Beta

ভৈরবে দিনব্যাপী মাছের মেলা অনুষ্ঠিত

২১ জুলাই ২০১৯, ২০:০২

জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে আজ রোববার কিশোরগঞ্জের ভৈরব উপজেলা পরিষদ চত্বরে মৎস্যমেলা অনুষ্ঠিত হয়। ছবি : এনটিভি

জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ উপলক্ষে কিশোরগঞ্জের ভৈরবে দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত হলো মাছের মেলা। উপজেলা পরিষদ চত্বরে আজ রোববার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত এই মেলা অনুষ্ঠিত হয়।

মেলায় স্থানীয় মৎস্যজীবীদের দেওয়া ৩০টি স্টলে দেশীয় ছোট-বড় মাছের সমারোহ ঘটে। মাছ কিনতে সেখানে শত শত ক্রেতার সমাগম হয়। প্রায় ১০ লাখ টাকার মাছ বিক্রি হয় বলে জানায় সংশ্লিষ্টরা।

বেলা ১১টার দিকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ইসরাত সাদমীন ও জ্যেষ্ঠ উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. লতিফুর রহমানকে সঙ্গে নিয়ে মাছের মেলার বিভিন্ন স্টল পরিদর্শন করেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ মো. সায়দুল্লাহ মিয়া। এ সময় তিনি মেলায় উপস্থিত মৎস্যজীবীদের জাটকা ও পোনা মাছ শিকার এবং ক্ষতিকর কারেন্টজাল, বেড়জাল, পাতিজাল, ঘেরজাল ইত্যাদি ব্যবহার থেকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানান।

পরে মেলা চত্বর থেকে বের হওয়া একটি বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রার নেতৃত্ব দেন উপজেলা চেয়ারম্যান। শোভাযাত্রাটি শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে ফিরে আসে। স্থানীয় মৎস্যচাষী, বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থী এবং উপজেলা পর্যায়ের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা শোভাযাত্রায় অংশ নেন।

দুপুরে উপজেলা পরিষদের পুকুরে রুই জাতীয় বিভিন্ন প্রজাতের মাছের পোনা অবমুক্ত করেন চেয়ারম্যান। এ সময় ইউএনওসহ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আলহাজ আল মামুন উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে উপজেলার হাইস্কুলগুলোর অংশগ্রহণে ইতিমধ্যে অনুষ্ঠিত মৎস্য বিষয়ক বিতর্ক প্রতিযোগিতার ফাইনালে ওঠা ভৈরব সরকারি কে বি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় ও বাংলাদেশ রেলওয়ে উচ্চ বিদ্যালয়ের মধ্যকার ফাইনাল অনুষ্ঠিত হয় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে।

উপজেলা প্রোগ্রামার মাসুদ হাসান, উপজেলা একাডেমিক কর্মকর্তা স্বপ্না বেগম, যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা জলি বদন তৈয়বা ও সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নাদিরা বেগম বিতর্ক প্রতিযোগিতার বিচারকের দায়িত্ব পালন করেন। বিতর্ক প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশ রেলওয়ে উচ্চ বিদ্যালয়কে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় ভৈরব সরকারি কে বি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়।

বিতর্ক প্রতিযোগিতা শেষে ইউএনও ইসরাত সাদমীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয় আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণ। এ সময় স্বাগত বক্তব্য দেন সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকতা মো. লতিফুর রহমান। তিনি তাঁর বক্তব্যে ‘মাছ চাষে গড়ব দেশ, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ’ এই স্লোগানকে প্রতিপাদ্য করে অনুষ্ঠিত এবারের মৎস্য সপ্তাহের বিশেষ আয়োজন মৎস্য মেলার সফলতায় সংশ্লিষ্ট সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান।

এ সময় লতিফুর রহমান জানান, বাংলাদেশ এখন মিঠা পানির মাছ উৎপাদনে বিশ্বে চতুর্থ। অভ্যন্তরীণ প্রাকৃতিক উৎসের মাছ আহরণে বিশ্বে তৃতীয়। চাষের অধীনে মাছ উৎপাদনে বিশ্বে পঞ্চম। আর ইলিশ এখন আমাদের গর্বিত ভৌগোলিক নির্দেশক বা জিআই পণ্য। এর ফলে ইলিশ বাংলাদেশের নিজস্ব পণ্য হিসেবে সারা বিশ্বে স্বীকৃতি পেয়েছে।

অন্যদের মধ্যে এ সময় আলোচনায় অংশ নেন উপজেলা প্রোগ্রামার মাসুদ হাসান, উপজেলা একাডেমিক কর্মকর্তা স্বপ্না বেগম, যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা জলি বদন তৈয়বা ও উপজেলা ডেভেলপমেন্ট ফ্যাসিলিটেটর দুর্গা রানী সাহা প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে উপজেলা পর্যায়ে তিনজন সেরা মৎস্যচাষি এবং মৎস্যমেলায় সেরা স্টল বিবেচনায় তিনজনকে পুরস্কৃত করা হয়। পরে বিতর্ক প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন, রানার্স আপ, সেরা বক্তা ও অংশগ্রহণকারী প্রত্যেক বিতার্কিকের হাতে পুরস্কার তুলে দেন অতিথিরা।

Advertisement