিতে  এ রায় ঘোষণা করেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত রফিকুল ইসলাম খুলনার ক্রিসেন্ট জুট মিলের বদলি শ্রমিক ছিলেন। তিনি দীঘলিয়া উপজেলার চন্দনীমহল গ্রামের বাসিন্দা। রায়ের পর তাঁকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট কাজী আবু শাহিন জানান, ২০১৪ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর চন্দনীমহল গ্রামের রফিকুল ইসলাম একই গ্রামের মোহাম্মদ জিন্নাত আলী শেখের বাড়িতে যান। সেখানে গিয়ে তাঁর স্ত্রী হালিমা বেগমের কাছে পাঁচ হাজার টাকা ধার চান। হালিমা বেগম টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে তাঁকে হত্যা করা হয়।

এ ঘটনায় হালিমার স্বামী মো. জিন্নাত আলী শেখ বাদী হয়ে ওই দিন দীঘলিয়া থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। তদন্ত কর্মকর্তা দীঘলিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) শেখ লুৎফর রহমান ২০১৫ সালের ২৮ এপ্রিল আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

মামলায় ২৭ সাক্ষীর মধ্যে ২৫ জন আদালতে সাক্ষ্য দিয়েছেন। আসামিপক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট মো. রজব আলী।

Advertisement