Beta

কেন শক্ত মনের নারীরা একা থাকতে চায়?

২৮ আগস্ট ২০১৯, ০৭:৪৮ | আপডেট: ২৮ আগস্ট ২০১৯, ০৯:০৭

ফিচার ডেস্ক
বিষাক্ত সম্পর্ক বা ভুল সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ার চেয়ে একা থাকাকেই শ্রেয় বলে মনে করে শক্ত মনের নারী। ছবি : সংগৃহীত

প্রেম আনন্দের। তবে চাওয়াগুলো পূর্ণ না হলে কখনো কখনো এটি সময় ও শক্তির অপচয়। আসলে কোনো সম্পর্কই ত্রুটিহীন নয়। তবে এ অপূর্ণতারবোধ দীর্ঘ সময় ধরে চলতে থাকলে এটি এক সময় তীব্র যন্ত্রণার কারণ হয়ে দাঁড়ায়।

বিরক্তিকর সঙ্গী সারাজীবন বয়ে নিয়ে বেড়ানো নারী ও পুরুষ উভয়ের জন্যই কঠিন। তবে শক্ত মনের নারীরা এটি থেকে বেরিয়ে আসে। কেন আসে? আসুন জানি।

১. চটকদার কথাবার্তায় বিশ্বাস না করা

শক্ত মনের নারী হওয়া সহজ নয় এবং এটি একদিনে হয়ে যাওয়ার বিষয়ও নয়। যে নারী জীবনে বার বার কঠিন পরিস্থিতির মুখোমুখি হয় এবং জানে যে জীবন পুষ্প শয্যা নয়, সে-ই একদিন হয়তো মানসিকভাবে ভীষণ শক্তিশালী ও দৃঢ় হয়ে উঠতে পারে।

এ ধরনের নারীরা জানে কীভাবে মানুষ চটকদার কথা বলে সুবিধা আদায় করতে চায়। আর সে তাই চায় না চটকদার কথাবার্তার ভেতর দিয়ে কেউ তার সুযোগ নেওয়ার চেষ্টা করুক। আসলে সে তার অভিজ্ঞতা থেকে বুঝতে পারে কে সুযোগ নেওয়ার চেষ্টা করছে। সুযোগসন্ধানী মানুষের সঙ্গে মেশার চেয়ে একা থাকাকেই শ্রেয় মনে করে সে।   

২. নিজের কাজকে গুরুত্ব দেয়

একজন শক্ত মনের নারী নিজেকে এবং নিজের কাজকে গুরুত্ব দেয়। সে জানে সম্পর্কে কী করা প্রয়োজন এবং সে সেটাই করে। এমনকি তার সঙ্গী তাকে শ্রদ্ধা না করলেও সে নিজেকে শ্রদ্ধা করে এবং বিষাক্ত সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসতে চায়। সে তার আত্মশক্তি ও আত্মসম্মান বাড়ানোর প্রতি গুরুত্ব দেয়।

৩. সম্পর্ক, প্রেম এসবের বাইরেও জীবন রয়েছে

অন্ধভাবে কাউকে ভালোবাসার চেয়ে শক্ত মনের নারীরা নিজেদের ক্যারিয়ারকে বেশি গুরুত্ব দেয়। একজন শক্তশালী নারীর জন্য তার ক্যারিয়ার খুব গুরুত্বপূর্ণ। প্রেম, সম্পর্ক এসবের বাইরেও একটি জীবন রয়েছে, আর সেটিকেও অনেক সুন্দর করা যায়, এটি সে জানে।

তার সঙ্গী অলস হলে এবং যত্নবান না হলে সে নিজেকে একা রাখতেই পছন্দ করে।

৪. নিজের সুখের কথা ভাবে

একজন শক্ত মনের নারী সবসময় নিজের সুখের কথা চিন্তা করে। এর মানে এই নয় যে সে স্বার্থপরের মতো কেবল নিজের কথাই ভেবে যায়। সে তার সঙ্গীর সুখের কথাও কিন্তু চিন্তা করে। সম্পর্ক  সুন্দর করার জন্য সে তার সর্বোচ্চটি করে এবং একে বাঁচিয়ে রাখারও চেষ্টা করে। তবে যদি এর পরও সঙ্গীর অহংকে সুখী করতে না পারে, তাহলে আলাদা বা একা থাকাটাই তার জন্য সুখের এবং সে সেই পথই বেছে নেয়।

৫. দায়িত্ব সম্পর্কে সচেতন

একজন শক্তিশালী নারী নিজের দায়িত্বের প্রতি সচেতন ও যত্নবান। এবং সে নিজের দায়িত্বকে বেশ ভালোভাবে ব্যবস্থাপনাও করতে পারে। সে যেমন নিজের প্রতি দায়িত্বশীল তেমনি সঙ্গী ও পরিবারের সদস্যদের প্রতি পূর্ণ দায়িত্ব পালন করে। তবে এরপরও যদি কেউ তার অসম্মান করে এবং তাকে মূল্যায়ন করতে ব্যর্থ হয়, তাহলে সে সেখান থেকে সরে আসে; একা থাকতে চায়।

শক্তিশালী নারী সাধারণত চায় না বিষাক্ত কোনো সম্পর্ককে জিইয়ে রাখতে। বিষাক্ত সম্পর্ক বা ভুল সম্পর্কে  জড়িয়ে পড়ার চেয়ে একা থাকাকেই শ্রেয় বলে মনে করে এমন নারী।

Advertisement