Beta

আবরার হত্যা: আরো ৩ জন গ্রেপ্তার

০৮ অক্টোবর ২০১৯, ২৩:০২

অনলাইন ডেস্ক

বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যার ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের আরো তিন শিক্ষার্থীকে মঙ্গলবার রাজধানী এবং আশুলিয়া থেকে গ্রেপ্তার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ।

সংবাদ সংস্থা ইউএনবি জানায়, গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- শামসুল আরেফিন রাফাত (২১), মনিরুজ্জামান মনির (২১) এবং মো. আকাশ হোসেন (২১)। এ নিয়ে আবরার হত্যার ঘটনায় গ্রেপ্তারের সংখ্যা ১৩ জনে দাঁড়াল।

যোগাযোগ করা হলে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) উপকমিশনার (গণমাধ্যম) মাসুদুর রহমান জানান, আলাদা আলাদা স্থানে অভিযান চালিয়ে গোয়েন্দা বাহিনী ওই তিনজনকে গ্রেপ্তার করে।

রাফাতকে রাজধানীর জিগাতলা থেকে বিকাল সাড়ে ৩টায় গ্রেপ্তার করা হয়। অন্যদিকে মনিরকে সন্ধ্যা ৬টার দিকে ডেমরা থেকে এবং আকাশকে একই সময়ে আশুলিয়ার বাইপেল থেকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে জানান তিনি।

রাফাত বুয়েটের মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী, মনির ওয়াটার রিসোর্চ বিভাগের তৃতীয় বর্ষের এবং আকাশ একই বর্ষের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষার্থী।

সোমবার ভোরে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরারকে (২১) বিশ্ববিদ্যালয়ের শের-ই-বাংলা হলের সিঁড়িতে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়।

বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের সাথে সম্পৃক্ততা সন্দেহে রবিবার রাতে হলের ২০১১ নম্বর কক্ষে কয়েকজন ছাত্রলীগ নেতা তাকে মারধর করে।

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের বুয়েট শাখার গ্রেপ্তার হওয়া ১০ নেতা-কর্মীসহ ১৯ জনের বিরুদ্ধে সোমবার সন্ধ্যায় মামলা করেন ভিকটিমের বাবা বরকত উল্লাহ। ভিডিও ফুটেজ পর্যালোচনা করে হত্যার ঘটনায় পুলিশ ছাত্রলীগের ১০ নেতা-কর্মীকে গ্রেপ্তার করে।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান রাসেল, সহ-সভাপতি মুহতাসিম ফুয়াদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদী হাসান রবিন, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অনিক সরকার, ক্রীড়া সম্পাদক মেফতাহুল ইসলাম জিয়ন, সাহিত্য সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনির, উপ-সমাজকল্যাণ সম্পাদক ইফতি মোশাররফ সকাল, উপ-দপ্তর সম্পাদক মুজতবা রাফিদ এবং দুই সদস্য মুনতাসির আল জেমি ও এহতেসামুল রাব্বি তানিম।

হত্যার ঘটনায় মঙ্গলবার তাদের পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত।

এর আগে সোমবার আবরার ফাহাদ হত্যায় জড়িত থাকার অভিযোগে ছাত্রলীগ তাদের বুয়েট শাখার ১১ নেতা-কর্মীকে বহিষ্কার করে। মামলাটি তদন্তের জন্য ডিবিতে হস্তান্তর করা হয়েছে।

Advertisement